সোমবার, ১৭ জুন ২০১৯
সোমবার, ৩রা আষাঢ় ১৪২৬
 
 
একান্ন শক্তিপীঠের মাহাত্ন্যা
প্রকাশ: ১০:৩৯ pm ০৩-১০-২০১৭ হালনাগাদ: ১০:৩৯ pm ০৩-১০-২০১৭
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


ব্রক্ষার পুত্র দক্ষ প্রজাপতি আদ্যাশক্তি মহামায়াকে কন্যারুপে পাবার জন্য শুরু করেছিলেন কঠোর তপস্যা। দক্ষ প্রজাপতির তপস্যায় তুষ্ট হয়ে মহামায়া দক্ষ প্রজাপতির ঘরেই কন্যারুপে আসবেন প্রতিশ্রুতি দিলেন। কিন্তু যদি কোনোদিন কোনোরকমভাবে তাঁর অনাদর হয়,তিনি দেহত্যাগ করবেন। কাযত হলোও তাই। দক্ষকন্যা সতীর বিবাহ হলো দেবাদিদেব মহাদেবের সঙ্গে। দক্ষের প্রবল অহংকার আধিপত্যের জন্য মহাদেবের সঙ্গে হলো দক্ষের বিবাদ। সত্য যুগের কোনও এক সময়ে মহাদেবের উপর প্রতিশোধ নেয়ার জন্য দক্ষ রাজা বৃহস্পতি নামে এক যজ্ঞের আয়োজন করেছিলেন। দক্ষের কন্যা সতী দেবী তার(দক্ষর) ইচ্ছার বিরুদ্ধে 'যোগী' মহাদেবকে বিবাহ করায় ক্ষুব্ধ ছিলেন। দক্ষ মহাদেব ও সতী দেবী ছাড়া প্রায় সকল দেব-দেবীকে নিমন্ত্রন করেছিলেন। কিন্তু সতী পিতৃগৃহে এতবড় যজ্ঞের আয়োজন শুনে যাবার জন্য ব্যস্ত হয়ে উঠলেন। মহাদেবের অনিচ্ছা সত্ত্বেও সতী দেবী মহাদেবের অনুসারীদের সাথে নিয়ে যজ্ঞানুষ্ঠানে উপস্থিত হলেন।

কিন্ত্তু সতী দেবী আমন্ত্রিত অতিথি না হওয়ায় তাকে যথাযোগ্য সম্মান দেয়া হয়নি। অধিকন্ত্তু দক্ষ মহাদেবকে অপমান করেন। সতী দেবী তার স্বামীর প্রতি পিতার এ অপমান সহ্য করতে না পেরে তার যোগীর শক্তির উত্থান ঘটিয়ে আত্মাহুতি দেন।

এদিকে মহাদেব সতীর  আত্মাহুতির সংবাদে প্রচন্ড ক্ষুদ্ধ হয়ে নিজের জটাজাল ছিন্ন করে সৃষ্টি করলেন শক্তিশালী বীরভদ্রকে। বীরভদ্র মহাদেবের নিদের্শে লন্ডভন্ড করলেন দক্ষের যজ্ঞানুষ্ঠান। তারপর শোকাহত মহাদেব সতী দেবীর মৃতদেহ কাঁধে নিয়ে বিশ্বব্যাপী প্রলয় নৃত্য শুরু করেন। মহাদেবের রণং দেহি দেখে ও তাকে শান্ত করার উদ্দেশ্য বিষ্ণু দেব তার সুদর্শন চক্র দ্বারা সতী দেবীর মৃতদেহ খন্ড-বিখন্ড করলেন। এতে সতী মাতার দেহখন্ডসমূহ ভারতীয় উপমহাদেশের বিভিন্ন জায়গায় পড়ে এবং পবিত্র পীঠস্থান শক্তিপীঠ হিসেবে পরিচিতি পায়।

নি এম/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71