রবিবার, ২১ জুলাই ২০১৯
রবিবার, ৬ই শ্রাবণ ১৪২৬
 
 
টাকা জাদুঘরের দেওয়ালে রয়েছে টাকার গাছ
প্রকাশ: ০১:০৭ am ১১-০৪-২০১৭ হালনাগাদ: ০১:০৭ am ১১-০৪-২০১৭
 
 
 


ঢাকা : অনেকে বলে টাকা নাকি গাছে ধরে না। কিন্তু ‘টাকা যাদুঘরে’ প্রবেশ পথে দেওয়ালে রয়েছে টাকা গাছ, যেখানে সাজানো থরে থরে টাকা। রঙ-বেরঙের নকশা করা টাকা। আছে পয়সাও। তবে এসব টাকা-পয়সার বেশির ভাগই অচল। অচল হলে কি হবে এগুলোর ভেল্যু রয়েছে অনেক।

প্রাচীন আমল থেকে এই ভূখণ্ডে প্রচলিত প্রায় সব মুদ্রা দিয়ে সাজানো হয়েছে জাদুঘরটি। বলছি বাংলাদেশের একমাত্র টাকা জাদুঘরের কথা। এটির অবস্থান মিরপুর ২ নম্বর সেকশনের বাংলাদেশ ব্যাংকের ট্রেনিং একাডেমির দ্বিতীয় তলায়।

টাকা জাদুঘরে বিভিন্ন দেশের প্রায় ৩ হাজার পুরাতন মুদ্রা সংগ্রহ করা হয়েছে। পুরাতন মুদ্রা সংগ্রহ করার প্রক্রিয়া এখনও অব্যাহত রয়েছে। টাকা জাদুঘরে দুটি গ্যালারি। গ্যালারি-১ এ উপমহাদেশের বিভিন্ন শাসনামলে প্রচলিত মুদ্রা প্রদর্শিত করা হয়।

আর গ্যালারি-২ তে প্রদর্শিত হচ্ছে বিভিন্ন দেশের মুদ্রা ও ফটো কিয়স্ক। এখানে এক লাখ টাকার একটি নোটের ভেতরে চাইলেই যে কেউ নিজের ছবি জুড়ে নিতে পারেন। এ জন্য আপনাকে গুনতে হবে মাত্র ৫০ টাকা। নোটটি অবশ্যই স্মারক, বিনিময়-অযোগ্য। অর্থাৎ এক লাখ টাকার নোটটি শুধু স্মৃতি হিসেবে থাকবে।

এ ছাড়া, শস্য সংরক্ষণের জন্য ব্যবহৃত মাটির মটকাও প্রদর্শিত হচ্ছে এই জাদুঘরে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের এবং ভিন্ন ভিন্ন সময়ের কাগজের নোট ও এ জাদুঘরে সংরক্ষিত রয়েছে।

পুরো জাদুঘরে তথ্যপ্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহার করা হয়েছে। ডিজিটাল সাইনেজ, ডিজিটাল কিয়স্ক, এলইডি টিভি, থ্রিডি টিভি, প্রোজেক্টর এবং ফোটো কিয়স্কের বিষয় উল্লেখ করার মতো। এ ছাড়া রয়েছে একটি স্যুভেনির শপ, যেখান থেকে দর্শকেরা কিনতে পারবেন নানা স্যুভেনির।

২০১৩ সালের অক্টোবরে প্রতিষ্ঠিত হয় টাকা জাদুঘর। ঢাকার মিরপুরে বাংলাদেশ ব্যাংক ট্রেইনিং ইনস্টিটিউট কমপ্লেক্সের একটি অংশে গড়ে তোলা হয় জাদুঘরটি। এটিই বাংলাদেশের ইতিহাসে প্রথম টাকা জাদুঘর।

জাদুঘরের কিউরেটর জানান, বর্তমানে ছয় হাজার বর্গফুটের একটি ফ্লোরে জাদুঘরটি পরিচালিত হচ্ছে। খুব শিগগির ভবনটির তৃতীয় তলায় জাদুঘরটি সম্প্রসারিত হবে। তবে এখনো যা আছে, তাও কিন্তু কম নয়।

জাদুঘরে কোন প্রবেশ ফি নেই। খোলা থাকে বেলা ১১টা থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত। শুক্রবার বিকেল চারটা থেকে সন্ধ্যা সাতটা পর্যন্ত খোলা থাকে। সাপ্তাহিক বন্ধ বৃহস্পতিবার। তবে নিরাপত্তার স্বার্থে নাম, যোগাযোগের ঠিকানা, ফোন নম্বর এন্ট্রি করেই আপনাকে ঢুকতে হবে। বাংলার সমৃদ্ধ ইতিহাস-ঐতিহ্যের অসাধারণ এক নিদর্শন দেখতে ও জানতে যেতে পারেন টাকা জাদুঘরে।

এইবেলাডটকম /আরডি

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71