বৃহস্পতিবার, ১৭ জানুয়ারি ২০১৯
বৃহঃস্পতিবার, ৪ঠা মাঘ ১৪২৫
 
 
এখানে না পড়লেও, বিশ্বভারতী আমারও বিশ্ববিদ্যালয়:‌ প্রধানমন্ত্রী
প্রকাশ: ০৬:৪৭ pm ২৫-০৫-২০১৮ হালনাগাদ: ০৬:৪৭ pm ২৫-০৫-২০১৮
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


রবীন্দ্রনাথের বিশ্বভারতীতে সমাবর্তন অনুষ্ঠানে যোগ দিতে পেরে আবেগাপ্লুত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।  

শুক্রবার পশ্চিমবঙ্গের শান্তিনিকেতনে বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলাদেশ ভবনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন বাংলাদেশের সরকার প্রধান।

শুরুতেই তিনি বলেন, ‘এই বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে আমার সম্পর্ক অনেক পুরনো। এখান থেকে আমাকে সম্মানীয় দেশিকোত্তম দেওয়া হয়েছিল। এখানে না পড়লেও আমি গর্বিত। বিশ্বভারতী আমারও বিশ্ববিদ্যালয়। মানুষ–প্রকৃতির অপরূপ মেলবন্ধন শান্তিনিকেতন। আমাদের আনন্দ, দুঃখ, হাসি, কান্নার মধ্যে মিশে রয়েছেন রবীন্দ্রনাথ। আমার বাবাও রবীন্দ্রনাথের কবিতা আবৃত্তি করতেন। কবিগুরু বাংলাদেশের মাটিতে বসে অনেক কবিতা লিখেছিলেন। তাই তিনি যেমন ভারতের, তেমনি বাংলাদেশেরও। দু’‌দেশের জাতীয় সঙ্গীতই তাঁর লেখা।’ 

এর মধ্যেই তিনি তুলে আনেন ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের প্রসঙ্গেও। হাসিনা বলেন, ‘‌আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধে ভারত আমাদের পাশে দাঁড়িয়েছিল। এক কোটি শরণার্থীকে আশ্রয় দিয়েছিল। যাঁরা আমাদের সেসময় সাহায্য করেছিল তাদেরকে অনেক ধন্যবাদ জানাই। ভারতের অবদান কোনও দিন বাংলাদেশ ভুলবে না।’‌‌ এরপর তিনি দুই দেশের সম্পর্ক নিয়েও বক্তব্য রাখেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের প্রতিবেশি আমাদের বড় বন্ধু। আমি ভারতকে ধন্যবাদ জানাই। আমরা একসঙ্গে চলতে চাই। প্রায় সব সমস্যাই মিটে গেছে। বাকি সমস্যাও আলোচনার মাধ্যমে মিটে যাবে। বিশ্বে বিভিন্ন জায়গায় ছিটমহল নিয়ে যুদ্ধ লেগে রয়েছে। কিন্তু ভারত–বাংলাদেশের মধ্যে কিন্তু ছিটমহল নিয়ে কোনও সমস্যা হয়নি। বন্ধুত্বপূর্ণ পরিবেশে দুই দেশ ছিটমহল বিনিময় করেছে। গোটা বিশ্বের কাছে যা একটা উদাহরণ। রবীন্দ্রনাথ–নজরুল দুই বাংলার। দুই প্রতিবেশী দেশকে একসঙ্গে মিলে চলতে হবে। দুই বাংলার সম্পর্ক আগামীদিনে আরও দৃঢ় হবে। ‌নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়, নজরুলের নামে বিমানবন্দরের জন্য মুখ্যমন্ত্রীকে অনেক ধন্যবাদ। আমি চাই দু’‌দেশের মধ্যে শিল্প, সাহিত্যের আদান–প্রদান হোক।’ 

রোহিঙ্গা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনারবলেন, ‘‌‌মানবিক কারণে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়েছি। আশা করি খুব দ্রুতই এই সমস্যা মিটে যাবে।’‌

নি এম/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71