শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮
শনিবার, ৭ই আশ্বিন ১৪২৫
 
 
কোটার বিষয়টি সমাধানে কাজ চলছে : প্রধানমন্ত্রী
প্রকাশ: ০৬:০৬ pm ২৮-০৬-২০১৮ হালনাগাদ: ০৬:০৬ pm ২৮-০৬-২০১৮
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


সরকারি চাকরিতে কোটা বাতিলের সিদ্ধান্ত পাল্টাবে না জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দীর্ঘ দিন ধরে চলে আসা একটি পদ্ধতি চট করে বাতিল করা যায় না। কিভাবে এটা করা যায়, তা নির্ধারণে কাজ চলছে। গতকাল জাতীয় সংসদে আগামী অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের ওপর বক্তব্য রাখার সময় এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

এর আগে বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদও কোটার বিষয়টি নিয়ে কথা বলেন। এ নিয়ে দ্রুত সমাধান দেয়ার তাগাদা দেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী কোটা বাতিলের সিদ্ধান্তকে যুক্তিযুক্ত মনে করছেন না জানিয়ে বলেন, তারপরও যেহেতু যাদের জন্য কোটা তারাই যখন চাইছে না, তাই তিনি তা বাতিল করেছেন। ইতোমধ্যে আমরা কেবিনেট সেক্রেটারিকে দিয়ে একটা কমিটি করে দিয়েছি। যেন এটা বাস্তবায়ন করা যায়।

বিদেশে উচ্চ শিার বিপুল পরিমাণ খরচের কথা শিার্থীদের স্মরণ করিয়ে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে বিশ্বে সবচেয়ে কম খরচে পড়া যায়।

জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী অর্থাভাবে অক্সফোর্ডে সুযোগ পেয়েও পড়তে পারেননি বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী। তিনি জানান, তার নিজের সন্তানরাও বিশ্বের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ভর্তির সুযোগ পেয়েও পড়াশোনা বিঘ্নিত হয়েছে। কারণ তিনি টাকা দিতে পারেননি। আমাদের দেশে যারা পাবলিক ইউনিভার্সিটিতে থাকে, তাদের সিট ভাড়া কত, তাদের খাবারের টাকা কত, তাদের পড়াশোনার ফিস কত। বলতে গেলে একেবারে বিনা পয়সায় পড়াই। তারা যদি রাস্তায় নামে, ভিসির বাড়ি ভাঙচুর করে, লুটপাট করে, এর চেয়ে লজ্জার কিছু নেই। সেই জন্য কোটা পদ্ধতি বাদ দিয়ে দিয়েছি।

দেশের অগ্রযাত্রা যেন থেমে না যায় সে আহ্বান জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উপনীত হয়েছে। আমরা এখন ভারত, চীন, সিঙ্গাপুর, ইন্দোনেশিয়া, ফিলিপাইন, দণি কোরিয়ার মতো উন্নয়নশীল দেশের কাতারে চলে এসেছি। তাই দেশবাসীর প্রতি আহ্বান আমাদের অগ্রযাত্রা যেন থেমে না যায়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের প্রবৃদ্ধি ৭ শতাংশের উপরে। প্রবৃদ্ধি বৃদ্ধি পেয়েছে বলেই ৪ লাখ ৬৪ হাজার ৫৭৩ কোটি টাকার বাজেট দিতে সম হয়েছি। আমাদের উন্নয়ন বাজেট এক লাখ ৭৩ হাজার কোটি টাকা। আমরা এখন উন্নয়ন কাজের ৯০ ভাগ নিজস্ব অর্থায়নে বাস্তবায়ন করতে সম হচ্ছি। এর ফলে দেশ উন্নতির দিকে যাচ্ছে। আগে অর্থাৎ বিএনপির শাসনামল এবং জেনারেল এরশাদের আমলে বাজেট বাস্তবায়ন করতে বিদেশীদের কাছে হাত পাততে হতো। আর এখন বার্ষিক উন্নয়ন ব্যয়ের ৯০ শতাংশ নিজস্ব অর্থায়নে বাস্তবায়ন হচ্ছে। তিনি বলেন, চলতি অর্থবছরে আমাদের প্রবৃদ্ধি ছিল ৭ দশমিক ৬৫ শতাংশ। এ বছর চূড়ান্ত প্রবৃদ্ধি দাঁড়াবে ৭ দশমিক ৭৮ শতাংশ। আমরা বিগত ৩ অর্থবছর ৭ শতাংশের ওপরে প্রবৃদ্ধি ধরে রাখতে সম হয়েছি। এটা কিন্তু কম কথা নয়।

বাজেট বাস্তবায়নের পেছনে সব শ্রেণী-পেশার মানুষের অবদান রয়েছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের মেহনতি মানুষ, কৃষক শ্রমিক, প্রবাসীরা অবদান রাখছে বলেই বাজেট বাস্তবায়ন করতে পেরেছি। আমরা একটা পরিবার হিসেবে কাজ করছি। বিরোধী দল আমাদের সব সময় সহযোগিতা করেছে। এ জন্য তাদের ধন্যবাদ।

চলমান মাদকবিরোধী অভিযান সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে যাচ্ছি। আমাদের অভিযান অব্যাহত রাখব। মাদক এমন পর্যায়ে চলে গেছে যে এটা রোধ করতে হবে। যে যাই বলুক আমরা যে পদপে নিয়েছি তা অব্যাহত থাকবে। কে কী বলল তাতে আমাদের কিছু আসে যায় না।


বিডি

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71