মঙ্গলবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৮
মঙ্গলবার, ১লা কার্তিক ১৪২৫
 
 
কক্সবাজারে মাদকবিরোধী অভিযান, ইয়াবাসহ আটক ১ 
প্রকাশ: ০৮:১৭ pm ০১-০৬-২০১৮ হালনাগাদ: ০৮:১৭ pm ০১-০৬-২০১৮
 
কক্সবাজার প্রতিনিধি
 
 
 
 


কক্সবাজারের মাদক অধ্যূষিত শহর টেকনাফে ইয়াবা ব্যবসার টাকায় গড়ে উঠা রাজপ্রাসাদের মতো বাড়িগুলোতে নিস্ফল অভিযান চালিয়েছে স্থানীয় পুলিশ। তবে অভিযানে কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।

বৃহস্পতিবার রাত থেকে শুক্রবার ভোর পর্যন্ত টেকনাফ পৌরসভার তিনটি গ্রামে অর্ধশতাধিক বাড়িতে হানা দেয় পুলিশ। তবে অভিযানে কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।

টেকনাফ পুলিশ জানায়, কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলায় বেশ কয়েকটি গ্রামে রাজপ্রাসাদের মতো বাড়ি বানিয়েছেন ইয়াবা ব্যবসায়ীরা। ইয়াবা দেশ ও দেশের যুব সমাজকে ধ্বংসের পথে ধাবিত করছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে মে মাসে শুরু হয় মাদকবিরোধী অভিযান। এরই সূত্র ধরে বৃহস্পতিবার রাত থেকে শুক্রবার ভোর পর্যন্ত টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রনজিত কুমার বড়ুয়া ও পরিদর্শক রাজু আহমদের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল টেকনাফ পৌরসভার চৌধুরী পাড়া, জালিয়া পাড়া, দক্ষিণ জালিয়া পাড়া গ্রামে অভিযান চালায়। এর মধ্যে টেকনাফ পৌরসভার জালিয়া পাড়ার ইয়াবা ব্যবসায়ী ও ১১ মামলার পলাতক আসামি মো. জোবাইর এবং তালিকাভুক্ত শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী মোজাম্মেল হক, মো. সালমান, মো. হাসান আলী, রেজাউর করিম রেজা, মো. আবদুল্লাহ ও তার ভাই মো. জব্বারের বাড়ি ছিল। 

অভিযান পরিচালনাকারি পরিদর্শক রাজু আহমদ বলেন, ইয়াবার টাকায় টেকনাফে অনেকে রাজপ্রসাদের মতো বাড়ি বানিয়েছেন। তার মধ্যে ইয়াবা ব্যবসায়ী জোবাইরের বাড়িতে তল্লাশি চালানো হয়। তার বাড়ি দেখলে মনে হয়, এটা যেন কোন রাজার বাড়ি। এতো সুন্দর বাড়ি ঢাকা শহরে চোখে পড়েনি।

টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রনজিত কুমার বড়ুয়া বলেন, ইয়াবা ব্যবসায়ীদের ধরতে তাদের বাড়িতে অভিযান চালানো হয়েছে। কোন মাদক ব্যবসায়ীকে ছাড় দেওয়া হবে না। ইয়াবা বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত এ অভিযান চলবে। তবে অভিযানের সময় বাড়িতে কেউ ছিলেন না।

এদিকে ৩১ মে বিকাল ৫টার দিকে টেকনাফে ইয়াবার চালান খালাসকালে র‌্যাবের সাথে গুলিবিনিময়ের ঘটনা ঘটেছে। এসময় একজন গুলিবিদ্ধ হলেও ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতা ও ইয়াবা কারবারীকে অস্ত্র এবং ইয়াবাসহ হাতে-নাতে আটক করা হয়েছে। জানা যায়, ৩১ মে বিকাল ৫ টার দিকে র‌্যাব-৭, কক্সবাজার ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার মেজর রুহুল আমিন মিয়ানমার হতে ইয়াবার চালান খালাসের সংবাদ পেয়ে একটি আভিযানিক দল নিয়ে টেকনাফের হ্নীলা দমদমিয়াস্থ বেড়িবাঁধ সংলগ্ন এলাকায় অভিযানে গেলে ইয়াবা চোরাকারবারীরা র‌্যাবকে দেখামাত্র গুলি ছুঁড়ে। র‌্যাবও আত্মরক্ষার্থে গুলি করলে উত্তর আলীখালীর ফরিদ আলমের পুত্র মোস্তাক আহমদ (৩০) গুলিবিদ্ধ হয়। এসময় ঘটনাস্থল থেকে ২টি অস্ত্র ও ৬ হাজার ইয়াবা বড়িসহ পশ্চিম লেদার ক্রসফায়ারে নিহত নুর মোহাম্মদের পুত্র ও হ্নীলা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল আমিন ফাহিমকে আটক করে।

এদিকে গুলিবিদ্ধ মোস্তাক আহমদকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে আরো উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে। 


সিডিজি/বিডি

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71