মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০১৯
মঙ্গলবার, ১০ই বৈশাখ ১৪২৬
সর্বশেষ
 
 
নিজেকেই দোষছেন ওয়ার্নারের স্ত্রী ক্যান্ডিস
প্রকাশ: ০৪:১৪ pm ০২-০৪-২০১৮ হালনাগাদ: ০৪:১৪ pm ০২-০৪-২০১৮
 
এইবেলা ডেস্ক
 
 
 
 


বল বিকৃতি-কাণ্ডে নির্বাসনের পর সাংবাদিক সম্মেলনে এসে কান্নায় ভেঙে পড়েছেন স্টিভ স্মিথ এবং ডেভিড ওয়ার্নার।

শনিবারই ক্রিকেট বিশ্বের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিয়েছেন ওয়ার্নার। স্বামীকে কান্নায় ভেঙে পড়তে দেখে নিজেকেই দুষছেন ওয়ার্নারের স্ত্রী ক্যান্ডিস।

ওয়ার্নার সাংবাদিক সম্মেলনে সব প্রশ্নের উত্তর না দিলেও অস্ট্রেলিয় সংবাদমাধ্যমকে ক্যান্ডিস জানিয়েছেন, "ওয়ার্নারের এই অবস্থার জন্য আমিই দায়ী। যা ভেবে আমি শেষ হয়ে যাচ্ছি। পুরো ঘটনাটাই আমাকে খুব কষ্ট দিচ্ছে।"

ঘটনার সূত্রপাত গত মাসের ৪ তারিখ। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ডারবানে প্রথম টেস্টে চা বিরতি চলছিল। ওই সময়ে দক্ষিণ আফ্রিকার উইকেটরক্ষক কুইন্টন ডি কক ওয়ার্নারের স্ত্রী সম্পর্কে অশ্লীল মন্তব্য করেন। ওয়ার্নারও ব্যাপারটিকে সহজভাবে নিতে পারেননি। উত্তপ্ত বাক্যবিনিময় করেন ডি ককের সঙ্গে। অবস্থা বেগতিক দেখে উসমান খাজা ও স্টিভেন স্মিথ ওয়ার্নারকে জোর করে সেখান থেকে নিয়ে যান। এখানেই শেষ নয়। দক্ষিণ আফ্রিকার কয়েকজন সমর্থক ক্যানডিসের সাবেক বয়ফ্রেন্ড রাগবি খেলোয়াড় সনি বিল উইলিয়ামসের মুখোশ পরে মাঠে আসে।

তৃতীয় টেস্টেই ওয়ার্নার অভিযুক্ত হলেন বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারিতে। এই দোষে দল থেকে এক বছরের জন্য সরিয়েও দেওয়া হয় তাঁকে। এই ঘটনার জন্য নিজেকেই দোষী মনে করছেন ক্যানডিস। তিনি আবেগাপ্লুত হয়ে সিডনি সানডেকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘আমার মনে হয়, এটা আমার দোষের কারণে হয়েছে এবং এই অপরাধবোধ আমাকে আচ্ছন্ন করে রেখেছে। সত্যিই আমি আর পারছি না।’

প্রথম টেস্টের ওই ঘটনাকে ইস্যু বানাতে চান না বলেও দাবি করেন ক্যানডিস। একাধারে সার্ফার, মডেল ও অভিনেত্রী বলেন, ‘ওয়ার্নারের কাছে আমি এবং আমার সন্তানদের নিরাপত্তাই প্রধান। ওই দিন (প্রথম টেস্ট) খেলার পরে বাসায় ফিরে ডেভ আমাকে কান্নারত অবস্থায় দেখে এবং বাচ্চাগুলো আমার মুখের দিকে তাকিয়ে ছিল। এই ব্যাপারটা তাঁকে ব্যথিত করে।’

শোনা যাচ্ছে ,শাস্তি পুনর্বিবেচনার জন্য ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার কাছে আবেদন করতে পারেন ডেভিড ওয়ার্নার।

নি এম/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71