শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮
শনিবার, ৭ই আশ্বিন ১৪২৫
 
 
অনলাইন নিউজ পোর্টালের ভবিষ্যৎ নির্ধারক অ্যালেক্সা !
প্রকাশ: ১০:৩১ pm ০৫-০৭-২০১৫ হালনাগাদ: ১০:৩১ pm ০৫-০৭-২০১৫
 
 
 


রাকিবুল হাসান: আজকের সংবাদের জন্য পাঠক আর পরের দিন হকারের অপেক্ষায় থাকেন না।প্রযুক্তির চরম উৎকর্ষের এই যুগে যখনই সংবাদ তখনই জানা চাই।তাই ছাপা সংবাদ পত্রের বদলে পাঠকের নির্ভরশীলতা এখন অনলাইন নিউজ পোর্টালের উপর। 

গত কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশেও বিস্তার লাভ করেছে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক অনলাইন নিউজ পোর্টাল।সেই সাথে বাড়ছে প্রতিযোগিতাও। কে সবার আগে সংবাদ পৌঁছে দিতে পারে পাঠকের নাগালে।

আর এই প্রতিযোগিতায় এগিয়ে থাকা নির্ধারিত হয় আলেক্সা র‍্যাংকিং এর উপর ভিত্তি করে। যার র‍্যাংকিং যত কম তার বিজ্ঞাপন মূল্য তত বেশি।

তাই গণ মাধ্যম সংশ্লিষ্ট অনেকের প্রশ্ন এই প্রতিষ্ঠানটিই কি পুরো অনলাইন  সংবাদমাধ্যমের ভবিষ্যৎ নির্ধারণ করবে।  

কারণ হিসেবে জানা যায় অনলাইন সংবাদমাধ্যমগুলোর একমাত্র চালিকা শক্তি ব্যক্তিগত অর্থায়ন এবং বিজ্ঞাপন।

এবার একটু পিছন ফিরে দেখা যাক। দেশে ২০০৪ সালে অনলাইন জগতে ‘বিডিনিউজ২৪ ডটকম’ প্রথম  পা রাখে অনলাইন সংবাদমাধ্যম হিসেবে। তবে  চালু হওয়ার দুই বছরের মাথায় আর্থিক সংকটের কারণে ২০০৬ সালের সেপ্টেম্বরে মালিকানা পরিবর্তন করে সংবাদমাধ্যমটি। এর পর শুরু হয় অন্যান্য সংবাদ মাধ্যমগুলোর যাত্রা। কিন্তু তাদের অনেককেই চালুর কয়েক বছর পরেই অনেকটা বাধ্য হয়েই বন্ধ করে দিতে হয় প্রতিষ্ঠান গুলো।

এর মধ্যে সাংবাদিক সরদার ফরিদ আহমেদের ‘বার্তা টুয়েন্টি ফোর ডট নেট’ অন্যতম। গণমাধ্যম বিষয়ক সংবাদ প্রকাশের জন্য এই পোর্টাল বেশ জনপ্রিয় হয়েছিল। কিন্তু আর্থিক সংকটের কারণে ২০১২ সালের শেষ দিকে বন্ধ হয়ে যায় বার্তা টুয়েন্টি ফোর ডট নেট।

তাই বিশ্লেষণ করলে দেখা যায়, বর্তমান সময়ের সংবাদমাধ্যমগুলো অনেকটা বিজ্ঞাপন নির্ভর। আর এই বিজ্ঞাপন পেতে হলে অ্যালেক্সা র‌্যাংকিং-এ থাকতে হয় ১ থেকে ১০০’র মধ্যে। তাহলে তারা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কাছে বিজ্ঞাপনের জন্য যেতে পারে বলে জানিয়েছেন সংবাদ মাধ্যমগুলোতে চাকুরিরত একাধিক কর্মকর্তা।

তারা জানান, অ্যালেক্সা দেখেই প্রতিষ্ঠান গুলো বিজ্ঞাপন দিয়ে থাকে।

তাহলে প্রশ্ন এসেই যায় অ্যালেক্সা কিভাবে একটি প্রতিষ্ঠানের র‌্যাংকিং করে থাকে?

উইকিপিডিয়া এবং মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে জানা যায়, ১৯৯৬ সালে চালু হওয়া র‌্যাংকিং নির্ণয়কারী সাইট ‘অ্যালেক্সা’ ক্যালিফোর্নিয়ার আমাজন সাইটের একটি সাবসিডিয়ারি সাইট। সাইবার স্পেসম্যান ব্রুস জিলাটের মালিকানাধীন এ সাইটটি অন্য ওয়েবসাইটের র‌্যাংকিং সম্পর্কে তথ্য দিয়ে থাকে। এই ওয়েব ইনফরমেশন কোম্পানি থেকে ওয়েব ট্রাফিক রিপোর্টও দেখানো হয়।

বিশেষজ্ঞদের মতে, অ্যালেক্সা র‌্যাংকিংয়ে যদি কোনো সাইট প্রথম এক লাখের মধ্যে না থাকে তাহলে যে রিপোর্ট দেখায় তা প্রকৃতপক্ষে ভুল হয়ে থাকে। যারা অ্যালেক্সা টুলবার ব্যবহার করেন কেবল তাদের ভিজিটই অ্যালেক্সা গণনা করে থাকে।

যেহেতু অ্যালেক্সা র‌্যাংকিং দেখে বিজ্ঞাপন তাই র‌্যাংকিংয়ে এগিয়ে থাকার জন্য দেশের বিভিন্ন নামধারী সংবাদমাধ্যম নানান ভুল এবং অআনুসাঙ্গিক সংবাদ পরিবেশনের মাধ্যমে মানুষকে বিভ্রান্তি করার সাথে সাথে সংবাদ পাঠের অযোগ্য করে তুলছে।



অ্যালেক্সা ডটকমে গেলে দেখা মেলে সংবাদমাধ্যম নামধারী কিছু ওয়েবসাইট, যেগুলোর অবস্থান অ্যালেক্সা র‌্যাংকিংয়ে ৫০ থেকে ১০০ মধ্যে। আর সেই ওয়েবসাইটে গেলে পাঠকদের দৃষ্টি কাড়বে কিছু মুখরোচক সংবাদ।

বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, র‌্যাংকিংয়ে এগিয়ে থাকার এই অসুস্থ প্রতিযোগিতা চলতে থাকলে ভবিষ্যতে এর ফল হবে অত্যন্ত ভয়াবহ।  

এইবেলা ডটকম/আরএইচএস/রিআ/ ইএস

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71