বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮
বৃহঃস্পতিবার, ৫ই আশ্বিন ১৪২৫
 
 
তুরস্ক-পাকিস্তানের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্নের দাবি স্বাসাপের
প্রকাশ: ০৮:২৩ pm ১৮-০৫-২০১৬ হালনাগাদ: ০৮:২৩ pm ১৮-০৫-২০১৬
 
 
 


নিজস্ব প্রতিবেদক: একাত্তরে বাংলাদেশের মানবতাবিরোধী আপরাধের বিচার নিয়ে তুরস্ক-পাকিস্তানের কূটনৈতিক শিষ্টাচার বর্জিত আচরণ ও ঔদ্ধত্যের প্রতিবাদে  মানববন্ধন করা হয়েছে।

বুধবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে স্বাধীনতা সাংবাদিক পরিষদ (স্বাসাপ) আয়োজিত মানববন্ধনে তুরস্ক-পাকিস্তানের সঙ্গে বাংলাদেশের কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্নের দাবি জাননো হয়।

কয়েকশত সাংবাদিক স্বত:স্ফূর্ত ভাবে এ মানববন্ধনে অংশ নেন। কর্মসূচী শেষে পাকিস্তানের পতাকায় অগ্নি সংযোগ করে প্রতিবাদ ও ঘৃণা জানান সংগঠনের নেতা-কর্মিরা। 
সাংবাদিক বরুন ভৌমিক নয়নের সভাপত্বিতে ও সাংবাদিক হামিদ মোহাম্মদ জসিমের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি মুহম্মদ শফিকুর রহমান।

এছাড়া, বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক মহাসচিব আব্দুল জলিল ভূইয়া, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কুদ্দুস আফ্রাদ, জাতীয় প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক স্বপন সাহা, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সহ-সভাপতি আতিকুর রহমান চৌধুরী, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের যুগ্ম সম্পাদক শাহানা শিউলী, জন কল্যাণ সম্পাদক উম্বুল ওয়ারা সুইটি, মাহমুদুর রহমান খোকন, মাহাবুব রেজা, তাপস রায়হান প্রমুখ।

সভায় বক্তারা পাকিস্তান ও তুরস্কের ঔদ্ধত্যের প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়ে বলেন, দেশ দুইটি বাংলাদেশের আভ‌্যন্তরীন বিষয়ে কূটনৈতিক রীতি-নীতি লঙ্ঘন করে অনেক দিন ধরেই নাক গলাচ্ছে। আন্তর্জাতিক অঙ্গণে মিথ্যা প্রচারনা চালিয়ে বাংলাদেশের স্বাধীনতা বিরোধী চক্রকে মদদ দিয়ে চলেছে। কুখ্যাত নিজামীকে 'ইসলামিক' নেতার তকমা পড়িয়ে বাংলাদেশের অসাম্প্রদায়িক ভাবমূর্তির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে। স্বাধীনতা বিরোধীদের রাজনীতি নিষিদ্ধের দাবি জানিয়ে বক্তারা আরও বলেন, তারা আইন আদালত মানে না, বিচার মানে না। তাই এ দেশে রাজনীতি করার কোনও অধিকারও তাদের থাকতে পারে না। 

শফিকুর রহমান বলেন, মুক্তিযুদ্ধের মধ্যদিয়ে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে। সেদিনের ওই যুদ্ধে সাংবাদিকরাও শহীদ হয়েছেন। তাই, আজ আমরা নিশ্চুপ বসে থাকতে পারি না। তিনি বলেন, মানবতাবিরোধীদের বিচার প্রকাশ্যে ও উন্মুক্ত আদালতে হয়েছে। সারা পৃথিবির মানুষ বলেছে স্বচ্ছ বিচার হয়েছে। দেশী বিদেশী সকল মিডিয়ার উদ্দেশে তিনি বলেন, যাদের বিচার হচ্ছে এবং দণ্ডাদেশ কার্যকর করা হয়েছে, তারা সবাই ঘৃণীত যুদ্ধাপরাধী। এরা কোন আলেম-ওলামা নন। তারা একাত্তরে নারী-শিশু-যুবক-বুদ্ধিজীবী হত্যার সঙ্গে জড়িত। 
সমাবেশ শেষে জয়বাংলা ও জয় বঙ্গবন্ধু স্লোগান দিয়ে পাকিস্তানের পতাকায় অগ্নি সংযোগ করা হয়। 

এইবেলা ডটকম/ আরকেএম

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71