সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮
সোমবার, ৫ই অগ্রহায়ণ ১৪২৫
 
 
কালীগঞ্জে সংখ্যালঘু পরিবারের জমি দখলের চেষ্টা ভূমিগ্রাসীদের
প্রকাশ: ০২:২১ pm ১৩-০৪-২০১৮ হালনাগাদ: ০২:২১ pm ১৩-০৪-২০১৮
 
ঝিনাইদহ প্রতিনিধি
 
 
 
 


ঝিনাইদহ  জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার নাগরী ইউনিয়নের উলুখোলা এলাকায় সংখ্যালঘু এক পরিবারের বসতবাড়িসহ ৪১ শতাংশ জমির উপর লোলুপ দৃষ্টি পড়েছে ভূমিগ্রাসী একটি গ্রুপ অফ কোম্পানির। ওই কোম্পানীর পক্ষ থেকে সংখ্যালঘু পরিবারটিকে করা হচ্ছে একের পর এক অত্যাচার ও উচ্ছেদের পায়তারা এতে বিপাকে পড়েছে পরিবারটি।

এ ঘটনায় ভূক্তভোগী রুবি তেরেজা রোজারিও কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, থানায় ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। অভিযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সংশ্লিষ্ট দপ্তর প্রধানগণ।

ভূক্তভোগী রুবি তেরেজা রোজারিও জানান, উপজেলার নাগরী ইউনিয়নের উলুখোলা গ্রামে স্বামী মিঠু তেরেজা, এক ছেলে ও তিন কন্যা সন্তান নিয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ বসবাস করছেন। পৈত্রিক সূত্রে তার স্বামী উলুখোলা মৌজার ১৪৪ আর.এস ও ১৫২ সি.এস দাগে ৪১ শতাংশ জমির মালিক হন। স্বামীর অন্য ভাই-বোনেরা তাদের মালিকানা বিক্রি করে অন্যত্র চলে গেলেও নিজের জন্ম এই মাটিতে, আর এ জমিতেই কেটেছে শৈশব, কৈশোর ও যৌবন। তাছাড়া শ্বশুর-শ্বাশুরী এখানেই মৃত্যু বরণ করেছেন। তাই এই জমির প্রতি আলাদা ভালবাসায় জমিটি আঁকড়ে আছেন। কিন্তু মোয়াজ উদ্দিন নামের একটি গ্রুপ অফ কোম্পানি জোর পূর্বক ওই জমি দখলের চেষ্ঠা করছে। আর ওই কোম্পানীর সত্ত্বাধিকারী মো. লুৎফুর রহমান তাদেরকে উচ্ছেদের পায়তারা করছেন। নানা ভাবে করছে ক্ষতিগ্রস্থ ও শত্রুতা, যেন স্বেচ্ছায় জমি থেকে উঠে যায়। তার সাথে স্থানীয় সাইফুল ইসলাম, সুরুজ মোড়ল ও কোম্পানীর ব্যবস্থাপক বাবুল করিম সহযোগীতা করছে।

তিনি আরো জানান, চলতি মাসের ৯ তারিখে তার বাড়ির আশেপাশে কোম্পানীর লোক বালুভরাট শুরু করে। তাদের ভরাটকৃত বালু ও পানি রুবিরে বাড়ি তলিয়ে যায়। ঘরে হাটু পরিমান পানি জমে যায়। বাড়ীর টয়লেট বালু ভরাট হয়ে যায়। এর প্রতিবাদ করলে জমি বিক্রি করে চলে যেতে বলে। জমি বিক্রি না করলে এভাবে নানাভাবে তাদের ক্ষতি ও অত্যাচার করে উচ্ছেদ করবে বলে হুমকি দেয় কোম্পানীর লোকজন ও স্থানীয় দালালরা।

নাগরী ইউপি চেয়ারম্যান মো. কাদির মিয়া বলেন, ওই কোম্পানীর দ্বারা রুবি বেশ ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। যা সত্যি খুব দুঃখজনক। কোম্পানী তার বাড়ীর রাস্তা ও বাড়ী দখলের পায়তারা করছে জানিয়ে ইউনিয়ন পরিষদে একটি অভিযোগ দিয়েছে। দুই পক্ষকেই নোটিশ করা হয়েছে।

কালীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আবু বকর মিয়া বলেন, বিষয়টি তদন্ত করার জন্য উলুখোলা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এস.আই গোলাম মাওলাকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন হাতে পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নি এম/
 

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71