মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮
মঙ্গলবার, ১০ই আশ্বিন ১৪২৫
 
 
গলাচিপায় এক পরিবারের মানবেতর জীবন যাপন!
প্রকাশ: ০৯:২৬ pm ০১-০৭-২০১৮ হালনাগাদ: ০৯:২৬ pm ০১-০৭-২০১৮
 
পটুয়াখালী প্রতিনিধি:
 
 
 
 


পটুয়াখালীর গলাচিপায় একটি পরিবার মানবেতর জীবন যাপন করছেন। গলাচিপা পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা মোসাঃ লিপি বেগম। 

তিনি ইংরেজী ২০০৫ সনে ১ নম্বর ওয়ার্ডের জে,এল ৪৯ গলাচিপা মৌজার এস,এ- ৯৭/৯৯/১০১ নং খতিয়ানের ৫৮, ৫৯ নং দাগ হতে রেকর্ডীয় মালিক মো. নুরুল ইসলাম তালুকদারের কয়েকজন ওয়ারিশের কাছ থেকে ৫ শতাংশ ৩ তিল জমি ক্রয় করেন। ওই জমির রেকর্ডীয় মালিক নুরুল ইসলাম তালুকদার হচ্ছেন লিপি বেগমের আপন নানা। তাই লিপি বেগম তার মা জহুরা বেগমের ওয়ারিশ সূত্রে পান ০.০৬১ শতাংশ জমি। 

সাবেক পৌর মেয়র মরহুম হাজী আব্দুল ওহাব খলিফা লিপি বেগমের ক্রয়কৃত জমি ও তার মায়ের ওয়ারিশ সূত্রে প্রাপ্ত জমি মাপ জোপ করে লিপি বেগমের পশ্চিম পার্শ্বে নেছার মেম্বরের প্লটসহ ২ প্লট থেকে দেড়ফুট করে মোট ৩ ফুট আসা-যাওয়ার পথ রেখে উক্ত জমি বন্টণ করে দেন। অনেক পূর্ব থেকে আলাউদ্দিন তালুকদারের বাসা সামনের অংশে থাকায় মেয়র সাহেব লিপি বেগমকে পিছনের অংশ বুঝাইয়া দেন। 

লিপি বেগম ইংরেজী ২০০৬ সনে উক্ত জায়গায় ঘর তুলে বসবাস করে আসছেন যার হোল্ডিং নং ৩৯৬/১ এবং তিনি নিয়মিত পৌরকর দিয়ে আসছেন। অথচ লিপি বেগম অদ্যবধি বিদ্যুৎ, পানি ও জেনারেটরের লাইন অনুমোদন করা সত্ত্বেও তার মামা আলাউদ্দিন তালুকদারের বাধার কারণে এখন পর্যন্তও পাননি। এর পরে লিপি বেগম বর্তমান পৌর মেয়র আহসানুল হক তুহিন এর কাছে একটি লিখিত আবেদন জানান। পৌর মেয়র পর পর ৩ বার নোটিশ করা সত্ত্বেও আলাউদ্দিন তালুকদার মেয়রের কাছে হাজির হননি। 

পৌর মেয়রের কাছে এ ব্যাপারে প্রতিবেদন চাইতে গেলে তা তিনি দিতে অস্বীকার করেন এবং তিনি বলেন, আপনি আইনের আশ্রয় নিন। এমনকি লিপি বেগমের মামা আলাউদ্দিন তালুকদার রাস্তার পথ ওয়াল করে বন্ধ করে দেন। এখন স্বামী ও দুই কন্যা সন্তান নিয়ে লিপি বেগমের পরিবারটি কীভাবে জীবন যাপন করবেন এটাই এখন প্রশ্ন হয়ে দাঁড়িয়েছে আপামর জনসাধারণের কাছে? 

এ ব্যাপারে লিপি বেগমের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, সাবেক মেয়র মরহুম হাজী আব্দুল ওহাব খলিফা পথের জন্য ৩ ফুট জায়গা রেখে আমাকে পিছরের অংশ বুঝাইয়া দেন। এখন আমি বিদ্যুৎ, পানি ও জেনারেটরের লাইন অনুমোদন করা সত্ত্বেও লাইনম্যান লাইন দিতে গেলে আলাউদ্দিন তালুকদারের বাধার কারণে এখন পর্যন্তও আমি লাইন পাইনি। এমনকি আমার মামা আলাউদ্দিন তালুকদার আমার ঘর থেকে মেইন রাস্তায় উঠার পথও ওয়াল করে বন্ধ করে দেন। 

এ ব্যাপারে লিপি বেগমের পূর্ব পার্শ্বের প্রতিবেশী আ. বারেক জোমাদ্দার বলেন, আসলেই লিপি বেগম মানবেতর জীবন যাপন করছেন। তার মামা আলাউদ্দিন তালুকদার কোন আইন-কানুনই মানেন না। গায়ের জোরে তিনি বিদুৎ, পানি, জেনারেটরের লাইন ও লিপি বেগমের আসা-যাওয়ার পথ ওয়াল করে বন্ধ করে দেন। 

লিপি বেগমের পশ্চিম পার্শ্বের প্রতিবেশী মো. নেছার মেম্বর বলেন, লিপি বেগমের জমি বুঝাইয়া দেওয়ার সময় আমি উপস্থিত ছিলাম। আমার প্লটে দেড়ফুট ও লিপি বেগমের প্লটে দেড়ফুট মোট ৩ ফুট সমজতার মাধ্যমে আসা-যাওয়ার পথ রেখে উক্ত জমি বন্টন করা হয়। কিন্তু আলাউদ্দিন তালুকদারের বাধার কারণে বিদুৎ, পানি ও জেনারেটরের লাইন লিপি বেগম এখন পর্যন্তও পাননি। এমনকি লিপি বেগমের আসা-যাওয়ার পথও আলাউদ্দিন তালুকদার ওয়াল করে বন্ধ করে দেন। লিপি বেগম আসলেই অসহায় ও মানবেতর জীবন যাপন করছেন। 

এ ব্যাপারে পৌর কাউন্সিলর মো. সোহাগ মিয়া  এ প্রতিবেদককে জানান, বিষয়টি আমি শুনেছি ও বর্তমান পৌর মেয়র বরাবরে লিপি বেগম একটি লিখিত আবেদন করেছেন। পৌর মেয়র এ ব্যাপারে আলাউদ্দিন তালুকদারকে ৩ বার নোটিশ করলেও তাতে তিনি কোন কর্ণপাত করেননি। 

এ ব্যাপারে পৌর মেয়র আহসানুল হক তুহিন বলেন, এ বিষয়ে আদালতে মামলা চলমান। আদালত যদি আমাকে অনুমতি দেয় তাহলে আমি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিব।   

এসডি/বিডি

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71