বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০১৯
বৃহঃস্পতিবার, ৬ই আষাঢ় ১৪২৬
 
 
কবরস্থানে ঢুকে মৃতদেহর সঙ্গে যৌন সম্পর্ক: ৬ বছরের জেল যুবকের
প্রকাশ: ১১:২৬ am ০৩-০২-২০১৯ হালনাগাদ: ১১:২৬ am ০৩-০২-২০১৯
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


নেশার ঘোরে কবরস্থানে ঢুকে কফিনের ঢাকনা খুলে মৃতদেহর সঙ্গে যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হওয়ার অভিযোগ উঠল এক যুবকের বিরুদ্ধে। এই অভিযোগে যুবককে ৬ বছরের জেলের সাজা শোনালেন বিচারক।

ঘটনাটি ঘটেছে ব্রিটেনে। 

পুলিশ সূত্রে খবর, বছর তেইশের কাশিম খুররম বৃহস্পতিবার রাতে ওই কবরস্থানে ঢোকেন। সেই সময় তিনি প্রচুর পরিমাণে মদ খেয়েছিলেন বলে জানা গিয়েছে। মদ ছাড়াও নাকি ড্রাগসের নেশাও করেছিলেন কাশিম। কবরস্থানের সিকিউরিটি গার্ড জানিয়েছেন, প্রথমে দরজা দিয়ে ঢুকতে গেলে তাঁকে নিষেধ করেন তিনি। তারপরেও পাঁচিল টপকে সেখানে ঢোকেন কাশিম।

কবরস্থানে ঢুকে প্রথমেই কফিনের ঢাকনা খোলার চেষ্টা করেন ওই যুবক। বেশ কিছু ঢাকনা তিনি ভেঙে ফেলেন বলেও জানা গিয়েছে। তারপর তিনটি কফিনের মধ্যে ঢুকে মৃতদেহর সঙ্গে যৌন সঙ্গম করেন কাশিম। ঢাকনা ভাঙার শব্দ পেয়ে সিকিউরিটি গার্ড সেখানে এসে ওই অবস্থায় দেখতে পান কাশিমকে। তিনিই পুলিশে খবর দেন। পুলিশ এসে গ্রেফতার করে কাশিমকে।

পরদিন শুনানি চলাকালীন আদালতের বিচারক বলেন এই অপরাধ করে কাশিম সমগ্র মানব জাতিকে কলঙ্কিত করেছেন। বিচারক মেলবোর্ন ইনম্যান বলেন কাশিম এই অপরাধ কেন করেছেন তা তিনি ছাড়া আর কেউ জানেন না। যদিও কাশিমের আইনজীবী জসেফ কেটিং দাবি করেন, কৃতকর্মের জন্য আগেই ক্ষমা চেয়েছেন কাশিম। আর এর আগে কখনও এমন কোনও কাজ তিনি করেনি বলে দাবি করেন আইনজীবী। তবে জোসেফের বক্তব্য মানতে রাজি হননি বিচারক। কাশিমকে ৬ বছরের জেলের সাজা শোনান বিচারপতি।

মনোবিদদের বক্তব্য, এও ধরণের মানসিকতা একটা রোগ। একে ‘নেক্রোফিলিয়া’ বলে। প্রতিটি অপরাধের নেপথ্যেই নির্দিষ্ট কারণ থাকে। তাছাড়া একটি পূর্ব নির্ধারিত মানসিকতার বশবর্তী হয়েই এই ধরণের অপরাধ হয়। এক্ষেত্রেও সেটাই হয়েছিল।  এর আগে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে। তবে সমস্ত বিধি নিষেধ উপেক্ষা করে দরজা ভেঙে শ্মশানে ঢুকে পরপর এতগুলি মৃতদের সঙ্গে যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হওয়ার ঘটনা সচরাচর শোনা যায় না।সূএ: দি ওয়াল

নি এম/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71