রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮
রবিবার, ৪ঠা অগ্রহায়ণ ১৪২৫
 
 
জানেন কি সীতা রাবণের মেয়ে!
প্রকাশ: ০৫:৫৩ pm ০৯-০৬-২০১৮ হালনাগাদ: ০৫:৫৩ pm ০৯-০৬-২০১৮
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


সীতা নাকি লঙ্কেশ্বর রাবণের মেয়ে? শুনলে নির্ঘাৎ ‘রাম রাম’ জপ করবে সবাই| কিন্তু রামায়ণের বিভিন্ন সংস্করণের বহু সূত্র সমর্থন করছে এই কিংবদন্তীকে|

সেই সব সূত্রের মধ্যে অন্যতম গুণভদ্রর উত্তর পুরাণ| খ্রিষ্ট পূর্ব নবম শতকে রচিত সেই পুরাণ বলছে, রাবণ একসময় মণিবতীর পবিত্রতা নষ্ট করেন| অলকাপুরীর অমিতবেগ-এর কন্যা ছিলেন এই মণিবতী| তিনি প্রার্থনা করেন, যাতে পরজন্মে তিনি রাবণের ধ্বংসের কারণ হতে পারেন| বলা হয়, এই মণিবতী পরজন্মে রাবণ এবং মন্দোদরীর প্রথম সন্তান হয়ে জন্ম নেন| কিন্তু জ্যোতিষীরা ভবিষ্যৎবাণী করেন, এই শিশু তার পিতার ধ্বংসের কারণ হবে| তাই রাবণ শিশুকে হত্যার নির্দেশ দেন| কিন্তু শেষ অবধি প্রাণে না মেরে একটি ঝুড়িতে ভরে মিথিলায় মাটির নীচে পুঁতে ফেলা হয় শিশুকে| কৃষকদের কর্ষণের সময় পাওয়া যায় তাকে| তারপর ওই শিশুকন্যাকে পালন করেন মিথিলার রাজা জনক| অবশ্য অনেক সূত্র বলে, জনক নিজেই হলকর্ষণের সময় পান সীতাকে| খ্রিষ্ট পূর্ব পঞ্চম শতকে লেখা সঙ্ঘদাসের রামায়ণেও এই দাবির সমর্থন মেলে|

আবার কোনও কোনও মত বলে, রাবণ জানতেন রাজা জনকের কাছে বড় হচ্ছে তাঁর সন্তান| এতে তিনি খুশি হয়েছিলেন| রামচন্দ্রের সঙ্গে সীতার বিবাহ দশাননের আনন্দকে বাড়িয়ে তুলেছিল| কিন্তু রাম-লক্ষণের সঙ্গে সীতা ১৪ বছরের জন্য বনবাসে যাওয়াতে রেগে যান রাবণ| তিনি মেনে নিতে পারেননি রাজকুমারি সীতাকে শেষে বনবাসের কষ্ট সহ্য করতে হবে| তাই নাকি রাবণ সীতাকে অপহরণ করে লঙ্কায় এনেছিলেন| যদিও রাজ্যবাসীকে বোঝানো হয়েছিল রাবণের এই কাজ তাঁর বোনের শূর্পনখার নাক কাটার প্রতিশোধ| এমনকী, স্ত্রী মন্দোদরীও আসল সত্যি জানতেন না| তাই ঘুমের মধ্যে রাবণ যখন ‘সীতা’, ‘সীতা’ করতেন মন্দোদরী ভেবেছিলেন সীতা বোধ হয় তাঁর স্বামীর প্রেমিকা!

এও বলা হয়, রামের বিরুদ্ধে যুদ্ধে রাবণ ইচ্ছে করে আত্মসমর্পণ করেননি| কারণ তিনি নাকি রামের হাতে নিহত হয়ে মুক্তিলাভ চেয়েছিলেন! শেষ অবধি সেটাই হয়| কিন্তু ধ্বংস হয়ে যায় স্বর্ণলঙ্কা| অর্থাৎ ঋষির ভবিষ্যৎবাণী সত্যি করে পিতৃবংশের ধ্বংসের কারণ হয়ে থাকলেন সীতা|


বিডি

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71