শনিবার, ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯
শনিবার, ৪ঠা ফাল্গুন ১৪২৫
 
 
আজ সমাজ সংস্কারক রাজা রামমোহন রায়ের জন্মদিন
প্রকাশ: ১১:৩৭ am ২২-০৫-২০১৭ হালনাগাদ: ১১:৩৭ am ২২-০৫-২০১৭
 
 
 


অবিভক্ত বাংলার নবজাগরনের অগ্রদূত,একাধারে সমাজ, শিক্ষা ও ধর্মীয় সংস্কারক রাজা রামমোহন রায়ের ২৪৫ তম জন্মবার্ষিকী আজ। 

রাজা রামমোহন রায় ১৭৭২ সালে হুগলি জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। রামাকান্ত রায় ছিলেন তার বাবা এবং তারিণী দেবী ছিলেন তার জননী।

পাশ্চাত্য শিক্ষা প্রবর্তনের পক্ষাপাতী ছিলেন রামমোহন রায়ের বিপ্লবী চিন্তার ফসল হিন্দুধর্ম সংস্কার আন্দোলন। তিনি প্রতিমা পূজা বর্জন করেন এবং বিশ্বাস করতেন এক সর্বজনীন ঈশ্বরপূজায়। তিনি ১৮২৮ সালে প্রতিষ্ঠা করেন ব্রাহ্মসভা, যা পরবর্তী সময়ে ব্রাহ্মসমাজ নামে পরিচিতি লাভ করে। রামমোহন রায়ের সমাজ সংস্কার আন্দোলনের সর্বশ্রেষ্ঠ কীর্তি হলো সতীদাহ প্রথা উচ্ছেদ।

সনাতন হিন্দুধর্মে প্রচলিত অমানবিক ও নির্মম সহমরণ প্রথার বিরুদ্ধে তিনি সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলেন। তার অক্লান্ত চেষ্টার ফলে ১৮২৯ সালে লর্ড বেন্টিঙ্ক আইন পাশ করে সতীদাহ প্রথা রহিত করেন। রামমোহন রায় স্বীয় ধর্মমত ও ব্যক্তিগত দৃষ্টিভঙ্গি প্রচারের জন্য ১৮২১ সালে সংবাদ কৌমুদী নামে একটি বাংলা সংবাদপত্র প্রকাশ করেন।

বাঙালির মধ্যে জাতীয় চেতনার উন্মেষ সাধনে রামমোহন রায়ের ভুমিকার কথা আজও সশ্রদ্ধচিত্তে উচ্চারিত হয়। তাঁর মাধ্যমেই বাঙালি সর্বপ্রথম মতৈক্য পোষণ করে সংঘবদ্ধ হয় এবং তাঁদের নিজস্ব মতামত প্রদানে সক্ষম ও উৎসাহী হয়। রামমোহন রায় বাঙালিকে জাতি হিসেবে আত্মপরিচয় সমৃদ্ধ করতে চেষ্টা করেছেন। 

রাজা রামমোহন রায় সংস্কৃত, আরবী, ফারসী, ইংরেজি ভাষায় পান্ডিত্য লাভ করেন। হিব্রু, গ্রিক, সিরীয় প্রভৃতি ভাষায়ও দক্ষতা অর্জন করেন। ইসলাম ধর্ম, খ্রিস্ট ধর্ম ও বৌদ্ধ ধর্ম সম্পর্কে তার গভীর জ্ঞান ছিল। তিনি প্রথমে কোম্পানির চাকুরীতে যোগদান করেন এবং দায়িত্বপূর্ণ পদে উন্নীত হন। তিনি একসময়ে রংপুর কালেক্টরেটে কর্মরত ছিলেন।

এই সমাজ সংস্কারক ১৮৩৩ সালে ইংল্যান্ডের ব্রিষ্টল শহরে ইহলোক ত্যাগ করেন। 

এইবেলাডটকম/এএ

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71