সোমবার, ২৫ মে ২০২০
সোমবার, ১১ই জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
সর্বশেষ
 
 
কাবুলে গুরুদুয়ারায় হামলা হলেও আবার তারাই নিল মাদ্রাসা ছাত্রদের বাঁচানোর দায়িত্ব !
প্রকাশ: ১২:১০ pm ০৬-০৪-২০২০ হালনাগাদ: ১২:১০ pm ০৬-০৪-২০২০
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


কয়েক লক্ষ মানুষ বিপদে পড়েছেন ভারত জুড়ে আচমকা লকডাউন নেমে আসায়। স্কুলগুলো বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বহু বাচ্চার খাবার বন্ধ হয়ে গেছে। মাদ্রাসার ক্ষেত্রেও তাই। বহু স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ও সাহায্যকারী মানুষ এগিয়ে এসে পরস্পরকে সাহায্য করছেন এই অবস্থায়।

তবে শুধু এই অবস্থায় বলে নয়, দেশের যে কোনও বিপর্যয়েই সব সময় সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন শিখরা। সম্প্রতি কাবুলে মুসলিম সন্ত্রাসীদের বোমা হামলায় নিহত হয় ২৭ জন শিখ ধর্মালম্বী কিন্তু তাতে কি হয়েছে? মানবতা তো থেমে থাকতে পারে না। তাই শিখ কতৃক গুরুদুয়ারা খুলে দেওয়া হয়, চালু করা হয় লঙ্গরখানা। দলে দলে মানুষ সেবা পান সেখানে। এখনও ব্যতিক্রম হয়নি। তবে পঞ্জাবের মালেরকোঠার হা দা নারা সাহিব গুরুদুয়ারা মানুষের মন জিতে নিয়েছেন স্থানীয় মাদ্রাসার পড়ুয়াদের খাবারের ব্যবস্থা করে। জাতি-ধর্মের ঊর্ধ্বে তাঁদের এই সেবার মনোভাবকে সকলে প্রশংসা করেছেন।

স্থানীয় সূত্রের খবর, কোনও আগাম প্রস্তুতি ছাড়াই হঠাৎ করে লকডাউন হয়ে যাওয়ায় মাদ্রাসার ছাত্ররা বিপদে পড়ে। বেশির ভাগ ছাত্রই আশপাশের বাড়িতে ফিরে যেতে পারলেও, চল্লিশটি ছাত্র বিহার ও উত্তরপ্রদেশের বাসিন্দা হওয়ায় তাদের ফেরা হয়নি। খবর পান ওই গুরুদুয়ারার প্রধান গ্রন্থী, ভাই নরিন্দর পাল সিং। সঙ্গে সঙ্গেই তিনি সিদ্ধান্ত নেন, গুরুদুয়ারার তরফে দু’বেলা খাওয়ানো হবে ছাত্রগুলিকে।

মাদ্রাসার মৌলভী সাহেব জানিয়েছেন, তাঁর ছাত্রদের কথা ভেবেছে বলে গুরুদুয়ারার কাছে তিনি কৃতজ্ঞ। তিনি বলেন, “হঠাৎ সব লকডাউন হয়ে গেল। ট্রেন বাতিল হয়ে গেল একের পর এক। আমরা কোনও ব্যবস্থা করারই সময় পাইনি। বাইরের ছাত্রদের ঘরেও পাঠানো হয়নি। কিন্তু গুরুদুয়ারা পাশে থেকেছে, দায়িত্ব নিয়েছে। ওঁরা সবসময়ই সেবায় বিশ্বাস করেন।”

গুরুদুয়ারার দায়িত্বে থাকা কুলদীপ সিং জানিয়েছেন, প্রতিদিনই দু’বেলা মিলিয়ে হাজার দেড়েক মানুষের খাবারের ব্যবস্থা করছেন তাঁরা। স্থানীয় মহিলারাও এসে রান্নায় হাত লাগাচ্ছেন। সেখানে কয়েকটি ছাত্রর দায়িত্ব এমন কিছু বড় ব্যাপার নয়। তবে মাদ্রাসার ছাত্ররা গুরুদুয়ারার নিয়ম মেনে খেতে অভ্যস্ত ছিল না এতদিন। এখন তা-ও হয়ে গেছে।

নি এম/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 

 

E-mail: info.eibela@gmail.com

a concern of Eibela Ltd.

Request Mobile Site

Copyright © 2020 Eibela.Com
Developed by: coder71