মঙ্গলবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮
মঙ্গলবার, ৩রা আশ্বিন ১৪২৫
 
 
চাণক্য নীতি অনুসারে জীবনের তিনটি খারাপ লক্ষণ
প্রকাশ: ০৮:০৭ pm ২৮-০৪-২০১৭ হালনাগাদ: ০৮:০৭ pm ২৮-০৪-২০১৭
 
 
 


ধর্ম  ডেস্ক : তাঁর জ্ঞান ও রাজনৈতিক দূরদর্শিতার জন্য বিশ্বব্যাপী প্রসিদ্ধ আচার্য চাণক্য৷ অর্থনীতি ও পলিটিকাল সায়েন্সের জগতে তাঁর অর্থশাস্ত্র ও চাণক্য নীতি বই দুটিকে পথপ্রদর্শক হিসাবে গণ্য করা হয়৷ তিনি শুধুমাত্র ভবিষ্যৎই দেখতে পেতেন না, মানুষের মন বোঝার ক্ষমতা ও জ্ঞান তাঁকে আজও স্মরণীয় করে রেখেছে৷

প্রতিবেদনে চাণক্য নীতিরই কিছু লাইন লিখব যা আমাদের রোজকার জীবনে ঘটে থাকে এবং যা থেকে আপনি বুঝতে পারবেন মৃত্যুর পরেও খারাপ ভাগ্য আপনার পিছন ছাড়বে না৷

বৃদ্ধ বয়সে পত্নীকে হারানো : বেশি বয়সে কোনও ব্যক্তি পত্নী ত্যাগী হলে তার চেয়ে খারাপ কিছু হতে পারে না৷ দুটি বয়সে মানুষের সবচেয়ে বেশি কষ্ট হয় এক, শিশুকালে, দুই, বৃদ্ধ বয়সে৷ কারণ এই দুই সময়েই মানুষ অন্যের উপর নির্ভরশীল থাকে৷ শিশু বয়সে বাবা-মায়ের উপর, বৃদ্ধ বয়সে পত্নীর উপর৷ বিশেষত বৃদ্ধ বয়সে যদি ভাগ্য আপনার পত্নী বিয়োগ ঘটায় তবে তা খারাপ চিহ্ন৷ কারণ সেই সময়ে তার জীবনের জন্য কেউ আপনার পাশে এসে দাঁড়াবে না মানসিক সান্ত্বনা দেওয়ার জন্য৷ যা মৃত্যুর আগের অত্যাচারের ইঙ্গিত৷

ছোট বয়স থেকে কারও উপর নির্ভরশীল হওয়া : কোনও শিশু যদি তার জন্মের পর থেকেই অন্যের উপর নির্ভরশীল হয় তবে তা খারাপ লক্ষণ৷ এছাড়া যদি কোনও সুস্থ ব্যক্তি শুধুমাত্র কুড়েমির বসে অন্যের উপর নির্ভরশীল হয়ে থাকে তবে তাও খারাপ লক্ষণ৷

আপনার পুরষ্কার অন্য কেউ নিয়ে চলে গেলে : চাণক্য বলেছেন প্রত্যেক ভালো কাজের জন্য মানুষ ঠিক সময় মতো পুরষ্কার পায়৷ কিন্তু যদি দেখেন আপনার করা ভালো কাজের পুরষ্কার অন্য কেউ নিয়ে চলে যাচ্ছে তবে তা খারাপ চিহ্ন৷

এইবেলাডটকম/এএস

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71