মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮
মঙ্গলবার, ২৯শে কার্তিক ১৪২৫
 
 
তাপদাহ ও ভ্যাপসা গরমে জনজীবনে দুর্ভোগ
প্রকাশ: ০৭:২২ pm ০৬-০৬-২০১৮ হালনাগাদ: ০৭:২২ pm ০৬-০৬-২০১৮
 
সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি 
 
 
 
 


গরমে হাঁপিয়ে উঠেছে সিরাজগঞ্জ জেলার সকল বয়সী ও নানাপেশার মানুষ। সারা দেশের ন্যায় সিরাজগঞ্জ জেলায় ভ্যাপসা গরম জনজীবনে দুর্ভোগ নিয়ে এসেছে। এবারের বর্ষাকালের পূর্ব মুহুর্তের জ্যৈষ্ঠের শুরু থেকেই প্রচন্ড তাপদাহ ও ভ্যাপসা গরম অব্যহত। ফলে গরমে হাঁপিয়ে উঠেছে বেলকুচি উপজেলার সকল বয়সী ও নানাপেশার মানুষ।

তীব্র গরমে সিরাজগঞ্জের জেলার যেসব অফিস-আদালতের কর্মকর্তা কর্মচারীরা কেবল সিলিং ফ্যানের হাওয়ায় কাজকর্ম সারছেন তারাও হাঁপিয়ে উঠেছেন। আবার শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত থেকে বেরিয়ে অনেকেই বাইরের তাপমাত্রার সঙ্গে নিজেদের মানিয়ে নিতে না পেরে অস্বস্তি বোধ করছেন। জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের জনসাধারণ গরমে কাহিল হয়ে পড়েছে। এর ফলে নানা রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। প্রচন্ড গরমে রিকশা-ভ্যান চালকরা বেশির ভাগই সকাল থেকে দুপুর এবং বিকালে সুর্যের তাপ কমার পর রাত পর্যন্ত সময়ে রিকশা নিয়ে রাস্তায় বের হচ্ছে। আর এই তাপদাহের সাথে তাল মিলিয়ে চলছে ঘন ঘন লোডশেডিং।

অনেকে বিদ্যুৎহীন ঘরে, অফিসে ঠান্ডা হাওয়ার জন্য বিকল্প হিসেবে বাজারে চার্জার ফ্যানের চাহিদা বেড়েছে। এলাকায় রিকশা-ভ্যানে পানির ফিল্টার মেশিন বসিয়ে লেবুর শরবত বিক্রি হচ্ছে। আবার এসব এলাকায় বিভিন্ন রকমের গাছ-গাছালির ছাল-বাকল দিয়ে বরফের ঠান্ডা শরবত বিক্রি হচ্ছে। গরমে কান্ত রোজাদারদের উষ্ঠাগত প্রান। ইফতারির সময় জেলা ও উপজেলা শহরের কনফেকশনারী ও ডিপার্টমেন্টাল ষ্টোরগুলোতে ফ্রিজে বিভিন্ন কোম্পানীর কোমল পানীয়, আইসক্রীম, দই ও জুসের চাহিদা বেড়েছে কয়েকগুন। ফার্মেসী ও অন্যান্য মনোহরী দোকান গুলোতে খাবার স্যালাইন দেদারছে বিক্রি হচ্ছে। প্রচন্ড গরমে পুকুর-দিঘীর পানিতে এক ধরণের দুর্গন্ধ অনুভূত হচ্ছে। গোসলের পর অনেকের শরীরে চুলকানি হচ্ছে বলে জানা গেছে।

এদিকে জ্যৈষ্ঠের দাবদাহের সঙ্গে পাল্টা দিয়ে সর্দি, কাশি, ডায়রিয়াসহ পানিবাহিত রোগের প্রাদুর্ভাব ঘটেছে। সিরাজগঞ্জ জেলার জেনারেল হাসপাতাল, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও প্রাইভেট হাসপাতালে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েছে। এরমধ্যে বয়স্ক ও শিশু রোগীর সংখ্যাই বেশি। আজ বেশ ক’জন শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের চেম্বারে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রচন্ড গরমের কারণে সর্দি কাশিসহ ডায়রিয়ায় আক্রান্ত শিশুদের নিয়ে অভিভাবকরা চিকিৎসকের শরনাপন্ন হয়েছে। 

যেসব শিশুর অবস্থা জটিল তাদেরকে হাসপাতালে ভর্তির পরামর্শ দেয়া হচ্ছে বলে বেলকুচি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, প্রচন্ড গরমে অতিরিক্ত পানি পান করতে হবে। ইফতারীর পর বেশী ভাজা জাতীয় দ্রব্য খাওয়া যাবে না।  

সিকেএ/বিডি

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71