মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮
মঙ্গলবার, ২৭শে অগ্রহায়ণ ১৪২৫
 
 
উজিরপুরে ইউপি চেয়ারম্যান বিশ্বজিৎ হত্যাকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে বিক্ষোভ
প্রকাশ: ০৫:৫০ pm ২৪-০৯-২০১৮ হালনাগাদ: ০৫:৫০ pm ২৪-০৯-২০১৮
 
বরিশাল প্রতিনিধি
 
 
 
 


বরিশালের উজিরপুরের জল্লায় আলোচিত ইউপি চেয়ারম্যান বিশ্বজিৎ হালদার নান্টু হত্যাকান্ডর  ঘটনায় বরিশাল ২ আসনের সাংসদ এ্যাড. তালুকদার মোঃ ইউনুসের ব্যাক্তিগত সহকারী আবু সাইদ রাড়ী, শোলক ইউপি চেয়ারম্যান কাজী হুমায়ুন কবিরের নাম উল্লেখ সহ আওয়ামীলীগের ২৭, বিএনপির ৫ নেতাসহ ৩২ জনের বিরুদ্ধে উজিরপুর মডেল থানায় হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। 

হত্যা মামলাটি দায়ের করেছেন নিহত বিশ্বজিৎ হালদারের পিতা মুক্তিযোদ্ধা শুখলাল হালদার।

নান্টু হত্যার ঘটনায় উত্তাল রয়েছে জল্লা ইউনিয়ন সহ গোটা উজিরপুর উপজেলা। বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ মিছিল, সমাবেশ, মানবন্ধন কর্মসুচী অব্যাহত রয়েছে। হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবীতে উপজেলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

রবিবার সকাল ১০ টা থেকে দুপুর পর্যন্ত জল্লা ইউনিয়নের হাজার হাজার শোকার্ত জনগন বিক্ষোভ মিছিল, সড়ক অবরোধ ও মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে। এছারা উপজেলা আওয়ামীলীগের বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা উপজেলা সদরে বিক্ষোভ মিছিলে অংশগ্রহন করেন। মিছিলটি উপজেলা চত্তর থেকে শুরু করে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিন করে ইচলাদী বাস স্টান্ডে শেষ হয়। 
বিক্ষোভ মিছিল শেষে বেলা সারে ১১ টায় সমাবেশে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এস.এম জামাল হোসেনের সভাপতিত্বে বক্তৃতা করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য এ্যাডঃ তালুকদার মোঃ ইউনুস,উপজেলা চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান ইকবাল, গৌরনদী উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দা মনিরুন নাহার মেরী, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আঃ মজিদ সিকদার বাচ্চু, পৌর মেয়র গিয়াস উদ্দিন বেপারী, শ্রমিকলীগের আহবায়ক আনোয়ার হোসেন খান, ছাত্রলীগ সভাপতি অসিম কুমার ঘরামী। এ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও বিভিন্ন অঙ্গসংঘঠনের নেতাকর্মী।

বক্তারা প্রকৃত হত্যাকারীদের আড়াল করতে কাউকে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার না করার আহবান জানিয়ে ইউপি চেয়ারম্যানের হত্যাকারীদের চিহ্নিত করে গ্রেফতারপূর্বক ফাঁসির দাবি করেন।

উল্লেখ্য, শুক্রবার রাতে উজিরপুরের কারফা বাজারের নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে বসে দুর্বৃত্তদের গুলিতে নিহত হন ইউপি চেয়ারম্যান বিশ্বজিৎ হালদার নান্টু। এ সময় নিহার হালদার নামে এক যুবক গুলিবিদ্ধ হন। চেয়ারম্যানের মৃত্যুর খবরের পরপরই জল্লা ইউনিয়নজুড়ে বিক্ষোভে ফেঁটে পরেন এলাকাবাসী।    
বিশ্বজিৎ হালদার নান্টু হত্যার ঘটনায় ২২ সেপ্টেম্বর শনিবার নিহতের পিতা শুখলাল হালদার বাদী হয়ে উজিরপুর মডেল থানায় স্থানীয় এমপি’র পি,এস আবু সাঈদ রাড়ী, শোলক ইউপি চেয়ারম্যান কাজী হুমায়ুন কবির, ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি জালাল মল্লিক, জল্লা ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি তাইজুর রহমান পান্নু, ছাত্রলীগ সভাপতি মামুন শাহ সহ ৩২ জনকে অভিযুক্ত করে মামলাটি দায়ের করেছেন। এর মধ্যে তাইজুর রহমান পান্নু,হরশিত রায়, আইয়ুব আলী ফরাজী,সাইদুল সিকদার,মন্নান হাওলাদারকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। ঘটনাস্থলে বিক্ষুব্দ এলাকাবাসী মিছিল ও মানববন্ধন অব্যাহত রেখেছে। 

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) মোঃ হেলাল উদ্দিন জানান, গ্রেফতারকৃতদের ৭দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে আবদেন করা হয়েছে। বাকী আসামীদের গ্রেফতারের জন্য জোর তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে। মামলার মূল রহস্য উদঘাটনের জন্য ব্যাপক তদন্ত চলছে। 

বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা অচিরেই হত্যাকারীদের গ্রেফতার পূর্বক দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবী জানান। উল্লেখ্য ২১ সেপ্টেম্বর শুক্রবার রাত সাড়ে ৮ টায় বিল গাববাড়ী গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা শুকলাল হালদারের ছেলে জল্লা ইউনিয়নের জনপ্রিয় তরুন চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি বিশ্বজিৎ হালদার নান্টুকে কারফা বাজারে তার নিজস্ব ব্যাবসা প্রতিষ্ঠানে ঢুকে মাথায় হেলমেট পরা তিন অজ্ঞাতনামা  দুবৃত্তরা গুলি করে হত্যা করে মটর সাইকেল যোগে পালিয়ে যায়।

নি এম/কল্যান
 

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71