মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮
মঙ্গলবার, ৬ই অগ্রহায়ণ ১৪২৫
 
 
কক্সবাজারে মালয়েশিয়াগামী ৪৫ যাত্রী আটক
প্রকাশ: ১১:৩৪ am ২৩-০৩-২০১৫ হালনাগাদ: ১১:৩৪ am ২৩-০৩-২০১৫
 
 
 


কক্সবাজার: কক্সবাজারে সাগরপথে অবৈধভাবে মালয়েশিয়াগামী ৪৫ যাত্রীকে আটক করেছে পুলিশ ও কোস্টগার্ড। এসময় আটক করা হয়েছে মানবপাচারকারী চক্রের ৭ দালালকে। জব্দ করা হয়েছে একটি ট্রলার।
এর মধ্যে সোমবার সকাল ১০টার দিকে টেকনাফের সেন্টমার্টিন দ্বীপের ছেঁড়াদিয়ার কাছাকাছি বঙ্গোপসাগর থেকে একটি ট্রলারসহ কোস্টগার্ড সদস্যরা ৪০ জনকে আটক করে। এর মধ্যে ৩৯ জন মালয়েশিয়াগামী হলেও ছৈয়দ আলম (৩৫) নামে এক দালাল রয়েছেন। 

আটক দালাল ছৈয়দ আলম কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার সোনারপাড়ার এলাকার মৃত কামাল উদ্দিনের ছেলে।

কোস্টগার্ডের সেন্টমার্টিন স্টেশন ইনচার্জ ক্যাটি মং মরমা বাংলানিউজকে জানান, ছেঁড়াদিয়ার নিকটবর্তী বঙ্গোপসাগর থেকে একটি ট্রলারে মালয়েশিয়ায় পাচারকালে এক দালালসহ ৪০ জনকে আটক করা হয়। তাদের টেকনাফ থানায় সোপর্দ করা হবে।

দুপুর ২টার দিকে মহেশখালী উপজেলার সোনাদিয়া দ্বীপ থেকে ৬ মালয়েশিয়াগামীকে আটক করে ডিবি পুলিশ।এসময় আটক করা হয় ৬ দালালকে। 

আটক দালালরা হলেন- রামু উপজেলার নুনিয়াছড়ার নুর মোহাম্মদের ছেলে রশিদ উল্লাহ (৪৫), উখিয়ার জালিয়াপালং ইউনিয়নের চেপটখালীর মো. জালালের ছেলে মো. আব্দুল কাইয়ুম (৩০), আবুল হাশেমের ছেলে আবু তাহের (১৯), আবুল কাশেমের ছেলে নুরুল আমিন (৩৩),  মিয়ানমারের বুডিচং জেলার মুংডু উপজেলার বলিবাজার গ্রামের মো. ছালামের ছেলে আব্দুল্লাহ (২০) ও নুরুল বশরের ছেলে মো. নুর হোছেন (২৪)।

আটক যাত্রীরা হলেন- নরসিংদী জেলার শিবপুর উপজেলার শানখোলা গ্রামের বাসিন্দ আব্দুল হাই’র ছেলে জুয়েল মিয়া (২১), মৃত আলফাজ উদ্দিনের ছেলে মো. মোকাররম (২৫), আসাদ মিয়ার ছেলে আলমগীর মিয়া (২০) ও বাচ্চু মিয়ার ছেলে মো. মানিক মিয়া (২৩)। 

কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার মাদারবুনিয়াগ্রামের ফরিদ আলমের ছেলে জয়নাল আবেদীন (৩০) ও রামু উপজেলার দক্ষিন মিঠাছড়ির আসমার ঘোনা গ্রামের আবু তাহেরের ছেলে জয়নাল আবেদীন (২৯)।

কক্সবাজার জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ( ডিবি-ওসি ) বাংলানিউজকে জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সারারাত রেজুব্রিজ সংলগ্ন রেডিয়েন্ট হ্যাচারির সামনে ছদ্দবেশে অবস্থান করে পুলিশ। দুপুর ১টার দিকে মায়ানমারের ২ নাগরিককে সেখান থেকে আটক করা হয়। পরে জানা যায়, তারা মালয়েশিয়ায় যাওয়ার জন্য এসেছেন।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তোফায়েল আহমেদ বাংলানিউজকে জানান, আটকদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা দায়ের করে আদালতে পাঠানো হবে।

কক্সবাজারের পুলিশ সুপার(এসপি) শ্যামল কুমার নাথ বাংলানিউজকে জানান, মানবপাচারের সঙ্গে যারা জড়িত পুলিশ তাদের তালিকা তৈরি অভিযান চালাচ্ছে। এজন্য প্রয়োজন জনগণের সম্পৃক্ততা। পুলিশ জনতা একত্রে অবস্থান নিলেই মানবপাচার রোধ সম্ভব হবে। 
 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71