রবিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯
রবিবার, ৫ই ফাল্গুন ১৪২৫
 
 
ঝালকাঠিতে নদ নদীতে সব ধরনের মাছ ধরার নিষেধাজ্ঞা
প্রকাশ: ০৬:৩৮ pm ০৯-১০-২০১৭ হালনাগাদ: ০৬:৩৮ pm ০৯-১০-২০১৭
 
ঝালকাঠি প্রতিনিধি:
 
 
 
 


সারাদেশের ন্যায় ঝালকাঠিতেও নদ নদীতে সব ধরনের মাছ ধরার উপর চলছে নিষেধাজ্ঞা। ১ থেকে ২২ অক্টোবর পর্যন্ত অধিকাংশ ইলিশ মাছ ডিম ছাড়ে বলে ইলিশের এ প্রজনন সময়কে নিরাপদ করতে নদ নদীতে সকল ধরনের মাছ ধরার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে সরকার। ফলে ইলিশ উৎপাদনের পাশাপাশি অন্যান্য মাছের উৎপাদনও বৃদ্ধি পাবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

বিগত বছরগুলোতে ১১ দিন এই নিষেধাজ্ঞা থাকলেও চলতি বছর তা বাড়িয়ে ২২ দিন করা হয়েছে। এর ফলে মাছের উৎপাদন বাড়ার পাশাপাশি জেলেদের আর্থ সামাজিক অবস্থারও যেমন পরিবর্তন হবে তেমনি দেশের অর্থনীতিতেও ইলিশ গুরুত্বপূর্ণ স্থান দখল করবে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা। 

ঝালকাঠি জেলা মৎস্য বিভাগের তথ্য মতে, ২০১৬-২০১৭ অর্থ বছরে জেলায় ইলিশের উৎপাদন হয়েছে ৯শ ৮৮ মেট্রিক টন, যা ২০১৫-২০১৬ অর্থবছরের চেয়ে প্রায় দেড়গুণ। তবে বাস্তবে এই জেলায় ইলিশের উৎপাদন আরো অনেক বেশি। গত বছর ঝালকাঠি জেলায় বিভিন্ন প্রজাতির মাছের মোট উৎপাদন ছিল ১১ হাজার ৮শ ৩৮ মেট্রিক টন। ওই বছর জেলার চাহিদা মিটিয়েও ৩শ ২০ মেট্রিক টন মাছ উদ্বৃত্ত ছিল। 

ঝালকাঠি জেলা মৎস্য কর্মকর্তা প্রীতিষ কুমার মন্ডল জানান, নদী থেকে যেসব ইলিশ ধরা পড়ছে তার বড় একটি অংশ সরাসরি দেশের বিভিন্ন মৎস্য অবতরণ কেন্দ্রে চলে যাচ্ছে। ফলে এসব মাছ জেলার হিসাবে অন্তর্ভুক্ত হচ্ছে না। ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুম এই ২২ দিন যদি মাছ ধরা পুরোপুরি বন্ধ রাখা যায় তবে শুধু ইলিশ নয়, অন্যান্য মাছের উৎপাদনও বিগত বছর গুলোর থেকে অনেকাংশে বাড়বে। 

ঝালকাঠির লঞ্চঘাট এলাকার কুদ্দুস শরীফ বলেন, ইলিশ মাছ ডিম ছাড়ার পর সরকার যদি অবৈধ বাঁধাজাল ও কারেন্ট জালের ব্যবহার বন্ধ করতে না পারে তাহলে এই ২২ দিনের অভিযান ব্যর্থ হবে। এ কারণে ওই সময়েও নদীতে সরকারের নজরদারি বাড়ানো প্রয়োজন। এদিকে ঝালকাঠি জেলা প্রশাসক মোঃ হামিদুল হক বলেন, ইলিশের প্রজনন মৌসুমকে নিরাপদ করতে জেলা প্রশাসনের মোবাইল কোর্ট সার্বক্ষণিক তৎপর। গত এক সপ্তাহে জেলায় প্রায় ১০ জন জেলেকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ড ও অর্থদন্ড প্রদানসহ কয়েক লাখ টাকার অবৈধ জাল উদ্ধার করা হয়েছে। আর জাটকা সংরক্ষণের এ অভিযান চলমান থাকবে।

এ/আরডি/
 

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71