সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০১৯
সোমবার, ৯ই বৈশাখ ১৪২৬
সর্বশেষ
 
 
জিশুর মূর্তির ভিতর থেকে পাওয়া গেল ৩০০ বছরের চিরকুট
প্রকাশ: ০৩:১০ pm ২৬-০৩-২০১৮ হালনাগাদ: ০৩:১০ pm ২৬-০৩-২০১৮
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


ইউরোপের প্রায প্রতিটি পুরনো চার্চে ছড়িয়ে রয়েছে রহস্য। এমন একটা ইঙ্গিত রেখেছিলেন ঔপন্যাসিক ড্যান ব্রাউন তাঁর ‘দা ভিঞ্চি কোড’ (২০০৩) উপন্যাসে। তার পরে সেই কাহিনি সিনেমা হওয়ার পরে সেই রহস্য নিয়ে গোটা দুনিয়ার মানুষ মাথা ঘামাতে শুরু করে। ১৫ শতক থেকে ১৮ শতক পর্যন্ত ইউরোপের প্রায় প্রতিটি গির্জাতেই দেওয়ালচিত্র, মূর্তি, এমনকী স্তম্ভ ও অন্যান্য স্থাপত্যের অলঙ্করণে পর্যন্ত শিল্পীরা ছড়িয়ে রাখেন বিভিন্ন ধরনের ‘কোড’ বা সংকেত, যা কোনও গূঢ় রহস্যের দিকে ইঙ্গিত করে। ইউরোপীয় নবজাগরণের বিশেষজ্ঞরা এ নিয়ে বিস্তর লেখালেখি করেছেন। তাতে রহস্য বেড়েছে বই কমেনি।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম ‘দ্য সান’-এ প্রকাশিত এক প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে, স্পেনের একটি গির্জায় সম্প্রতি জিশুর একটি মূর্তি সংস্কার করতে গিয়ে পাওয়া গিয়েছে এক আশ্চর্য চিরকুট। স্পেনের সোতিল্লো গ্রামের সান্তা আগুয়েদা নামের চার্চে এই মূর্তিটির সংস্কার করছিল দা ভিঞ্চি রেস্তাউরো নামের এক সংস্থা। সংস্কারের জন্যে মূর্তিটিকে তার জায়গা থেকে সরানো হয় এবং তাকে পরীক্ষা করতে গিয়েই মূর্তিটির পিছনে একটি ফাটল লক্ষ করা যায়। এই ফাটল থেকেই বেরিয়ে আসে ১৭৭৭ সালে লিখিত একটি চিরকুট। 

দু’পাতার এই চিরকুটটিতে অতি চমৎকার হস্তলিপিতে জোয়াকিন মিঙ্গুয়েজ নামের জনৈক পাদ্রির স্বাক্ষর সম্বলিত এই চিরকুটটিতে লেখা রয়েছে সমকাল সম্পর্কে বিশদ তথ্য। অনুসন্ধান করে জনা গিয়েছে, মিঙ্গুয়েজ সেই সময়ে উত্তর স্পেনের বুর্গো দে ওসমা ক্যাথিড্রালের আবাসিক পাদ্রি ছিলেন।



একি নিছকই একটি সাধারণ লিপি? নাকি কোনও রহস্য-সংকেত?

কিন্তু, কী রয়েছে সেই লিপিতে? স্থানীয় ইতিহাস গবেষক এফরেন আররোইয়ো এই চিরকুট আবিষ্কারে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, এই ধরনের কাঠ-নির্মিত মূর্তিতে এরকম গুপ্তলিপির সন্ধান সত্যিই অভাবনীয়। চিরকুটটিতে মিঙ্গুয়েজ সেই সময়ের কৃষি অর্থনীতির খুঁটিনাটি থেকে গ্রামের মানুষের অসুখ-বিসুখ, শিশুদের খেলাধুলো, ষাঁড়ের লড়াইয়ের বিশদ বিবরণ ইত্যাদি লিখে রেখেছিলেন। 

একজন ধর্মযাজক কোনও ধর্মীয় বাণী বা বার্তা না লিখে কেন লিখলেন সাধারণ মানুষের সুখ-দুঃখের কথা? তিনি কি একটা ‘টাইম ক্যাপসুল’ তৈরি করে ভবিষ্যতের দিকে বাড়িয়ে দিতে চেয়েছিলেন? কেন লুকিয়ে রাখতে হয়েছিল এই সব ‘সাধারণ’ কথাবার্তা প্রভু জিশুর মূর্তির অন্তরালে? তা হলে কি এই সব আটপৌরে কথার আড়ালে লুকিয়ে রয়েছে কোনও সংকেত? 

নি এম/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71