বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮
বৃহঃস্পতিবার, ২৯শে অগ্রহায়ণ ১৪২৫
 
 
জেনে নিন কুমারী পুজার মাহাত্না
প্রকাশ: ১০:২৯ am ২১-১০-২০১৮ হালনাগাদ: ১০:২৯ am ২১-১০-২০১৮
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


দুর্গাপুজার অন্যতম রীতি কুমারী পুজো৷ অষ্টমী তিথির পুজা শেষে হয় কুমারী পুজা৷ এখনও ঋতুমতী হয়নি এরকম কোনও মেয়েকে এদিন দেবী রূপে পুজা করা হয়৷ অষ্টমী ছাড়াও অনেক জায়গায় নবমীর দিনও করা হয় কুমারী পুজা৷ কালী পুজা, জগদ্ধাত্রী পুজা, অন্নপূর্ণ পুজা এমনকী শক্তি পুজাতেও করা হয় কুমারী পুজা৷ কী এই কুমারী পুজোর মহিমা?

হিন্দু শাস্ত্র অনুযায়ী, মা কালীর হাতে কলাসুর বধের প্রতীকী হল কুমারী পুজা৷ কথিত আছে, কলাসুর স্বর্গ ও মর্ত্য অধিকার করে নিয়েছিল৷ দেবতারা মা কালীর কাছে উদ্ধারের জন্য প্রার্থনা করেন৷ তাদের আর্তি শুনে মা কালী আবার জন্ম নেন শিশুকন্যা রূপে এবং কলাসুর বধ করেন৷

যোগিনীতন্ত্র, কুলরনবতন্ত্র, দেবীপূরাণ, স্তোত্র, কবচ, সহশ্রমণ, তন্ত্রসর, প্রান্তসিনী ও পুরোহিতদর্পণে কুমারী পুজার উল্লেখ রয়েছে৷

এই পুজোর বৈশিষ্ট্য হল কুমারীকে পুজা করার সময় দেখা হয় না তার ধর্ম, জাত৷ ১ থেকে ১৬ বছর বয়সী যেকোনও মেয়েই কুমারী হতে পারে৷ এমনকী, বারবণিতার সন্তানও কুমারী রূপে পূজিতা হতে পারে৷

বিশ্বাস করা হয় কুমারী পুজা করলে সব বিপদ কেটে যায়৷ দার্শনিক মতে কুমারী পুজা সমাজে মেয়েদের মূল্য প্রতিষ্ঠা করে৷ কুমারীত্বকে মনে করা হয় শক্তির বীজ, সৃষ্টি, স্থিতি, লয়ের প্রতীক৷ নারীত্ব ও প্রকৃতির প্রতীক কুমারীত্ব৷ বিশ্বাস করা হয় কুমারীর মধ্যেই নেমে আসেন মা৷

নি এম/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71