বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০১৯
বৃহঃস্পতিবার, ৫ই বৈশাখ ১৪২৬
সর্বশেষ
 
 
নিষিদ্ধ রাশিয়ার প্রথম স্বর্ণ
প্রকাশ: ০৬:৪২ pm ০৭-০৮-২০১৬ হালনাগাদ: ০৬:৪২ pm ০৭-০৮-২০১৬
 
 
 


স্পোর্টস ডেস্ক :ডোপ কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে রিও অলিম্পিকে প্রায় নিষিদ্ধ পুরো রাশিয়া। নৈতিক অবস্থান ঠিক রাখতেই হয়তো আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি আংশিক নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়ে কিছু অ্যাথলেটকে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করার সুযোগ দিয়েছে রিওতে। তাতেই গেমসের দ্বিতীয় দিনে স্বর্ণ ঘরে তুলে নিয়েছে নিষিদ্ধ দেশটির জুডো খেলোয়াড় বেসলাম মুদরানভ। জুডোর ৬০ কেজি ওজন শ্রেণিতে স্বর্ণ জয় করে নিষিদ্ধ হয়ে যাওয়া রাশিয়ান অ্যাথলেটদের মুখে হাসি ফুটিয়েছেন তিনি। 

রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় ডোপ করানোর দায়ে পুরো রাশিয়াকেই অলিম্পিকে নিষিদ্ধ করতে চেয়েছিল আন্তর্জাতিক ডোপিং এজেন্টি ওয়াডা। তবে যাছাই বাছাই করে পুরো নয়, আংশিক নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়ে কিছু অ্যাথলেটকে রিওতে যাওয়ার সুযোগ করে দেয় আইওসি। মোট ১১৮ জন অ্যাথলেটকে নিষিদ্ধ করা হযেছে। অংশ নিচ্ছে ২৭১ জন। সর্বশেষ ১০৪ বছরে এটাই রাশিয়ার সবচেয়ে ক্ষুদ্র অলিম্পিক দল। তবে যারা সুযোগ পেয়েছেন, তাদের মধ্য থেকে শুরুতেই সুযোগটা কাজে লাগিয়ে ছাড়লেন জুডোকা বেসলাম। 

অলিম্পিকের পদক তালিকায় লড়াই হয় অল্প কযেকটি দেশের। তার মধ্যে প্রথমদিকে নাম থাকে রাশিয়ার। যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া, চীন, রাশিয়া, ইংল্যান্ড- এই কয়েকটি দেশই থাকে শীর্ষ স্বর্ণজয়ী দেশ। ২০১২ লন্ডন অলিম্পিকেও রাশিয়ার চেয়ে বেশি সোনা জিতেছে মাত্র তিনটি দেশ। এবার রাশিয়াকে ডোপের ফাঁদে ফেলে স্বর্ণগুলো জিতে নেবে নিশ্চিত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কিংবা অস্ট্রেলিয়ানরা। 

পুরুষদের ৬০ কেজি ওজন শ্রেণিতে বেসলাম স্বর্ণ জয়ের পথে হারিয়েছেন কাজাখস্তানের জুডোকা, বর্তমান বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ইয়েলডস স্মেতভকে। তিনি আবার হারিয়েছিলেন গ্রেট ব্রিটেনের ফেভারিট অ্যাশলে ম্যাকেঞ্জিকে। 

স্বর্ণ জয়ের পর বেসলাম মুদারনব আত্মবিশ্বাসী, তার দেশের অ্যাথলেটরা সোনা জয়ের আরও অনেক উপলক্ষই এনে দেবেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের দেশ অনেক চাপের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে, প্রথম দিনেই সোনা জেতা আমাদের জন্য তাই বিশেষ কিছু। আমি নিশ্চিত, এটাই আমাদের শেষ সোনা নয়। আমরা এখানে প্রস্তুত হয়েই এসেছি। চাপের মুখে ভেঙে পড়তে আসিনি।’

রিওতে আসার আগে ১০ দিন পর্তুগালে অনুশীলন করেছেন মুদরানভ। অলিম্পিক থেকে রাশিয়াকে নিষিদ্ধ করা হবে, এমন একটা গুঞ্জন তখন জোরালো হচ্ছিল। তবে মুদরানভ আত্মবিশ্বাসী ছিলেন, ‘আমরা নিশ্চিত ছিলাম পুরো দেশকে কখনোই একসঙ্গে নিষিদ্ধ করা হবে না। তবে এটা ঠিক, সিদ্ধান্ত জানানোর দিন সবাই একটু স্নায়ুচাপে ভুগছিল।’

এইবেলা ডটকম/আরকেএম

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71