শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮
শনিবার, ৩রা অগ্রহায়ণ ১৪২৫
 
 
জামালগঞ্জে সার ডিলারের স্বেচ্ছাচারিতা, ব্যহত হচ্ছে কৃষিকাজ
প্রকাশ: ০২:০৮ pm ১৪-১২-২০১৭ হালনাগাদ: ০২:০৮ pm ১৪-১২-২০১৭
 
সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:
 
 
 
 


সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলার ফেনারবাঁক ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের খুচরা সার বিক্রয় ডিলার সানোয়ারের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই ডিলারের চরম স্বেচ্ছাচারিতার কারনে ওয়ার্ডের ৩গ্রামের প্রায় ১২’শ কৃষক সার কিনতে না পারায় ব্যহত হচ্ছে কৃষিকাজ।

বুধবার বিকেলে ওই ডিলারের বিরুদ্ধে উপজেলার ফেনারবাঁক ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড বাসিন্ধা রহিছ উদ্দিন চৌধুরীসহ ২৭জন কৃষক উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার নিকট লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। 

লিখিত অভিযোগ থেকে জানা যায়, সরকারী নীতিমালা অনুয়ায়ী ইউনিয়নের প্রতি ওয়ার্ডেই কৃষকদের সুবিধার জন্য এক জন করে খুচরা সার বিক্রয় ডিলার নিয়োগ করা হয়েছে। কিন্ত ফেনারবাঁক ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের ডিলার সানোয়ার হোসন নিজের ওয়ার্ডে ডিলারী না করে প্রায় ৩কিলোমিটার দূরে ৯নং ওয়ার্ডে লক্ষীপুর বাজারে খুচরা সার ডিলারী করছেন। সার বিক্রয় ডিলার সানোয়ারের বাড়ি ওই ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের শান্তিপুর গ্রামে। তার নিজ গ্রামের অর্ধ কিলোমিটার দূরেই ইউনিয়নের সবচেয়ে বড় সেলিমগঞ্জ বাজার। কি কারণে বা কার স্বার্থে পার্শ্ববর্তী বাজার সেলিমগঞ্জ বা নিজ ওয়ার্ড বাদ দিয়ে ৩কিলোমিটার দূরে ৯নং ওয়ার্ডে লক্ষীপুর বাজারে ডিলারী করেন এমন প্রশ্নে কৃষক ও সূধী সমাজেরর মুখে মুখে শোনা যাচ্ছে। যোগাযোগ ব্যবস্থা না থাকায় পায়ে হেঁটে মাথায় বোঝা করে ওয়ার্ডের কৃষকরা সার আনতে লক্ষীপুর বাজারে গেলে সারা দিনের পরিশ্রমের পাশাপাশি আর্থিক ক্ষতিতে চরম সংক্ষুব্ধ হচ্ছেন। আবার অনেক কৃষক সময়মতো ওই ডিলারকে না পাওয়ার কারণে সার ছাড়াই খালি হাতে বাড়িতে ফিরতে হচ্ছে। এর পূর্বে গত ২৯.১১.১৭ তারিখ একই অভিযোগে ওয়ার্ডের খান মোঃ মোজাম্মেল হক ডিলার সানোয়ারের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দিলে কোন পদক্ষেপ নেয়া হয়নি বলে জানান কৃষকরা।

অভিযুক্ত সার ডিলার সানোয়ারের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার ওয়ার্ডে কোন বাজার না থাকায় লক্ষীপুর ডিলারী করছি। তবে তার গ্রামের পার্শ্ববর্তী বাজার সেলিমগঞ্জে ডিলারী করছেন না কেন জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন, সেখানে ডিলার আছে সে জন্যই সেলিমগঞ্জ যাই না।

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা ড.সাফায়েত আহম্মদ সীদ্দিকী বলেন, কৃষকদের লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তবে ওখানে তো সে অনেক দিন ধরেই ডিলারী করছেন। পার্শ্ববর্তী বাজারে সার বিক্রির জন্যও বলা আছে। 

সেলিমগঞ্জ রেখে ৯নং ওয়ার্ডে এত দূরে ডিলারী করছে এরপরও প্রশাসন দেখছেন না কেন জানতে চাইলে কোন সদুত্তর দিতে পারেননি তিনি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামীম আল ইমরান বলেন, অভিযোগের বিষয়টি আমি শুনেছি। উপজেলা সার-বীজ মনিটরিং কমিটির মিটিংএ এব্যাপারে আলোচনা করে সিন্ধান্ত নেয়া হবে।

জে/এসএম

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71