শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০
শুক্রবার, ১৫ই কার্তিক ১৪২৭
সর্বশেষ
 
 
ট্রাকটর দিয়ে গুড়িয়ে দেয়া হলো হিন্দু পরিবারের বসতভিটা !
প্রকাশ: ১০:৫০ pm ১৫-০৪-২০২০ হালনাগাদ: ১০:৫০ pm ১৫-০৪-২০২০
 
যশোর প্রতিনিধি
 
 
 
 


যশোরের চৌগাছায় হিন্দু সম্প্রদায়ের দুটি পরিবারকে উচ্ছেদ করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

মঙ্গলবার (১৪ এপ্রিল) সকাল ৭ টায় লাঠিসোঠা নিয়ে হামলা চালিয়ে এই উচ্ছেদ চালানো হয়। উচ্ছেদের পর তাদের জমিতে ট্রাকটর দিয়ে চষে সমান করে দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে। তবে উচ্ছেদ হওয়া পরিবারের লোকজন ভয়ে পালিয়ে রয়েছে বলে জানা গেছে।

জানা গেছে, উপজেলার বেড়গোবিন্দপুর গ্রামের মাঝের পাড়ায় পঞ্চাশ বছরের অধিক সময় ধরে পৈত্রিক জমিতে কুমার পাটনি নামের এক ব্যক্তি তার পরিবার নিয়ে বসবাস করতেন। কিন্তু স্বাধীনতা যুদ্ধের কিছুদিন পরেই তিনি মারা যান। ফলে ওই জমিতে ছেলে মিত্র পাটনি, মেয়ে ছায়া রাণী স্বামী, সন্তান নিয়ে বসবাস করেন। দুটি পরিবারে মোট ৯ জন সদস্য রয়েছে। কিন্তু এই জমি গ্রামের মৃত করিম বক্সের ছেলে বুলবুল, লাভলু, মুকুল ও বাবলু মুন্সি নিজেদের দাবি করে কয়েকবার দখল করার চেষ্টা করে। এ নিয়ে কয়েকবার শালিসও হয়েছে গ্রামে। বর্তমানে এই জমি নিয়ে আদালতে মামলা চলছে।

এদিকে মঙ্গলবার সকাল ৭ টায় প্রতিপক্ষ পারভেজ, লাভলু, বিপুল মল্লিকসহ গ্রামের ১০-১২ জন লাঠিসোটা নিয়ে ওই দুটি পরিবারে হামলা চালায়। টিনসেড দিয়ে ঘেরা দুটি ঘর উচ্ছেদ করে তারা। দুটি পরিবারের বসতি জিনিসপত্র সব ভাঙচুর চালিয়ে বসবাসের স্থান ফাঁকা করে। উচ্ছেদের সময় পরিবারের লোকজন উপস্থিত থাকলেও কিছুক্ষণের মধ্যে ভয়ে তারা পালিয়ে যায়। উচ্ছেদের পরে ওই জায়গায় ট্রাকটর চালিয়ে চষে দিয়ে সমান করে দেয় প্রতিপক্ষরা।

ভূক্তভোগী মিত্র পাটনি (৫৭) জানান, আমরা দুই ভাইবোন। আমি আর বোন ছায়া রাণী। হিন্দু আইন অনুয়ায়ী পিতার সম্পত্তি আমরা পেয়েছি। অথচ প্রতিপক্ষরা দাবি করছে আমার মা মৃত দূর্গা রাণী জীবিত থাকার সময় ওই জমি তাদের রেজিস্ট্রি করে দিয়েছে।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, আমার মা বেঁচে থাকা অবস্থায় মানসিক রোগী ছিলেন। তারপরও আমার মা হিন্দু আইন অনুসারে ওই জমি লিখে দিতে পারেন না। প্রতিপক্ষের ভয়ে আমরা এখন অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছি। কোথায় যাব কি করব ভেবে পাচ্ছি না।

চৌগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার (ওসি) রিফাত খান এর সাথে এই প্রতিবেদক এর কথা হয়। তিনি জানান বেশ কয়েক বছর আগে উক্ত হিন্দু পরিবারটি (মিত্র পাটনির মা) মুসলিমদের নিকট জমিটি বিক্রি করে দেয়। কিন্তু আজও পর্যন্ত মুসলিমদের নামে ঐ জমিটি রেকর্ট হয়নি। তিনি বলেন আমি উভয় পক্ষকে থানায় ডেকে এনে এবং স্হানীয় নেতৃস্থানীয় ব্যাক্তিদের মধ্যস্ততায় বলেছি যতদিন পর্যন্ত রিকর্ড তাদের নামে না হচ্ছে ততদিন  ঐ জমি ভোগ দখল না করতে। শান্তি-শৃংখলা বজায় রাখতে পুলিশের নজর আছে বলে তিনি জানান।

নি এম/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 

 

E-mail: info.eibela@gmail.com

a concern of Eibela Ltd.

Request Mobile Site

Copyright © 2020 Eibela.Com
Developed by: coder71