বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮
বুধবার, ১১ই আশ্বিন ১৪২৫
 
 
তিন মুখ বিশিষ্ট মানুষ
প্রকাশ: ০৫:০৭ pm ১৮-০৪-২০১৮ হালনাগাদ: ০৫:০৭ pm ১৮-০৪-২০১৮
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


পৃথিবীতে এ প্রথমবারের মতো এক ব্যক্তির দুবার মুখমণ্ডল প্রতিস্থাপনের অপারেশন হওয়ার পর ৩ মাসের মাখায় জেরোম হ্যামন নামের ওই ব্যক্তি বলছেন, তিনি এখন ভালো বোধ করছেন। এ অদ্ভুত ঘটনায় ফরাসি সংবাদমাধ্যম তার নাম দিয়েছে ‘তিন মুখ বিশিষ্ট ব্যক্তি।’

৪৩ বছর বয়স্ক ল্যামনের মুখমণ্ডল প্রথমবার প্রতিস্থাপন করা হয় ২০১০ সালে। দ্বিতীয়টি করা হয় ২০১৭ সালে। প্রথম অপারেশন সফল হয়েছিল, কিন্তু ২০১৫ সালে ঠান্ডা লেগে তার সংক্রমণ হবার পর তাকে অ্যান্টিবায়োটিক দেয়া হয়। কিন্তু তার প্রতিস্থাপিত মুখমণ্ডল সেই অ্যান্টিবায়োটিককে গ্রহণ করছিল না, ফলে দেখা দেয় জটিলতা।

প্রথম লক্ষণ দেখা দেয় ২০১৬ সালে, আর গত বছর নভেম্বরে তার প্রতিস্থাপিত মুখে নেক্রোসিস দেখা দেয়, অর্থাৎ সেই মুখের টিস্যুগুলো মরে যেতে থাকে। ফলে তার সেই বসিয়ে দেয়া মুখটিকে কেটে বাদ দিতে হয়। এর পর শুরু হয় তার মুখে নতুন করে বসানোর জন্য নতুন আরেকটি মুখের সন্ধান।

কিন্তু এমন দাতা পাওয়া যাচ্ছিল না যার মুখমণ্ডলকে জেরোমের শরীর ‘মেনে নেবে’। এই দুই মাস সময় জেরোমকে ‘মুখমণ্ডলবিহীন অবস্থায়’ জর্জ পম্পিডু হাসপাতালে একটি কক্ষে থাকতে হয়। এ সময়টা তার কোন মুখ ছিল না। তিনি কিছু দেখতে পেতেন না, শুনতে পেতেন না বা কোনো কথাও বলতে পারতেন না। এ অবস্থা চলেছে জানুয়ারি মাস পর্যন্ত। সেই মাসেই একজন দাতা পাওয়া যায় এবং দ্বিতীয় বারের মতো তার মুখমণ্ডল প্রতিস্থাপন করা হয়।

পর পর দুবার মুখমণ্ডল প্রতিস্থাপনের অপারেশন হয়েছে, পৃথিবীতে এমন একমাত্র ব্যক্তি হচ্ছেন এ জেরোম হ্যামন। এ অপারেশনের আগে বিশেষ চিকিৎসার মাধ্যমে তার রক্ত শোধন করা হয়। এখন জেরোম হ্যামনের নতুন মুখটি মসৃণ এবং নড়াচড়া করে না। তবে তার মাথার খুলি, চামড়া এবং চোখমুখ এখনো পুরোপুরি যথাযথ অবস্থানে আসে নি। তিনি এখনো হাসপাতালে। 

সেখান থেকেই এক সাক্ষাতকারে তিনি ফরাসি টিভিকে বলেন, তিনি আশাবাদী যে তিনি ভালোভাবেই সেরে উঠবেন। আমি আমার নতুন মুখকে মেনে না নিলে তা একটা ভয়াবহ ব্যাপার হতো। এটা আমার পরিচয়ের প্রশ্ন ।তবে যাই বলুন, আমার ভালো লাগছে, এটাই আমি।

তিনি আরও বলেন, আমার বয়েস ৪৩। আমার মুখ দাতার বয়েস ছিল ২২, তাই আমার বয়েসও এখন ২২।

অপারেশনটি করেছেন যে ডাক্তার সেই অধ্যাপক লরাঁ লাঁতিয়েরি বলেন, এখন আমরা জানি যে দু দুবার মুখ প্রতিস্থাপন সম্ভব, এটা এখন আর কোনো গবেষণার ব্যাপার নয়। তবে যার মুখে এ অপারেশন হয়েছে তার এই পুরো ব্যাপারটা সহ্য করার যে সাহস, তা সত্যি অসাধারণ, বলেন তিনি।

উত্তর ফ্রান্সেই প্রথম মুখমণ্ডল প্রতিস্থাপন অপারেশন হয়েছিল ২০০৫ সালে। এর পর বিশ্বের নানা দেশে প্রায় ৪০টি এমন অপারেশন হয়েছে।


বিডি

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71