বুধবার, ০৮ এপ্রিল ২০২০
বুধবার, ২৫শে চৈত্র ১৪২৬
সর্বশেষ
 
 
ঘণ্টা বাজিয়ে চিকিৎসাকর্মীদের শ্রদ্ধা জানাল ভারত
প্রকাশ: ০৮:৩২ pm ২২-০৩-২০২০ হালনাগাদ: ১১:৩৬ am ২৩-০৩-২০২০
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


https://www.facebook.com/917244741693768/posts/2766172286800995/

রবিবার কাঁটায় কাঁটায় পাঁচটা। একসঙ্গে চারদিক থেকে একসঙ্গে বেজে উঠল কাঁসর-ঘণ্টা, থালা-চামচের শব্দ। সঙ্গে শঙ্খধ্বনি উলুধ্বনির আওয়াজ। এই জনতা কারফিউয়ের ডাক দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নিজে। 

https://m.facebook.com/story.php?story_fbid=10207157863420335&id=1694930000

রবিবার সারা দেশ দল, মত, জাত, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে যেভাবে তাঁর ডাকে ১৪ ঘণ্টার জন্য কারফিউয়ে শামিল হতে স্বতঃস্ফূর্তভাবে সাড়া দিল তা অভূতপূর্ব। কোনো বিপর্যয়ের মোকাবিলায় ভারতবাসীকে এভাবে এক জোট হতে আগে দেখা যায়নি।

প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, রবিবার বিকেল ঠিক পাঁচটায় গোটা দেশের মানুষ যেন যে যাঁর বাড়ির ছাদ, বারান্দা অথবা চৌহদ্দিতে এসে কাঁসর, ঘণ্টা, থালা, বাসন বাজান। হাততালি দেন। দেশের জন্য যাঁরা জীবন বাজি রেখে করোনার মোকাবিলা করছেন, ওটা হবে তাঁদের প্রতি জনতার শ্রদ্ধা জ্ঞাপন। সেই কথা অক্ষরে অক্ষরে মেনে রবিবার বিকেল পাঁচটায় গোটা দেশ মুখরিত হয়ে উঠল। দেশের মানুষের এইভাবে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন আগে দেখা যায়নি।

https://www.facebook.com/632536300181382/posts/2374732779295050/

এটা যদি বিপর্যয় মোকাবিলার ইতিবাচক দিক হয়ে থাকে, তা হলে দুশ্চিন্তার হলো একদিনেই ভারতে করোনাক্রান্ত আরও তিন জনের মৃত্যু। এই তিন মৃত্যু নিয়ে এখনো পর্যন্ত দেশে করোনার মোট নিহত হলেন ৭ জন। আক্রান্তের সংখ্যা ৩৪১। এঁরা ছাড়া ২৬ জন আক্রান্ত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

করোনার মোকাবিলায় যুদ্ধকালীন তৎপরতা দেখা দিলেও ভারতীয় সংসদের অধিবেশন বন্ধ করা হয়নি। বিরোধীদের প্রবল দাবির মুখে সোমবার সম্ভবত সংসদ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত ঘোষণা হতে চলেছে।

https://m.facebook.com/story.php?story_fbid=2819688904745579&id=100001134928313

জনতা কারফিউয়ের সাফল্যের রেশ থাকতে থাকতেই করোনার মোকাবিলায় রবিবার রাত বারোটা থেকে সারা দেশে সব ধরনের ট্রেন চলাচল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। 

রেল মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, দূর পাল্লার সব ট্রেনের পাশাপাশি সারা দেশের সব রাজ্যে লোকাল ট্রেন চলাচলও বন্ধ থাকবে। বন্ধ থাকবে মেট্রোও। এই সঙ্গে রাজধানী দিল্লির সর্বত্র রবিবার রাত থেকেই জারি করা হলো ১৪৪ ধারা। এই ধারায় ৪ জনের বেশি যে কোনো সমাবেশ নিষিদ্ধ। 

মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল জানিয়েছেন, প্রয়োজনে এই ধরনের কারফিউ ফের জারি করা হতে পারে।

নি এম/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 

Editor: Sukriti Kr Mondal

E-mail: info.eibela@gmail.com Editor: sukritieibela@gmail.com

a concern of Eibela Ltd.

Request Mobile Site

Copyright © 2020 Eibela.Com
Developed by: coder71