রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮
রবিবার, ৪ঠা অগ্রহায়ণ ১৪২৫
 
 
নাচোলে জননী ক্লিনিকে আবারও ভুল অপারেশনে রোগীর মৃত্যু
প্রকাশ: ০৭:২৮ pm ২০-০৭-২০১৭ হালনাগাদ: ০৭:২৮ pm ২০-০৭-২০১৭
 
ইমরান, চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি :
 
 
 
 


চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোলে জননী ক্লিনিকে আবারও ভুল অপারেশনে এক কিশোরীর মৃত্যু হয়েছে। মৃত কিশোরী নাচোল উপজেলার নেজামপুর ইউপির বাইপুর জাহিদপুর গ্রামের নাসিরুদ্দিনের মেয়ে নাহিদা খাতুন (১৪)। 

এ ঘটনায় ভূয়া চিকিৎসককে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃত চিকিৎসক নওগাঁ জেলার বদলগাছি উপজেলার মৃধাপাড়া জগদীশপুর গ্রামের আবু বাক্কার সিদ্দিকির ছেলে মাহফুজুর রহমান (২৭)। বুধবার দিবাগত গভীর রাতে ভূয়া চিকিৎসক মাহফুজুর রহমানকে আটক করা হয়। 

নাহিদার পরিবার ও নাচোল জননী ক্লিনিক এন্ড ডায়গনষ্টিক কর্তৃপক্ষ সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার নেজামপুর ইউপির বাইপুর জাহিদপুর হাটবাকইল গ্রামের নাসিরুদ্দিনের মেয়ে নাহিদা খাতুন (১৪) পেটের ব্যাথা নিয়ে গত ১৭ জুলাই বিকেলে ক্লিনিকে ভর্তি হয়। প্রকৃত নাম মাহফুজুর রহমান হলেও ডাঃ মাসুদ রানা বাদল ছদ্দনামে পরিচিত ওই ক্লিনিকের চিকিৎসক (এমবিবিএস) পরীক্ষান্তে (আলট্রাসনোগ্রাফির পর) ওই রোগিকে রাত সাড়ে ৯টায় এপেন্ডিসাইট অপারেশন করেন।

অপারেশনের পর ১৮ জুলাই বিকালে ওই রোগির শরীরের তামমাত্রা বেড়ে যায়। কর্তৃপক্ষ জানান, এ বিষয়ে ওই ডাক্তার রোগীকে জ্বরের ওষুধ দেন। কিন্তু তাতেও জ্বরের তীব্রতা না কমায় এবং রোগির অবস্থা শোচনীয় পর্যায়ে পৌঁছিলে বুধবার বিকাল ২টা ৩০ মিনিটে ক্লিনিকের ডাক্তার রামেক হাসপাতালে রেফার্ড করেন। কিন্তু রামেক হাসপাতালে পৌঁছানোর পূর্বেই পথিমধ্যে নাহিদা খাতুনের মৃত্যু হয়। মৃত নাহিদার আত্মীয় স্বজনরা মৌখিকভাবে বিষয়টি নাচোল থানায় জানালে থানা পুলিশ জননী ক্লিনিক এন্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টার ঘিরে অবস্থান করলে ওই ডাক্তার পালিয়ে যায়। 

এদিকে একটি সূত্রমতে ২০১৩ সালে এমবিবিএস পাসের সনদপত্রে ওই ডাক্তার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে পাস করেছে বলে দেখা যায়। তবে ডাঃ মাসুদ রানা বাদলের দাখিল করা এই সনদের প্রকৃত ডাক্তার সিরাজ গঞ্জের সৈয়দ মুনসুর আলী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কর্তব্যরত আছেন বলে একটি নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে। তাই মাহফুজুর রহমান ওরফে মাসুদ রানা বাদল অন্যের সনদে ডাক্তারী পেশা চালিয়ে যাচ্ছিলেন বলে অনেকে সন্দেহ করছেন। এদিকে, নিহত নাহিদার আত্মীয় স্বজনদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে নাচোল থানা পুলিশ এই ভূয়া চিকিৎসককে আটক করে। 

এব্যাপারে নাচোল থানার অফিসার ইনচার্জ আনোয়ারুল ইসলাম জানান, ভূয়া চিকিৎসক মাহফুজুর রহমান অন্য নামে পরিচয় দিয়ে নাচোলের জননী ক্লিনিকে চিকিৎসা করে আসছিল। ভুল চিকিৎসায় নাচোলের নেজামপুর ইউনিয়নের নাসিরুদ্দিনের মেয়ে কিশোরী নাহিদা আক্তার(১৪) ১৯ জুলাই মারা যায়। উল্লেখ্য, এর আগেও একাধিকবার এই জননী ক্লিনিকে ভুল অপারেশনে রোগীর মৃত্যু হয়।    
 

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71