শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০১৯
শুক্রবার, ৬ই বৈশাখ ১৪২৬
সর্বশেষ
 
 
আন্দোলন স্থগিত তবে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন 
প্রকাশ: ০৭:৫১ pm ১৪-০৫-২০১৮ হালনাগাদ: ০৭:৫১ pm ১৪-০৫-২০১৮
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আস্থা রেখে সরকারি চাকরিতে কোটা প্রথার বিলুপ্তির প্রজ্ঞাপন চেয়ে শাহবাগ মোড়ের অবরোধ স্থগিত করেছেন আন্দোলনকারী সাধারণ শিক্ষার্থী ও চাকরি প্রত্যাশীরা। একইসঙ্গে সংগঠনের পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন অব্যাহত থাকবে।

সোমবার সন্ধ্যা ৭টায় শাহবাগ মোড়ে সংবাদ সম্মেলন করে এ তথ্য জানিয়েছে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন।

তিনি বলেন, সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী কোটা বাতিল বিষয়ে দ্রুত প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে। তাই প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আস্থা রেখে আমরা আর কোনো সময় জুড়ে দিচ্ছি না। তবে আমরা কোটা বাতিল বাস্তবায়নের অপেক্ষায় থাকব। সংগঠনের পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন ঘোষণা অব্যাহত থাকবে, প্রজ্ঞাপন জারি না হওয়া পর্যন্ত।

এর আগে দুপুর থেকে আন্দোলনকারীরা শাহবাগের রাস্তা অবরোধ করায় চারদিকে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এতে ভোগান্তিতে পড়েন যাত্রী ও পথচারীরা। এছাড়া একদিকে মতিঝিল ও অন্যদিকে নিউমার্কেট পর্যন্ত যান চলাচল বন্ধ থাকে।

আন্দোলনকারীদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন জানিয়েছিলেন, প্রজ্ঞাপন জারি না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে। সরকার চাইলে কোটা বাতিল কিংবা আমাদের পাঁচ দফার ভিত্তিতে কোটা সংস্কার করতে পারে।

পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী সোমবার সকাল থেকেই ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে বিক্ষোভ করছিলেন আন্দোলনকারীরা। বিভিন্ন একাডেমিক ভবনে তালাও দেয়া হয়। দফায় দফায় ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ করেন তারা। পরে দুপুর ১২টা ৫৫ মিনিটের দিকে শাহবাগ মোড়ে অবস্থান নেন আন্দোলনকারীরা। সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল শুরু করেন শিক্ষার্থীরা। ক্যাম্পাসের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে মিছিলটি শাহবাগে গিয়ে শেষ হয়। এরপরই সড়ক অবরোধে করে ফেলেন আন্দোলনকারীরা।

প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার পর কয়েক দফায় আল্টিমেটাম শেষে গতকাল থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য দেশের সব কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা দেয় কোটা সংস্কারের দাবিতে গড়ে ওঠা প্ল্যাটফর্ম বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ।

৮ এপ্রিল থেকে টানা পাঁচদিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের প্রায় সব পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলন করেন শিক্ষার্থীরা। ১২ এপ্রিল জাতীয় সংসদের অধিবেশনে কোটা পদ্ধতি বাতিল ঘোষণা করে সব চাকরিতে শতভাগ মেধার ভিত্তিতে নিয়োগের ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে সোমবার বেলা ১১টা পর্যন্ত এখনো এ বিষয়ে কোনো প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়নি।


বিডি

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71