সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০১৯
সোমবার, ৯ই বৈশাখ ১৪২৬
সর্বশেষ
 
 
চিতলমারীতে ‘গোফাগুন ব্রত’ অনুষ্ঠিত
প্রকাশ: ০৫:০১ pm ১৫-০৩-২০১৯ হালনাগাদ: ০৫:০১ pm ১৫-০৩-২০১৯
 
চিতলমারী (বাগেরহাট) প্রতিনিধি:
 
 
 
 


শীত শেষে আসে ফাগুন। গাছে গাছে নতুন পাতার সমারোহ, আম্র মুকুলের গন্ধে মৌমৌ চারিদিক। কোকিলের কুহু রবে মুখরিত আকাশ বাতাস। ঝিঁঝিঁ পোকারা সরব বনে জঙ্গলে। পলাশের ডালে ফুলের গন্ধে পাগল পাক্ষীকুলের মাতামাতি, যৌবন জোয়ারে উৎফুল্ল প্রাণীকূল। যুবক যুবতীর মনে লাগে নতুন রঙের ছোঁয়া। আর পূজা অর্চ্চনারও শুভ সময় ফাগুন জুড়ে।

এ সময়েই অবিবাহিতা যুবতীরা ভালো বর লাভের আশায় শিবঠাকুরের কাছে প্রার্থনায় ব্রতী হয় ফাগুণের শুরুতেই, বিবাহিতা মেয়েরা সুপুত্র লাভের আশায় একই সাথে এ প্রার্থনায় সামিল হয়,  অনেকে স্বামী ও সন্তানের মঙ্গলার্থেও এ প্রার্থনা করে থাকে। এই  প্রার্থনা বা ব্রত বিশেষ পদ্ধতিতে পালন করা হয়ে থাকে। এই প্রার্থনাকে বা ব্রতকে গ্রাম্য ভাষায় বলে গোফাগুন ব্রত। অঞ্চলভেদে এটাকে দোলপিড়ি পূজাও বলা হয়। 

ফাল্গুন মাসের প্রথমদিন থেকে শেষদিন পর্যন্ত টানা একমাস এই ব্রত পালন করে থাকে মেয়েরা। ব্রত পালনার্থে একটা বেদি তৈরী করা হয়। যেটাকে শিবঠাকুরের বসার আসন হিসেবে ধরা হয়। প্রতিদিন খুব ভোর বেলায় দলবদ্ধ মেয়েরা চাদিদিকে ফুটে থাকা নানা ফুল সংগ্রহ করে পিড়ি বা কুলায় সুন্দর করে সাজিয়ে সেগুলি বেদিতে রেখে বেদিকে সুসজ্জিত করে। তার পরে সম্মিলিত মেয়েরা প্রচলিত লৌকিক গান গেয়ে ঠাকুরের কাছে তাদের মনের ইচ্ছা জানায়। ভগবানকে আহ্বান করে। প্রার্থনা শেষে ফুলগুলো তারা নদীতে বা পার্শ্ববর্তী জলাশয়ে ভাসিয়ে দিয়ে থাকে। 

শুক্রবার ছিল পুরানো পঞ্জিকা মতে ফাগুণের শেষ দিন। তাই এদিনই ছিল ব্রতকারীদের ব্রতের শেষ দিন। এই দিনটাকে বিশেষভাবে তারা উদ্যাপন করে থাকে। বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে টানা এক মাস ব্যপী উপাসনার সমাপ্তি টানে। বিশেষ খাবার পরিবেশনসহ নানা প্রকার অনুষ্ঠান করা হয়। অনুষ্ঠানটি মেয়েরা সাধারণত এলাকা ভিত্তিক বা অবস্থান ভিত্তিক সম্মিলিত ভাবে করে থাকে। তেমনই ছিল চিতলমারীর খড়মখালী গ্রামের বিবাহিতা অবিবাহিতা মেয়েদের গোফাগুণ অনুষ্ঠান। ব্যপক উৎসাহ উদ্দীপনার মাধ্যদিয়ে নানা অনুষ্ঠারে মাধ্যমে ভাল বর, সুসন্তান লাভ ও স্বামী সন্তানের মঙ্গলার্থে প্রার্থনা জানিয়ে খড়মখালী গ্রামের মেয়েরা এ অনুষ্ঠানে সমাপ্তি টানে। 

নি এম/বিভাষ 

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71