সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮
সোমবার, ৯ই আশ্বিন ১৪২৫
 
 
অপ্সরা সম্পর্কে ১০টি তথ্য
প্রকাশ: ০৩:০০ pm ২৯-০৫-২০১৬ হালনাগাদ: ০৩:০৬ pm ২৯-০৫-২০১৬
 
 
 


এইবেলা ডেস্ক : ছোটবেলা থেকেই পুরাণের গল্পে, রামায়ণ বা মহাভারতের অপ্সরাদের সাথে আমরা পরিচিত। রম্ভা-উর্বশীদের নাম তো সবাই জানি। অপ্সরাদের মতো সুন্দরী সঙ্গিনী পাওয়ার স্বপ্ন থাকে প্রতিটা পুরুষের মাঝে। কিন্তু আমরা ওঁদের সম্পর্কে কতটা জানি। চলুন আজ তাদের সম্পর্কে কিছু জেনে আসি যা হয়তো আপনি আগে জানতেন না ।

১) অপ্সরারা হলেন এক ধরনের উপদেবী। 

২) দু’ধরনের অপ্সরা আছেন— লৌকিক এবং দৈবিক। লৌকিক অপ্সরারা সংখ্যায় ৩৪ এবং দৈবিক অপ্সরারা সংখ্যায় মোটামুটি ১০ জন। 

৩) একটি মত অনুযায়ী ইন্দ্রের সভায় ২৬ জন অপ্সরা রয়েছেন এবং এরা প্রত্যেকেই এক একটি শিল্পকলায় পারদর্শী। 

৪) শুধু হিন্দুধর্ম নয়, বৌদ্ধধর্মেও অপ্সরাদের উল্লেখ রয়েছে। 

৫) ঋগ্বেদ অনুযায়ী অপ্সরা হলেন গন্ধর্বের স্ত্রী। বেদে একমাত্র উর্বশীর নামেরই উল্লেখ রয়েছে। পরবর্তীকালের অন্যান্য পৌরাণিক গল্পে ইন্দ্রের সভানর্তকীদের সবাইকেই অপ্সরা বলা হয়েছে। 

৬) এদেশে যারা অপ্সরা, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় তারাই হল ‘বিদাদরি’। সংস্কৃত বিদ্যাধারা থেকেই শব্দটি উৎপন্ন বলে মনে করা হয়। এর অর্থ জ্ঞানের ভাণ্ডার। 
 

৫) কম্বোডিয়ার একটি বিখ্যাত নৃত্যকলা রয়েছে যা পশ্চিমে ‘অপ্সরা ডান্স’ নামে পরিচিত। 

৭) চিনের বিখ্যাত বৌদ্ধ গুহাগুলি যেমন মোগাও কেভ, ইউলিন কেভ, ইয়ুংগাং এবং লংমেন গ্রোটোস ইত্যাদির গুহাচিত্রে বহু অপ্সরা অঙ্কিত রয়েছে। 

৮) প্রচলিত ধারণা অনুযায়ী অপ্সরারা ইচ্ছে মতো রূপ ধারণ করতে পারেন এবং তাঁরা জুয়া খেলায় ভাগ্য নির্ধারণ করেন। 

৯) উর্বশী সবচেয়ে নামী অপ্সরা হলেও অপ্সরাদের রানি কিন্তু রম্ভা। রামায়ণে রাবণ রম্ভাকে অসম্মান করেছিলেন এবং তার পরেই ব্রহ্মা তাঁকে শাপ দিয়ে বলেন যে যদি আর একজন নারীর অসম্মান তিনি করেন তবে মাথা ফেটে তিনি মারা যাবেন। শেষ পর্যন্ত সেই শাপই সত্য হয়। সীতার অপহরণ এবং রামের হাতে রাবণের মৃত্যু, এই সবকিছুর মূলে কিন্তু ছিল রম্ভার সম্মানহনন।  

১০) তবে অন্য একটি মত অনুযায়ী রম্ভা হলেন কুবের-এর ছেলে নলকুবের-এর স্ত্রী এবং তিনিই শাপ দিয়েছিলেন রাবণকে। 

এইবেলাডটকম/এএস

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71