শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮
শনিবার, ৭ই আশ্বিন ১৪২৫
 
 
তারেক রাজনীতি না করার মুচলেকা দিয়ে দেশ ছেড়ে পালিয়েছে: সেতুমন্ত্রী
প্রকাশ: ১০:৫৭ am ৩০-০৪-২০১৮ হালনাগাদ: ১০:৫৭ am ৩০-০৪-২০১৮
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে পলাতক কাপুরুষ হিসেবে আখ্যায়িত করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘তারেক রহমান রাজনীতি না করার মুচলেকা দিয়ে দেশ ছেড়ে পালিয়েছে। জেল-জুলুম-নির্যাতন সহ্য করার সাহস নেই তার। এখন বিদেশে বসে সে রাজনীতিতে শব্দবোমা ছুড়ছে। পলাতক কাপুরুষকে বাংলাদেশ কোনোদিন নেতা মানেনি, মানবেও না।’

রবিবার দুপুরে টিএসসিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, খালেদা জিয়াকে আদালত জেল দিয়েছে। জেলকোড অনুযায়ী খালেদা জিয়াকে সুচিকিৎসা দেবে। তাকে দেখার জন্য সুচিকিৎসক, জাতীয়তাবাদী চিকিৎসকরা আছেন। কিন্তু বিএনপি নেতারা তাকে নিয়ে যে মিথ্যাচার করছেন তাতে জাতীয়তাবাদী চিকিৎসকরা চিকিৎসা করলে যে সার্টিফিকেট দেবেন সেখানে সন্দেহ থাকাটা স্বাভাবিক। কারণ এই চিকিৎসক চিকিৎসার প্রকৃত চিত্রটা না বলে রাজনৈতিকভাবে একটা রাজনৈতিক সার্টিফিকেট দিয়ে দিবে, এটা কি গ্রহণযোগ্য? সত্যিকারের যে চিত্র, এই ব্যাপারে যথাযথ কর্তৃপক্ষ যথাযথ ব্যবস্থা নেবে। সরকারের অমানবিক হওয়ার কোনো সুযোগ নেই। সেতুমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়ার চিকিৎসার ফাইল প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে আটকে থাকার কথা বলে বিএনপি মিথ্যাচার করেছে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, খালেদার মুক্তির দাবি সরকারকে জানিয়ে কোনো লাভ নেই। খালেদা জিয়া কারাগারে আছেন আদালতের বদৌলতে। সেটা নিয়েও তারা রাজনীতি করছেন। যেন সরকারই খালেদা জিয়াকে দণ্ড দিয়েছে। আমরা তাকে দণ্ডও দিইনি, আমরা তাকে দণ্ড থেকে মুক্তিও দিতে পারব না। ছাত্রলীগকে রাজনৈতিক আদর্শের মহাসড়কে ফিরে আসতে হবে। সুনামের ধারায় ফিরে আসতে হবে। ত্যাগী ও যোগ্য নেতৃত্ব হতে হবে ছাত্রলীগের। কারো পকেটের লোক দিয়ে ছাত্রলীগের কমিটি হবে না। আগামীতে কোন সিন্ডিকেটের কথায় ছাত্রলীগ চলবে না। ছাত্রলীগ চলবে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে এবং শেখ হাসিনার নির্দেশে। এর বাইরে চিন্তা করার কোনো অবকাশ নেই।

ছাত্রলীগ নেতাদের উদ্দেশ্যে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘নেতা বানিয়ে যাবেন, কিন্তু আপনি যখন বিদায় নেবেন, নতুনরা আপনাদের কি চোখে দেখবে সেটাও ভাববেন। চলে গেলে বা বিদায় নিলে অনেকেই অনেক কিছু ভুলে যায়। টাকা পয়সার কর্মী থাকবে না, আদর্শের কর্মীরা থাকবে।

সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘আগামী নির্বাচনে ভোটার বাড়াতে হলে যোগ্য, সাহসী, চরিত্রবান নেতা দরকার। আমি বর্তমান কমিটির অর্জনকে অস্বীকার করছি না। যারা সাবেক হবে সব নেতাকে আমরা নেতা বানাবো। সব নেতাকে আমরা উপ-কমিটিতে স্থান দিবো।

এ সময় সম্মেলনে কেন্দ্রীয় সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান কমিটিকে বিলুপ্ত ঘোষণা করেন। ঢাবি ছাত্রলীগ সভাপতি আবিদ আল হাসানের সভাপতিত্বে সম্মেলনে আরো বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম এনামুল হক শামীম, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ, সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন প্রমুখ। সম্মেলনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন প্রিন্স সঞ্চালনা করেন।

নি এম

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71