মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮
মঙ্গলবার, ২৭শে অগ্রহায়ণ ১৪২৫
 
 
উজিরপুরে নৌকায় করে পরীক্ষা কেন্দ্রে যাচ্ছে শিক্ষার্থীরা
প্রকাশ: ০৬:৪৫ pm ০৮-০৮-২০১৫ হালনাগাদ: ০৬:৪৫ pm ০৮-০৮-২০১৫
 
 
 


কল্যান কুমার চন্দ ।। ভারি বৃষ্টি ও জোয়ারের অতিরিক্ত পানির চাপে স্থায়ী জলাবদ্ধতায় পরিনত হয়েছে বরিশালের উজিরপুরের হারতা ইউনিয়নের কালবিলা গ্রাম। এ পানি আর কোন মতেই অপসারন না হওয়ার ফলে কালবিলা গ্রামের শতশত পরিবার পানি বন্দি হয়ে পড়েছে। এ কারণে ওই গ্রামের ১৭ নং পশ্চিম কালবিলা কালিবাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কোমলমতি শিক্ষার্থীরা জীবনের ঝুকি নিয়ে ডিঙ্গি নৌকায় করে চলমান ২য় সাময়িক পরিক্ষায় অংশগ্রহণ করছে।

তুলনামূলক ভাবে বিদ্যালয়টি এ এলাকায় হওয়ায় বিদ্যালয়ের মাঠ সহ শ্রেণি কক্ষগুলো পানিতে ডুবে আছে। ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অজিত রায় ও ম্যানেজিং কমিটির সাবেক সভাপতি সমাজকর্মি বাসুদেব পারুয়া জানিয়েছেন বিলাঞ্চল অধ্যুশিত কালবিলা গ্রামে উজিরপুরের সাবেক সংসদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি প্রয়াত হরনাথ বাইনের প্রচেষ্টায় ও স্থানীয় প্রয়াত অশ্বিনি কুমার পারুয়ার উদ্দোগে ১৯৭৩ সালে ৪২ শতাংশ জমির উপর এ প্রাথমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি নির্মাণ করা হয়েছিল ।

সাতলা- হারতা সড়ক থেকে এই বিদ্যালয়ে আশার একমাত্র কাদা মাটির পায়ে চলা পথটি বছরের ৬ মাস পানিতে তলিয়ে থাকে। ফলে শিক্ষার্থী সহ শিক্ষক ও স্থানীয় জনসাধারণের চলাচলের জন্য চরম ঝুঁকি নিয়ে ছোট ছোট ডিঙ্গি নৌকায় করে যাতায়াত করতে হচ্ছে। পশ্চিম কালবিলা কালিবাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণির শিক্ষার্থী সজিব পারুয়া, দীপু রানী বিশ্বাস, ৪র্থ শ্রেণির পরিতোষ মল্লিক, ৩য় শ্রেণির অন্দিকা দেউরি, ২য় শ্রেণির শিক্ষার্থী বিজন বিশ্বাস জানিয়েছে, আমরা ছোট ছোট শিশু অনেক কষ্ট করে নৌকায় চেপে ক্লাসে ও পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছি। যাতায়াতের পথে শিক্ষক ও আমরা অনেক সময় নৌকা থেকে পড়ে গিয়ে ও বৃষ্টিতে ভিজে জামা কাপর ও পাঠ্য বই খাতা নষ্ট হয়ে যায়। ভেজা পোষাকেই আমাদের ক্লাশ করতে হয়। এছাড়া শুকনার সময়ও মাঠ ভরাট না থাকার কারণে আমরা শরীরচর্চা ও মেধা বিকাশের জন্য কোন প্রকার খেলাধুলা করার সুযোগ পাচ্ছি না। ওই বিদ্যালয়ের ছাত্র অভিভাবকদের মধ্যে ভগিরত মল্লিক ও সুমন্ত পারুয়া জানান বর্তমান বর্ষা মৌসুমে কালবিলা গ্রাম সহ কালবিলা কালিবাড়ী প্রাথমিক বিদ্যালয়টি পানিবন্দি হয়ে পরার কারনে ছোটছোট শিশুদের ও সংশ্লিষ্ট শিক্ষকদের যাতায়াতে চরম ভোগান্তির সৃষ্টি হচ্ছে। ৩/৪ বছর আগে সাবেক সভাপতি বাসুদেব পারুয়া মাঠ ভরাটের জন্য উপজেলা পরিষদে এবং একটি সাইক্লোন সেল্টার ভবন নির্মাণের জন্য তৎকালিন উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার খোন্দকার মুজিবুর রহমানের কাছে আবেদন করলেও বর্তমানে তদবিরের অভাবে তার কোন অগ্রগতি নেই।

অন্যদিকে বর্তমান সভাপতি এম, এ, মনিন্দ্র বিশ্বাস বলেন আমি বিদ্যালয়ের মাঠ ভরাট বা জলাবদ্ধতা নিরশনের জন্য কোথায় আবেদন করতে হবে তা প্রধান শিক্ষক অজিত রায়ের সাথে আলোচনা করে জানব,তারপর বিস্তারিত সিদ্ধান্ত নেব, কারণ আজকাল উন্নয়ন মূলক কোন কাজের জন্য আবেদন করলে আগেই পকেটের পয়সা খরচ করতে হয়।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ শহিদুল ইসলাম বলেন ওই বিদ্যালয়ের দুর্যোগপূর্ণ এ সংবাদ আমি আগে পাইনি। তবে ওই এলাকার ছাত্র-অভিভাবকরা মিলে এ রকম করুণ অবস্থার বর্ণনা সহ একটি আবেদন করলে আমি সংসদ সদস্য সহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরে  ওই বিদ্যালয়ের জলাবদ্ধতা নিরশনের জন্য আন্তরিক ভাবে উদ্দোগ নেব।

এইবেলা ডট কম/প্রতিনিধি/এমকে
 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71