বুধবার, ২৭ মে ২০২০
বুধবার, ১৩ই জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
সর্বশেষ
 
 
লকডাউনের সুযোগে কলাপাড়ায় নারায়ন সরকারের জমি দখল !
প্রকাশ: ১২:২০ pm ০৮-০৪-২০২০ হালনাগাদ: ১২:২০ pm ০৮-০৪-২০২০
 
পটুয়াখালী প্রতিনিধি
 
 
 
 


করোনা আতংকে সারাদেশ যখন লকডাউন তখনও থেমে নেই ভূমি দস্যুদের দখল। লকডাউনের সুযোগকে কাজে লাগিয়ে একটি চক্র কলাপাড়ার মহিপুরে এক সংখ্যালঘু পরিবারের ৬০ বছরের ভোগদখলীয় জমি দখল করে ঘর নির্মান করছে। সংখ্যালঘু পরিবারটি জমি দখলের অভিযোগ জানালে মহিপুর থানা পুলিশ নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেয়।

জানা যায়, পটুয়াখালী জেলার মহিপুর থানা সদর ইউনিয়নের পুরান মহিপুর গ্রামের সংখ্যালঘু নারায়ন সরকার তার পৈতৃক সূত্রে পাওয়া জমির কিছু অংশ ৬০ বছর পূর্বে পানি উন্নয়ন বোর্ড অধিগ্রহণ করে বেরি বাঁধ নির্মাণ করে। এরপর কিছু অবশিষ্ট জমি থাকায় সেই জমি পানি উন্নয়ন বোর্ড কলাপাড়া সার্কেল থেকে বন্দোবস্ত নিয়ে ভোগদখল করে আসছেন নারায়ন সরকার পরিবার। শনিবার (৪ এপ্রিল) একই গ্রামের রায়হান মীর (৩০), ফারুক মৃধা (৪০), কালাম চৌকিদার (৫০), জাহাঙ্গীর ও খলিল অবৈধভাবে জোরপূর্বক রের্কডীয় এবং বন্ধোবস্ত পাওয়া ৩০ শতাংশ জমি দখল করে ঘর নির্মাণ করে।

দখলে বাধা দিলে ভূমিদস্যু চক্রটি ওই সংখ্যালঘু পরিবারকে এলাকা ছাড়ার হুমকি দিয়ে ভয় দেখায়। এরপর থানায় অভিযোগ করলে পুলিশ ঘর নির্মাণ বন্ধ করে দেয়।

নারায়ন সরকার জানান, নির্বিঘ্নে ৬০ বছর ধরে পৈত্রিক সূত্রে এবং বন্ধোবস্ত মূলে ওই জমি ভোগ করছেন। গত ৪ এপ্রিল অভিযুক্তরা অবৈধভাবে জোরপূর্বক আমার জমিতে প্রবেশ করে দলবল নিয়ে ঘর নির্মাণ করে। আমি বাধা দিলে আমার পরিবারের সকলকে মেরে ফেলার হুমকী দেয়।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত কালাম চৌকিদার বলেন, তারা কারো জমি দখল করেননি। রেকর্ডীয় কোন জমি না থাকায় উপায়হীণ হয়ে সরকারী জমিতে ঘর তুলেছেন।

এ ব্যাপারে মহিপুর থানার অফিসার্স ইনচার্জ মো. মনিরুল ইসলাম জানান, জমি দখল করে ঘর নির্মাণের অভিযোগ পেয়ে ঘরের নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

নি এম/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 

 

E-mail: info.eibela@gmail.com

a concern of Eibela Ltd.

Request Mobile Site

Copyright © 2020 Eibela.Com
Developed by: coder71