সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮
সোমবার, ৯ই আশ্বিন ১৪২৫
 
 
নওগাঁয় ডাক্তারের ভুল অপারেশনে এক শিশুর মৃত্যু
প্রকাশ: ০৮:৪৪ pm ১৫-০৪-২০১৮ হালনাগাদ: ০৮:৪৪ pm ১৫-০৪-২০১৮
 
নওগাঁ প্রতিনিধি:
 
 
 
 


নওগাঁয় একটি বে-সরকারী ক্লিনিকে ডাক্তারের ভুল অপারেশনে আল এখলাস (৮) নামের এক শিশুর মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে। এখলাস জেলার আত্রাই উপজেলার দিঘা উত্তরপাড়া গ্রামের শুকবরের ছেলে। সে স্থানীয় শুটকীগাছা কেজি স্কুলের প্রথম শ্রেনীর ছাত্র। 

শিশুর স্বজনরা ও এলাকাবাসীরা ক্লিনিক ঘেরাও ও ক্লিনিকের আসবাবপত্র ভাংচুর করে। পরে তারা ডাক্তার ও ক্লিনিকের মালিকের বিচার দাবী করেছে। এ ঘটনার পর অভিযুক্ত ডাক্তার ও ক্লিনিক মালিক শাহ মোঃ নুরুল ইসলাম প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে পালিয়ে গেছে। 

এলাকাবাসীর অভিযোগ, বৈধ কাগজপত্র ছাড়াই একটি বাসা ভাড়া নিয়ে অবৈধভাবে ক্লিনিক খুলে ব্যবসা করছে। আর মাঝে মধ্যেই এমন মৃত্যুর শিকার হচ্ছে সাধারন মানুষ।

নিহতের পিতা শুকবর ও স্বজনরা জানান, শনিবার বেলা ৩টার সময় তার ছেলেকে নিয়ে গলায় টনসিল রোগ নিরাময়ের জন্য শহরের চকএনায়েত মহল্লায় বেসরকারী ক্লিনিক শাহ নার্সিং হোম এন্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে নাক, কান ও গলা বিশেষজ্ঞ ডাঃ আসাফুৎদ্দৌলা নিকট দেখায়। ডাক্তারের সিদ্ধান্ত মোতাবেক ওই ক্লিনিকে সাড়ে ৬ হাজার টাকায় অপারেশনের চুক্তিতে ভর্তি করায় বেলা ৩টার দিকে। টাকা বুঝিয়ে নিয়ে রাত সাড়ে ১০টার দিকে অপারেশন করায় ওই ডাক্তার। অপারেশনের পর রোগীর আর জ্ঞান ফিরে আসেনি। ডাক্তারকে বললে একটু পরে জ্ঞান ফিরবে বলে বিভিন্ন টালবাহানা করে। পরে ডাক্তার ওই রোগীকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করে। এ্যাম্বুলেন্সে রোগীকে তুলে দিয়ে ওই ডাক্তার, ক্লিনিকে তালা দিয়ে কর্মকর্তা কর্মচারীসহ সবাই পালিয়ে যায়।

রাজশাহী মেডিকেল হাসপাতালে রোগীকে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার শিশুটিকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। ৬/৭ ঘন্টা পূর্বেই রোগী মারা গেছে। তারা মৃত রোগীকে নিয়ে ভোরে ওই ক্লিনিকে এসে দেখে তালাবদ্ধ। নিহতের স্বজনরা ক্লিনিক ঘেরাও করে রাখে। অপারেশনের সময়  ডাক্তার ছিল না। শিশুর স্বজনদের অভিযোগ শিশুকে অতিমাত্রার ডোজ দিয়ে অজ্ঞান করা হয়। অপারেশন করার আগেই শিশু সুস্থ্য ও স্বাভাবিক ছিল। টনসিলের ব্যথা ছাড়া কোনই অসুখ ছিল না শিশু এখলাসের। ওই ডাক্তার ৫ বছর পূর্বে নওগাঁ হাসপাতালে থাকাকালীন সময়ে ওই ক্লিনিকে রোগী দেখতেন এখন ক্লিনিক রংপুরে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বদলী হলেও সপ্তাহে শুক্রবার সন্ধ্যা থেকে রবিবার বেলা ১টা পর্যন্ত রোগী দেখেন ও অপারেশন করেন বলে সূত্রে জানা গেছে।

এলাকাবাসীরা জানায়, ক্লিনিক হওয়ার মতো কোন উপযোগী না হওয়ার পরও এমন নাম সর্বস্ব প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা হয়েছে। নওগাঁ জেলা সদরে প্রায় ২৮টি প্রাইভেট ক্লিনিক রয়েছে। যার মধ্যে প্রায় ১০টির বৈধ কাগজ পত্র নেই। এসব প্রতিষ্ঠানে মাঝে মধ্যেই অপচিকিৎসার শিকার হয়ে প্রাণ হারাচ্ছেন অনেকে।

এ ব্যাপারে নওগাঁর সিভিল সার্জন ডা: মোমিনুল হক জানান, নাম সর্বস্ব ক্লিনিক বন্ধসহ অপচিকিৎসা বন্ধে ব্যবস্থার কথা জানান।

নওগাঁ সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ সুমিত কুমার কুন্ডু জানান, শিশু মৃত্যুর এ ঘটনার দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এসব অপতৎপরতা রোধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি। 


এমসি/বিডি


 

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71