বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮
বুধবার, ৩০শে কার্তিক ১৪২৫
 
 
কোনোদিনই বাড়ি ফিরবে না নিপু
প্রকাশ: ০৪:৪৬ pm ২৬-০৩-২০১৮ হালনাগাদ: ০৪:৪৬ pm ২৬-০৩-২০১৮
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


তৌহিদুল ইসলাম নিপু খুলনা প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুয়েট) পড়তো। ইন্টার্নশিপ করার জন্য ময়মনসিংহের ভালুকায় স্কয়ার টেক্সটাইলে গিয়েছিল। এরপর মৌখিক পরীক্ষা হলেই ছেলে ইঞ্জিনিয়ারিং পাশ করে সংসারের হাল ধরতো। শনিবার সন্ধ্যায় মোবাইল ফোনে বলেছিল, মা ২-১ দিনের মধ্যে বাড়িতে আসব। কিন্তু সে তার কথা রাখতে পারলোনা।

ময়মনসিংহের ভালুকার মাস্টারবাড়ি এলাকায় একটি ভাড়া বাড়িতে বিস্ফোরণে নিহত বগুড়ার শাজাহানপুর উপজেলার মাঝিরা ইউনিয়নের সাজাপুর সোনারপাড়া গ্রামের বাড়িতে রোববার বিকালে শোকে বাকরুদ্ধ মা রোকেয়া খাতুন এ কথা বলছিলেন। এ সময় পক্ষঘাত রোগে আক্রান্ত বাবা নুরুল ইসলাম নির্বাক দৃষ্টিতে বাড়ির দরজার দিকে তাকিয়ে ছিলেন।

নিপুর ফুফাতো ভাই সাজাপুর গ্রামের দেলোয়ার হোসেন জানান, নিপুর বাবা নুরুল ইসলাম আগে ব্র্যাকের ব্যবস্থাপক পদে চাকরি করতেন। প্যারালাইসড রোগে আক্রান্ত হওয়ার পর চাকরি থেকে অবসর নেন। মা রোকেয়া খাতুন গৃহিনী। তাদের দুই সন্তানের মধ্যে বড় মেয়ে নুসরাত জাহান বগুড়া সরকারি আজিজুল হক কলেজে মাস্টার্সের (দর্শন) ছাত্রী। ছোট ছেলে নিপু স্থানীয় পদ্মপুকুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে প্রাথমিক শিক্ষা শেষ করে ২০১২ সালে বাবার কর্মস্থল নিলফামারীর ডোমার উপজেলার গোমনাতী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাশ করেন। ২০১৪ সালে বগুড়া পুলিশ লাইন্স স্কুল ও কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করেন। এরপর খুলনা প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন।

নিপুর সহপাঠী আবদুল হাকিম জানান, তারা চতুর্থ বর্ষের পরীক্ষা দিয়ে বিভিন্ন টেক্সটাইল মিলে ইন্টার্ন করছিলেন। নিপু অন্য কয়েকজনের সঙ্গে ময়মনসিংহের ভালুকার মাস্টারবাড়ি এলাকায় একটি ভাড়া বাসায় থেকে স্কয়ার টেক্সটাইলে ইন্টার্ন করছিলেন। কয়েকদিন পর ইন্টার্ন শেষ হলে মৌখিক পরীক্ষা হতো। এরপর তাদের রেজাল্ট হতো। কিন্তু রান্না করতে গিয়ে সিলিন্ডার বিস্ফোরণে সব শেষ হয়ে গেল। নিপু মারা গেলেও তার তিন সহপাঠী হাফিজ, দীপ্ত ও নাজমুল মারাত্মক আহত হয়েছেন।

রবিবার বিকালে মা রোকেয়া বেগম রোববার সকালে নিপুর এক বন্ধুর ফোনের মাধ্যমে এ দু:সংবাদ পেয়েছেন। বাবা প্যারালাইসড রোগি নুরুল ইসলাম শুধু স্ত্রীর কথা শুনছিলেন। আর বার বার বাড়ির দরজার দিকে তাকাচ্ছিলেন। হয়তো তিনি তার ছেলে নিপুর অপেক্ষায় আছেন। খবর পেয়ে প্রতিবেশী ও স্বজনরা বাড়িতে ভিড় করছেন। সবাই তাদের প্রিয় সন্তান মেধাবী নিপুর লাশের অপেক্ষায় আছেন।

শাজাহানপুর থানার ওসি জিয়া লতিফুল ইসলাম জানান, ময়মনসিংহের ভালুকায় কুয়েটের ছাত্র নিপুর মৃত্যুর খবর পেয়েছেন। তাদের সাজাপুরের বাড়িতে খোঁজখবর নিতে ফোর্স পাঠানো হয়েছে।


আরপি

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71