সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮
সোমবার, ৯ই আশ্বিন ১৪২৫
 
 
আগ্রায় ছিনতাইকারী বানর!
প্রকাশ: ০৯:১৫ am ০২-০৬-২০১৮ হালনাগাদ: ০৯:১৫ am ০২-০৬-২০১৮
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


সারাজীবনের সঞ্চিত অর্থ জমা রাখতে মেয়েকে সঙ্গে নিয়ে ব্যাংকে যাচ্ছিলেন এক ব্যক্তি। টাকার ব্যাগটা ছিল মেয়ের হাতে, তার ভেতরে প্রায় দুই লাখ টাকা। বাড়ি থেকে ব্যাংক পর্যন্ত নিরাপদে পৌঁছালেও, ব্যাংকের সামনেই ঘটে বিপত্তি। ভবনের সিঁড়ি বেয়ে দোতলায় উঠতেই মেয়ের হাত থেকে টাকাভর্তি ব্যাগটি ছিনিয়ে নিয়ে দৌড় দেয় এক ছিনতাইকারী।

ক্ষণিকের বিহ্বলতা কাটিয়ে উঠতেই ছিনতাইকারী তাড়া করেন বাবা-মেয়ে। তাদের চিৎকার শুনে ততক্ষণে বেরিয়ে এসেছেন ব্যাংকের নিরাপত্তা কর্মীরাও। কিন্তু তার আগেই ছিনতাইকারী ব্যাগ নিয়ে ভবনের ওপরের তলায় পৌঁছে গেছে। এ সময় তাকে তাড়া করা হচ্ছে বুঝে ছিনতাইকারীটি ব্যাগ ছিঁড়ে অনেকগুলো নোট ছড়িয়ে দেয়। পরে সেগুলো গুনে দেখা যায় সেখানে প্রায় ৬০ হাজার টাকা। আর বাকি ১ লাখ ৪০ হাজার টাকা ছিনতাইকারীর ব্যাগেই রয়ে গেছে।

ঘটনাটি ভারতের আগ্রার। ভুক্তভোগী বিজয় বানসাল একজন ব্যবসায়ী। তবে ছিনতাইকারী কোনো মানুষ নয়। শুনতে অবাক লাগলেও সত্য, বিজয় বানসালির টাকা ছিনতাই করেছে এক বানর। খবর বিবিসির।

আর এই ঘটনায় চরম বিপাকে পড়েছে স্থানীয় পুলিশ। কোন আইনে এই ছিনতাইয়ের ঘটনার মামলা দায়ের করবে, সেটি কিছুতেই বুঝে উঠতে পারছে না তারা

ভুক্তভোগী বিজয় বানসাল বলেন, পুরো ঘটনা এত দ্রুত ঘটে গেল যে, কিছুই করতে পারলাম না। সারাজীবনের সঞ্চয় ছিল ওই টাকাটা। এখন তো আমি সর্বস্বান্ত হয়ে গেলাম। দুইদিন আগে এই ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটলেও স্থানীয় পুলিশ শুধু ঘটনাটি লিখে রেখেছে। কারণ এই লেজওয়ালা ছিনতাইকারীর বিরুদ্ধে কোন ধারায় মামলা করা হবে, তা বুঝে উঠতে পারছে না তারা।

বিজয় জানান, ঘটনার পর সিনিয়র পুলিশ কর্মকর্তাদের কাছেও আবেদন জানিয়েছেন তিনি, যদি কিছু ব্যবস্থা করা যায়।

তবে বিজয় প্রথম নয়, তার মতো অনেকেই বানরের দলের কারণে বিপদে পড়েছেন। কারণ দেশটির উত্তরপ্রদেশের বিভিন্ন অঞ্চলেই বানরের উৎপাত  ভয়াবহ রকমের। বিশেষ করে বারানসি বা মথুরা-বৃন্দাবনের মতো হিন্দু তীর্থক্ষেত্রগুলোতে হাজার হাজার বানর সেখানকার তীর্থযাত্রী আর নাগরিকদের জীবন অতিষ্ঠ করে তুলেছে।

২০১৪ সালে মথুরায় গিয়েছিলেন ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জী। সেখানকার বানরদের আবার বিশেষ নজর মানুষের চশমার ওপরে। এজন্য প্রথমে নিরাপত্তার বাহিনী ভেবেছিল প্রণব মুখার্জীকে চশমা না পড়তেই অনুরোধ করা হবে। পরে অবশ্য রাষ্ট্রপতির ওপরে বানর বাহিনীর সম্ভাব্য হামলা আটকাতে নিয়োগ করা হয়েছিল প্রশিক্ষিত হনুমান বাহিনী।

এছাড়াও বারানসি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নির্বাচনী এলাকা। সেখানকার সব গ্রামকে ইন্টারনেটের আওতায় আনার পরিকল্পনা নিয়েছিল সরকার। কিন্তু সম্ভব হয়নি। কারণ ইন্টারনেট সংযোগের জন্য প্রয়োজনীয় ফাইবার অপটিক কেবল দাঁত দিয়ে কেটে দিচ্ছিল বানরের দল।

তবে উত্তরপ্রদেশের বাইরে ওড়িশা রাজ্যে সম্প্রতি একটি মর্মান্তিক ঘটনা ঘটিয়েছে একটি বানর। বাড়িতে ঢুকে একটি শিশুকে 'ছিনতাই' করে নিয়ে যায় বানরটি। পরে শিশুটির মৃতদেহ পাওয়া গেছে একটি কুয়ার ভেতরে।


বিডি

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71