বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০
বৃহঃস্পতিবার, ১৪ই কার্তিক ১৪২৭
সর্বশেষ
 
 
রাশিয়ান ডাক্তারের গবেষণায় প্রকাশ্যে কৈলাস পর্বতের অজানা রহস্য, গোটা পাহাড় জুড়েই অলৌকিক শক্তির বাস !
প্রকাশ: ০১:০৩ pm ১১-০৪-২০২০ হালনাগাদ: ০১:০৩ pm ১১-০৪-২০২০
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


রাশিয়ার এক ডাক্তার কয়েক বছর আগে কৈলাস মানস সরোবরের যাত্রা করেছিলেন। উনি এই যাত্রার পর দাবি করেছিলেন যে, কৈলাস পর্বতে বাস্তবেই একটি প্রাচীন পিরামিড আছে, আর সেই পিরামিড ছোট ছোট পিরামিড দিয়ে ঘেরা। এর সুত্র গিজা এবং মেক্সিকোর Teotihuacan পিরামিডের সাথে যুক্ত। হিমালয় পর্বতমালা সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৬ হাজার ৭১৮ মিটার উঁচুতে কৈলাস পর্বতকে হিন্দু, বৌদ্ধ আর জৈন ধর্ম অনুযায়ী পবিত্র স্থল বলা হয়। হিন্দুদের মান্যতা অনুসারে ভগবান শিব এই পর্বতেই বাস করতেন। আর সেখানেই ওনার সমাধি আছে। 

তিব্বতের বৌদ্ধদের অনুযায়ী, পরম আনন্দের প্রতীক বুদ্ধ ডেমচোক (ধর্মপাল) কৈলাস পর্বতের অধিষ্ঠাতা দেবতা। আর জৈন ধর্মে কৈলাসকে অষ্টাপদ বলা হয়। তাঁদের অনুসারে প্রথম তীর্থঙ্কর ঋশভহদেব এখানেই শান্তি খুঁজে পেয়েছিলেন। আজ পর্যন্ত কোন মানুষই এই পর্বতে চূড়াই অবতরণ করতে পারেনি। যেই এই পাহাড়ে ওঠার চেষ্টা করেছে, তাঁরই মৃত্যু হয়েছে। আর এটা নিয়ে অনেক কথাও প্রচলিত আছে। চীনের সরকার কৈলাস পর্বতের ধার্মিক আস্থা দেখে, সেখানে উঠা নিষিদ্ধ করেছে। এটাও শোনা যায় যে, ১৯ এবং ২০ শতাব্দীতে কিছু পর্বতআরোহী এই পাহাড়ে উঠার চেষ্টা করেছিলেন, কিন্তু তাঁরা সবাই উধাও হয়ে গেছেন।

রাশিয়ার ডাক্তার এর্নেস্ট মুলদাশিফ নিজের স্মৃতিকথায় লেখেন, ওনাকে একবার সাইবেরিয়ার পর্বতআরোহীরা বলেছিলেন যে, কিছু পর্বতআরোহী কৈলাস পর্বতের একটি নির্দিষ্ট জায়গায় পৌঁছেছিল। আর তাঁর একবছর পর বৃদ্ধাবস্থার জন্য তাঁদের মৃত্যু হয়। বিখ্যাত রাশিয়ার চিত্রকার নিকোলায় রেরিখ এর বিশ্বাস অনুযায়ী, কৈলাসের আসেপাশে শাম্বালা নামের একটি রহস্যময়ি রাজ্য আছে। সেখানে শুধু তপস্যিরা বসবাস করেন।

নি এম/
 

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 

 

E-mail: info.eibela@gmail.com

a concern of Eibela Ltd.

Request Mobile Site

Copyright © 2020 Eibela.Com
Developed by: coder71