রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮
রবিবার, ৪ঠা অগ্রহায়ণ ১৪২৫
 
 
ইসলামপুরে বন্যায় ১শত ৬৫ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি
প্রকাশ: ০৯:২৭ pm ২৭-০৮-২০১৭ হালনাগাদ: ০৯:২৭ pm ২৭-০৮-২০১৭
 
জামালপুর প্রতিনিধি :
 
 
 
 


জামালপুরের ইসলামপুরে স্মরণ কালের ভয়াবহ বন্যায় রাস্তা-ঘাট, জমির ফসল, মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ বিভাগসহ উপজেলায় প্রায় ১শত ৬৫ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

বন্যা কবলিত এলাকা থেকে বন্যার পানি নেমে গেলেও রেখে গেছে অসংখ্য ক্ষত চিহ্ন। শুধু রাস্তা নয় বন্যার পানিতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ঘর বাড়ি। জায়গায়-জায়গায় সড়ক ভেঙে যাওয়ায় রিক্সা,ভ্যান,অটোসহ কোন ধরনের যানবাহন চলাচল করতে না পারায় বন্যা কবলিত মানুষ চরম কষ্টে দিনযাপন করছে। 

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মতিয়ার রহমান জানান, চলতি ভয়াবহ বন্যায় উপজেলার ১২ ইউনিয়ন ও পৌর সভার ৯৮ শতাংশ এলাকা বন্যাকবলিত হওয়ায় সাড়ে ৩ হাজার হেক্টর রোপ আমন ক্ষেত, ৭১০ হেক্টর  শাকসবজি, ৫০ হেক্টর বীজতলা ও ৫ হেক্টর কলা বাগানসহ বিভিন্ন ফসল মিলে প্রায় ৩০কোটির টাকার ক্ষতি হয়েছে ভয়াবহ বন্যায় । বন্যার পানির স্রোতে এক হাজার হেক্টর জমির পাটের জাগ ভেসে গেছে ।

তিনি আরো জানান, এখনো আমন চাষের সময় আছে। বন্যার পানি দ্রুত নেমে গেলে সার, বীজ ও ধানের চারা সরবরাহ করতে পারলে কৃষকরা আবারো ঘুরে দাড়াতে পারবে। 

উপজেলা প্রাণী সম্পদ দপ্তরে যোগাযোগ করা হলে তার কোন তথ্য দিতে পারে নি। তবে অন্য একটি সূত্র জানায়, বন্যার পানিতে অধিকাংশ এলাকা তলিয়ে যাওয়ায় উপজেলার অর্ধশতাধিক লেয়ার ও ব্রয়লার খামারের মুরগি, গরুবাছুর, ছাগল-বেরা ও হাঁস-মুরগিসহ হাজার হাজার গবাদিপশু মারা গেছে। বিশেষ করে বন্যায় গো-খাদ্য সংকটে গরু মোটা তাজাকরণ কার্যক্রমে কৃষকরা ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বিভাগে প্রায় ২০-২৫ কোটি টাকার সম্পদ ক্ষতি হয়েছে।

উপজেলা নবাগত প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা.আবদুর রৌফ এর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি তথ্য দিতে অপারগতা জানান।
উপজেলা মৎস্য চাষী সমিতির সভাপতি কামরুজ্জামান চাঁন জানান, বন্যায় সহস্রাধিক মৎস্য চাষী ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে পথে বসেছে। তাদের সব সহায়-সম্বল বানের পানি ভাসিয়ে নিয়ে গেছে। সরকারি সহযোগীতা না পেলে তারাদের পক্ষে আর ঘূরে দাড়ানো সম্ভব হবে না। 

ইসলামপুরের সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা সলিমুল্লাহ জানান, বন্যায় ইসলামপুর উপজেলায় ১২টিইউনিয়ন একটি পৌরসভায় ১১৬৮ জন মাছ চাষির ১২৮৪টি পুকুর বন্যার পানিতে ভেসে যাওয়া ৮কোটি ৩২লক্ষ্য টাকার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। 

তিনি আরো জানান, বন্যার পানি নামার পর পুকুর গুলো দ্রুত সংস্কার করে আবারো শতভাগ মাছ চাষ করা সম্ভব। তবে এ ক্ষেত্রে সরকারি সহযোগীতা অত্যন্ত প্রয়োজন। 

উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা গোলাম মোস্তফা জানান, বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ ধারন করায় উপজেলার ৯৬টি প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ হলেও ১৬ টি সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ক্ষতি হয়েছে প্রায় এক কোটি ৫০ লাখ টাকার। ৭৫টি মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ক্ষতির পরিমান প্রায় ৮৫ লাখ টাকা।

ও/এসএম

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71