মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮
মঙ্গলবার, ১০ই আশ্বিন ১৪২৫
 
 
তলিয়ে যাচ্ছে নাটোরে রানি ভবানীর মন্দির
প্রকাশ: ০৪:৩৯ pm ২৭-০৫-২০১৮ হালনাগাদ: ০৪:৩৯ pm ২৭-০৫-২০১৮
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


নাটোরের রানি ভবানী। ইতিহাসের পাতা ওল্টালে দেখা যাবে, সেই সময়ের ইংরেজ রাজত্বকালে কোনও নারী জমিদারি সামলাচ্ছেন, তেমন উদাহরণ খুব কমই রয়েছে। রাজশাহীর জমিদার পরিবারের রাজা রামকান্ত রায়ের সঙ্গে বিয়ে হয় ভবানীর এবং স্বামীর মৃত্যুর পর জমিদারির দায়িত্ব তিনিই কাঁধে তুলে নেন। প্রায় ৪০ বছর সেই দায়িত্ব সামলান দক্ষতার সঙ্গে। যে কারণে তাঁকে রানি হিসেবেই অভিহিত করতেন প্রজারা।

ধর্মপ্রাণা রানি ভবানী তাঁর রাজত্বকালে বহু মন্দির গড়েছিলেন। তেমনই এক মন্দির রয়েছে মুর্শিদাবাদের আজিমগঞ্জ–জিয়াগঞ্জে। শিবভক্ত রানি ভবানী এই অঞ্চলে অসংখ্য বাসস্থান ও মন্দির তৈরি করেন। যার মধ্যে ‘চার বাংলা’ মন্দির খুবই বিখ্যাত। পলাশির যুদ্ধের তিন বছর পরে তৈরি হয় এই মন্দির। পোড়া মাটির এমন মন্দির বাংলায় আর কোথাও নেই বলে স্থানীয়দের দাবি।

‘এক বাংলা’ বা ‘জোড় বাংলা’ হিসেবে পোড়া মাটির মন্দির রয়েছে বাংলার বেশ কিছু জায়গায়। কিন্তু ‘চার বাংলা’ মন্দির রয়েছে কেবলমাত্র এখানেই। ১৭৬০ সালে যখন এই অঞ্চলে মন্দিরগুলো নির্মাণ করা হয়, তখন প্রায় এক কিলোমিটার দূর দিয়ে বয়ে যেত ভাগীরথী। এখন গতিপথ সরে যাওয়ায় নদী আর মন্দিরের মধ্যে দূরত্ব বর্তমানে মাত্র ফুট কয়েকের। ইতিমধ্যেই ক্ষতিগ্রস্ত মন্দিরের দেওয়াল। প্রায় পাঁচ বছর আগে নদীর বাধঁ ভেঙে যাওয়ায় রাস্তার বেশ কিছুটা চলে গিয়েছে জলের তলায়। ভাঙন শুরু হয় তিন বছর আগে। বর্তমানে রাস্তার অবস্থা এতটাই বিপজ্জনক যে, চার চাকার গাড়ি তো দূরে থাক, বাইক নিয়ে যেতেও ভয় পান এলাকাবাসী।‌‌

নি এম/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71