শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮
শনিবার, ৭ই আশ্বিন ১৪২৫
 
 
 নেত্রকোনায় হিন্দু বাড়িতে হামলা, লুটপাট. প্রতিমা ভাংচুর 
প্রকাশ: ০১:৩২ pm ২৯-০১-২০১৮ হালনাগাদ: ০১:৩২ pm ২৯-০১-২০১৮
 
নেত্রকোনা প্রতিনিধি
 
 
 
 


পাওনা টাকা পরিশোধ না করায় নেত্রকোণা সদরে দুইটি হিন্দু বাড়িতে হামলা চালিয়ে মন্দিরের মূর্তি ভাংচুর করেছে দুর্বৃত্তরা।

হিন্দু বাড়িতে হামলা, মন্দিরের প্রতিমা ভাংচুর এবং মারপিটের ঘটনায় তিন দুষ্কৃতকারীকে গ্রেফতার করেছে নেত্রকোনা মডেল থানা পুলিশ। শনিবার রাতে সদর উপজেলার সিংহেরবাংলা ইউনিয়নের সহিলপুর গ্রাম থেকে এদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছেঃ শামছুদ্দিন, সিদ্দিক ও সোহাগ। রবিবার দুপুরে গ্রেফতারকৃতদের আদালাতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সহিলপুর গ্রামের গণেশ আচার্যের কাছে দাদনের ৪০ হাজার টাকা পান একই গ্রামের শামছুদ্দিন ও সিদ্দিক। কিন্তু অতি দরিদ্র গণেশ আচার্য ইতিমধ্যে ১০ হাজার টাকা আসল এবং ৫০-৬০ হাজার টাকা সুদ পরিশোধ করলেও বাদবাকি টাকা পরিশোধ করতে পারছিলেন না।

এর জের ধরে শুক্রবার সন্ধ্যায় শামছু, সিদ্দিক, ইসলাম ও সোহাগসহ তাদের লোকজন গণেশ আচার্য এবং তার বড় ভাই প্রাণেশ আচার্যের বাড়িতে হামলা চালায়। হামলাকারীরা গণেশ আচার্য, তার স্ত্রী রূপা রানী আচার্য, গণেশের বৃদ্ধ বাবা জীবন আচার্য, মা নিয়তী রানী আচার্যসহ বাড়ির অন্যান্য লোকদের মারপিট করে এবং তাদের গরু ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। এতে বাধা দিলে এক পর্যায়ে তারা প্রাণেশ আচার্যের বাড়িতে অবস্থিত মন্দিরের সরস্বতী ও লোকনাথ ঠাকুরের মূর্তি ভাংচুর করে এবং পরিবার দু’টিকে এলাকা ছাড়া করার হুমকি দিয়ে যায়।

খবর পেয়ে নেত্রকোনা মডেল থানা পুলিশ শনিবার রাতে ওই তিনজনকে নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে। এ ব্যাপারে শনিবার রাতে প্রাণেশ আচার্য বাদী হয়ে চারজনের নামোল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও কয়েকজনকে আসামী করে নেত্রকোনা মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

এদিকে এলাকার কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তি ঘটনাটিকে ধামাচাপা দিতে পরিবার দু’টিকে নানা ধরনের ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন। নেত্রকোনা মডেল থানার ওসি (তদন্ত) উত্তম কুমার রায় জানান, গ্রেফারকৃত তিনজনকে রবিবার আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

প্রচ

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71