বৃহস্পতিবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯
বৃহঃস্পতিবার, ৯ই ফাল্গুন ১৪২৫
 
 
উৎসবের রঙে ডেনমার্কে বাঙালিদের বর্ষবরণ
প্রকাশ: ০৫:১০ pm ০৩-০৫-২০১৬ হালনাগাদ: ০৫:১০ pm ০৩-০৫-২০১৬
 
 
 


কোপেনহেগেন: ‘মঙ্গল আলোকে দূরীভূত হোক সকল অন্ধকার’ এ স্লোগানকে সামনে রেখে সম্প্রতি উৎসবমুখর পরিবেশে,উৎসবের রঙ ছড়িয়ে সর্বজনীন বাঙ্গালির প্রাণের উৎসব বাংলা নববর্ষ ১৪২৩ কে বরণ করে নেন ডেনমার্কে বসবাসরত প্রবাসী বাঙ্গালিরা।

অত্যন্ত সুন্দর আবহাওয়ায় বৈশাখী আনন্দধারা, ডেনমার্ক আয়োজিত  ভবিষ্যৎ প্রজন্মের শিকড়ের  সন্ধানে, বৈশাখী মেলার মনকাড়া ঢাক-ঢোলের বাদ্য, ক্ষণিকের তরে সকলকে নিয়ে যায়  অতীতে। শিশু যুবা মহিলা পুরুষদের রঙ-বেরঙের বাহারি বৈশাখী পোশাক, মুখমণ্ডলে আলপনা আর হরেক রকমের পিঠা, পায়েস, মিষ্টি, সন্দেশ, শিঙ্গারা চটপটিসহ জ্বাল টক মিষ্টি ছিলো উৎসবের অনন্য আকর্ষণ। 

ডেনমার্কের সর্ব বৃহৎ, ঐতিহ্যবাহী বর্ষবরণ এ উৎসবে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ আব্দুল মুহিত, বেগম মুহিত ও বিশেষ অতিথি হিসাবে  ছিলেন দুতালয়ের প্রধান শাকিল শাহরিয়ার। 

বৈশাখী আনন্দধারা, ডেনমার্কের পক্ষ থেকে প্রধান আয়োজক নাসরিন আক্তার মুকুল ও খাদিজা খাতুন মিনি আগত অতিথিদের স্বাগত জানিয়ে অনুষ্ঠান শুরু করেন।

তিন পর্বের এউৎসবের প্রথমে, বাঙ্গালি খাবারের ঐতিহ্য পিঠা, পায়েস, মিষ্টি, সন্দেশ, শিঙ্গারা, চটপটিসহ বিভিন্ন খাবারের নাস্তা শেষে প্রধান অতিথি মোহাম্মদ আব্দুল মুহিত শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন। 

তিনি আয়োজকদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, পহেলা বৈশাখ জাতীয় অনুষ্ঠান হিসেবে দেশ-বিদেশে স্বীকৃতি পেয়েছে। তিনি এর সাথে বিভিন্ন দেশের মূলধারার মানুষদের সম্পৃক্ত করার আহবান জানান। তিনি বর্তমান সরকারের উন্নয়নের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে বলেন, এবছর পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে তেরশ কোটি টাকার বাণিজ্য হয়েছে।  

দ্বিতীয় পর্বে বিভিন্ন পশু পাখির প্ল্যাকার্ড, দেশীয় বাদ্যযন্ত্র ও মোমের আলোর সাথে রঙধনুর মৃদু আলো আর ব্যাকগ্রাউন্ডে মেলার মিউজিকে শিশু কিশোরদের  মঙ্গলশোভাযাত্রা এক ভিন্ন পরিবেশ দর্শকদের বেশ আলোড়িত করে। 

বিরতিহীন দেড় ঘণ্টার মূল অনুষ্ঠান আনন্দধারায় নৃত্য, গান, কৌতুক, কুইজ প্রতিযোগিতা  সকল অতিথি, দর্শক শ্রোতা প্রাণভরে উপভোগ করেন। 

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে নৃত্য পরিবেশন করেন মিনি, লিয়া, মৃত্তিকা, অনন্য, আছিম, সুহা, থমাস, আহনা, টিনা, তুবা ও সাইদ ভাই। সঙ্গীত পরিবেশন করেন ডেনমার্কের অত্যন্ত পরিচিত মুখ ওমর ফারুক, হিল্লোল বড়ুয়া ও অতিথি শিল্পী সাদ প্রমুখ শিল্পী।

 

সার্বিকভাবে অনুষ্ঠান সুন্দর সফল করার জন্য আয়োজকদের মধ্যে ছিলেন সুমি রানী দাস, ডা. সানন্দা ইকবাল, অর্পণা বড়ুয়া, গ্নি বড়ুয়া, সুমি ভাবী, আইরিন বাবু, সুলতানা ভাবী,কোহিনুর মুকুল ভাবী, লাকী আক্তার ও পারভিন ভাবী।  

সহযোগিতায় ছিলেন এম এ লিঙ্কন মোল্লা, ডা. বিদ্যুৎ বড়ুয়া, আ ন ম আব্দুল খালেক, ইকবাল হোসেন মিঠু, সাব্বির আহম্মেদ, সামি দাস, হিল্লোল বড়ুয়া, জামাল আহম্মেদ, মোতালেব ভূঁইয়া, সেতু আহম্মেদ, তাইফুর রহমান ভূঁইয়া, অধ্যাপক শাহাদাত হোসেন, ফাহমিদ আল মাহিদ, মঞ্জুর আহম্মেদ, বোরহান উদ্দিন, জামিল আক্তার কামরুল,সোহাগ ও ইফতেখার সম্রাট প্রমুখ।  

পরিশেষে,পান্তা ইলিশ ও হরেক রকম ভর্তা দিয়ে নৈশভোজের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শেষ।  

এইবেলা ডটকম/আরকেএম 

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71