শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮
শুক্রবার, ২রা অগ্রহায়ণ ১৪২৫
 
 
আজ রুদ্র'র মহাপ্রয়াণ দিবস
প্রকাশ: ১০:২৪ am ২১-০৬-২০১৭ হালনাগাদ: ১০:২৪ am ২১-০৬-২০১৭
 
 
 


ঢাকা : আজ ২১ জুন তারুণ্য ও সংগ্রামের দীপ্ত প্রতীক কবি রুদ্র মুহম্মদ শহিদুল্লাহর ২৬তম মৃত্যুবার্ষিকী। বাংলাদেশের কবিতায় অবিসস্মরণীয় ও প্রতিভাবান এই কবির শিল্পমগ্ন উচ্চারণ তাঁকে দিয়েছে সত্তরের অন্যতম কবির স্বীকৃতি।

১৯৯১ সালের ২১ জুন মাত্র ৩৫ বছর বয়সে তিনি মারা যান। দিনটির স্মরণে কবির গ্রামের বাড়ি বাগেরহাটের মোংলার মিঠেখালিতে বিকালে শোভাযাত্রা, পুষ্পস্তবক অর্পণ, দোয়া ও ইফতার মাহফিলের আয়োজন করেছে রুদ্র স্মৃতি সংসদ। সন্ধ্যায় সংসদ কার্যালয়ে কবির স্মরণে স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হবে।

অকালপ্রয়াত এই কবি তার কাব্যযাত্রায় যুগপৎ ধারণ করেছেন দ্রোহ ও প্রেম, স্বপ্ন ও সংগ্রামের শিল্পভাষ্য। 'জাতির পতাকা আজ খামচে ধরেছে সেই পুরোনো শকুন'- এই নির্মম সত্য অবলোকনের পাশাপাশি ততধিক স্পর্ধায় তিনি উচ্চারণ করেছেন 'ভুল মানুষের কাছে নতজানু নই'। যাবতীয় অসাম্য, শোষণ ও ধর্মান্ধতার বিরুদ্ধে অনমনীয় অবস্থান তাঁকে পরিণত করেছে 'তারুণ্যের দীপ্ত প্রতীক' এ।

একই সঙ্গে তাঁর কাব্যর আরেক প্রান্তর জুড়ে রয়েছে স্বপ্ন, প্রেম ও সুন্দরের মগ্নতা। দেশ ও জাতির সংকটে রুদ্রের কবিতা হয়ে উঠেছে তারুণ্যের হাতিয়ার।

মাত্র ৩৫ বছরের (১৯৫৬-১৯৯১) স্বল্পায়ু জীবনে তিনি সাতটি কাব্যগ্রন্থ ছাড়াও গল্প, কাব্যনাট্য এবং 'ভালো আছি ভালো থেকো'-সহ অর্ধশতাধিক গান রচনা ও সুরারোপ করেছেন। পরবর্তীকালে এ গানটির জন্য তিনি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতি প্রদত্ত ১৯৯৭ সালের শ্রেষ্ঠ গীতিকারের (মরণোত্তর) সম্মাননা লাভ করেন। 'উপদ্রুত উপকূল' ও 'ফিরে চাই স্বর্ণগ্রাম' কাব্যগ্রন্থ দুটির জন্য 'সংস্কৃতি সংসদ' থেকে পরপর দুই বছর 'মুনীর চৌধুরী সাহিত্য পুরস্কার' লাভ করেন। সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট ও জাতীয় কবিতা পরিষদ গঠনে তিনি গুরুত্বপূরণ ভূমিকা পালন করেন।

এইবেলাডটকম/এএস

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71