শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮
শনিবার, ৭ই আশ্বিন ১৪২৫
 
 
ডিসেম্বরে ভিডিও কলের সুবিধা চালু হচ্ছে কারাগারে
প্রকাশ: ০৬:৫৫ am ২৪-০৩-২০১৫ হালনাগাদ: ০৬:৫৫ am ২৪-০৩-২০১৫
 
 
 


 বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো কারাবন্দিদের জন্য চালু হতে যাচ্ছে মোবাইলে কথা বলার সুযোগ। একই সঙ্গে তারা ভিডিও কলের মাধ্যমেও স্বজনদের খোঁজ-খবর নিতে পারবেন। আর এ সুযোগ চালু হচ্ছে এ বছরের ডিসেম্বর থেকে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের পর কারা অধিদফতর দেশের ৬৭ কারাগারে এ সেবা চালুর জন্য কাজ শুরু করেছে।
সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, কারাগারে একাকী জীবনে অবসাদে ভোগেন বন্দিদের অনেকে। কারও কারও মানসিক স্বাস্থ্যের অবনতি ঘটে। এ অবস্থা কাটাতে উন্নত দেশের আদলে কারাগারগুলোতে মোবাইল বুথ বসানোর উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে স্ত্রী, সন্তান, বাবা-মায়ের সঙ্গে বন্দিদের ফোনে কথা বলার সুযোগ তৈরি হচ্ছে। কারাগারে ঢোকার সঙ্গে সঙ্গেই বন্দির কাছ থেকে তার দুজন নিকটাত্মীয়ের ফোন নম্বর সংগ্রহ করবে কর্তৃপক্ষ। সর্বোচ্চ পনেরো মিনিট কথা বলতে পারবেন তারা।
আইজি (প্রিজন) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইফতেখার উদ্দিন এ তথ্য জানিয়ে বলেন, মোবাইল ফোনে কথা বলার এ সুবিধা প্রথমে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে চালু হবে। এরপর পর্যায়ক্রমে কাশিমপুর কারাগারসহ জেলা ও অন্যান্য কারাগারেও মোবাইল ফোনের বুথ বসান হবে। প্রাথমিক পর্যায়ে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে দুটি বুথে মোট ৪টি মোবাইল ফোন থাকবে। পরে চাহিদা অনুযায়ী ফোনের সংখ্যা বাড়ানো হবে।
তিনি আরও জানান, সারা দেশের কারাগারগুলোতে এখন মোট ৭৫ হাজার ৫০০ বন্দি আছেন। আমাদের লক্ষ্য হলো বিশেষ ক্ষেত্র ছাড়া সব বন্দিই যেন চাইলে মাসে দুবার তাদের পরিবারের সঙ্গে কথা বলতে পারেন।
স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. মোজাম্মেল হক খান বলেন, উন্নত বিশ্বের আদলে কারাগারে সুযোগ-সুবিধা বাড়ানোর একটি উদ্যোগ সরকারের রয়েছে। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে কারাবন্দিদের সঙ্গে দেখা করতে তাদের আত্মীয়স্বজন কষ্ট করে ঢাকায় আসেন। এতে তাদের শারীরিক ও আর্থিক ক্ষতি হয়। সরকারের নিয়ন্ত্রণে বন্দিদের মোবাইল ফোনে আত্মীয়স্বজনের সঙ্গে কথা বলার সুযোগ থাকলে কারা অনিয়ম ও দুর্নীতিও অনেকটা কমে যাবে।


স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ৩ মার্চ কারাবন্দিদের মোবাইল ফোনে কথা বলার এই সেবার অনুমোদন দেয়ার সঙ্গে নীতিমালাও অনুমোদন করেছে। নীতিমালা অনুযায়ী হাজতি ও কয়েদিরা কারা কর্তৃপক্ষকে তাদের পরিবারের একটি মোবাইল ফোন নম্বর দেবেন। সেই নম্বরটির নিরাপত্তা ছাড়পত্র পাওয়ার পর বন্দিরা কারাগারের বুথের মোবাইল ফোন থেকে শুধু সেই নম্বরে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলতে পারবেন।


আর প্রতিমাসে একজন বন্দি এ সুযোগ পাবেন দুবার। কথা বলার জন্য প্রতি মিনিটে দিতে হবে ২ টাকা। কারাগারের মোবাইল ফোন থেকে ভিডিও কল করারও সুযোগ থাকবে। সে ক্ষেত্রে কত খরচ হবে তা এখনও নির্ধারণ করা হয়নি।


তবে কারাগার থেকে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে মোবাইল ফোনে কথা বলার এ সুযোগ পাবেন না যুদ্ধাপরাধ মামলার আসামি আর আটক জঙ্গিরা। আরও কিছু বন্দির ক্ষেত্রে নিরাপত্তার কথা ভেবে কারা কর্তৃপক্ষ চাইলে তাদের মোবাইল ফোনে কথা বলার সুযোগ নাও দিতে পারবে।


কারা অধিদফতর থেকে জানা যায়, মোবাইল ফোনে কথা বলার সুবিধা চালুর জন্য এরই মধ্যে কয়েকটি মোবাইল ফোন অপারেটরের সঙ্গে বৈঠকও করা হয়েছে। দেশের অন্যান্য কারাগারগুলোতে প্রথমে দুটি করে মোবাইল ফোন দেয়া হবে। পরে চাহিদা অনুযায়ী ফোনের সংখ্যা বাড়ানো যাবে। আর মোবাইল ফোন বুথও তৈরি করা হবে। তবে বন্দিদের ফোন কল মনিটর করা হবে, যাতে নিরাপত্তার জন্য ক্ষতিকর কোনো ফোন কল ব্লক অথবা কেটে দেয়া যায়।
 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71