শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৯
শুক্রবার, ১লা অগ্রহায়ণ ১৪২৬
সর্বশেষ
 
 
বাগান খুঁড়তে গিয়ে ১৮০০ বছরের পুরনো গ্রামের সন্ধান
প্রকাশ: ০৩:৪৩ pm ১৭-০৪-২০১৬ হালনাগাদ: ০৩:৪৮ pm ১৭-০৪-২০১৬
 
 
 


আন্তর্জাতিক ডেস্ক: বাড়ির পাশেই ছোট্ট একটি শস্যখেতে এতদিন ধরে শাকসবজি চাষ করে আসছেন যুক্তরাজ্যের সাউথ ওয়েস্টের বাসিন্দা লুক আরউইন।

পেশায় কম্বল প্রস্তুতকারক হলেও তার শখ বাগান করা। আর সেই বাগানে গিয়েই তিনি ঘটিয়ে বসেছেন অসাধারণ এক ঘটনা। 

বাগানের মাটি খোঁড়ার সময় খুঁজে পেয়েছেন ১৮০০ বছরের পুরনো রোমান যুগের প্রাচীন একটি গ্রাম। লুক জানান, বাচ্চাদের জন্য নিজের সবজি চাষের মাঠটিতে তিনি একটি টেবিল টেনিস খেলার স্থান তৈরি করছিলেন। ভূমি খুঁড়ে বিদ্যুতের তার নেয়ার সময় তিনি কিছু অক্ষত মোজাইক পাথরের দেখতে পান।

 

এরপরই সেখানে খবর দেয়া হয় প্রত্মতত্ত্ববিদদের। তারা এসে সেখানে পান আরো লম্বা কিছু অক্ষত মোজাইক পাথর, ধাতব মুদ্রা এবং কিছু সৌন্দর্য সামগ্রী। প্রত্মতত্ত্ববিদরা জানিয়েছেন, এটা রোমান যুগের একটি গ্রাম। গ্রামটিকে ‘অসাধারণভাবে সংরক্ষিত’ বলে বর্ণনা করেছেন তারা। তাছাড়া সাম্প্রতিক ইতিহাসে এ ধরনের ঘটনা আর ঘটেনি বলেও জানান তারা।

আট দিন ধরে মাটি খুঁড়ে গ্রামটি পুরোপুরি আবিষ্কার করেন তারা। ধারণা করা হচ্ছে যুক্তরাজ্যে পাওয়া রোমান যুগের বৃহত্তম গ্রামগুলোর মধ্যে এটি একটি। এর অবয়ব এবং আকৃতি দেখে মনে বোঝা যায়, গ্রামটির মালিক ছিলেন অত্যন্ত ধনী।

এখানে পাওয়া জিনিসগুলোর মধ্যে আছে কয়েকশ ঝিনুক, যা কৃত্রিমভাবে চাষ করা হয়েছিল। উপকূল থেকে লবণাক্ত পানির ব্যারেলে করে এগুলো নিয়ে আসা হতো। এছাড়া গ্রামটিতে পাওয়া গেছে, শিকার করা প্রাণির হাড়। এগুলো থেকে বোঝা যায়, গ্রামটি ছিল বেশ সমৃদ্ধ। 

ব্রিটিশ ইতিহাসবিদ ড. ডেভিড রবার্টস বলেন, ‘আমরা এমন কিছু শিল্পকর্মের সন্ধান পেয়েছি যা থেকে বোঝা যায়, ধনী পরিবারটি কতটা বিলাসী জীবন যাপন করতো। এটা আর পাঁচটা সাধারণ গ্রামের মতো নয়।’ 

উল্লেখ্য, প্রাচীন রোমান সাম্রাজ্যের শাসকালকে রোমান যুগ বলে অভিহিত করা হয়ে থাকে। ৫১০ খ্রিস্টপূর্বাব্দ থেকে ৪৭৬ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত এই সাম্রাজ্য স্থায়ী ছিল। এই সময়ের মধ্যে ইংল্যান্ড ও ওয়েলস, রাইন নদীর পশ্চিমে ও আল্পসের দক্ষিণে অবস্থিত সমগ্র ইউরোপ, বলকান অঞ্চল, কৃষ্ণ সাগর, এশিয়া মাইনর, লেভান্ট (বর্তমান ইরাক ও সিরিয়া অঞ্চল) এবং আফ্রিকার ভূমধ্যসাগরীয় উপকূল অঞ্চল উন্নতির চরম শিখরে আরোহণ করে।

 

এইবেলাডটকম/পিসি

 

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 

Editor: Sukriti

E-mail: news@eibela.com, news.eibela@gmail.com Editor: sukritieibela@gmail.com

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71