সোমবার, ১৭ জুন ২০১৯
সোমবার, ৩রা আষাঢ় ১৪২৬
 
 
নীলফামারীতে নকল সার কারখানার সন্ধান
প্রকাশ: ০৩:১৩ pm ২৭-১১-২০১৭ হালনাগাদ: ০৩:১৩ pm ২৭-১১-২০১৭
 
এইবেলা ডেস্ক:
 
 
 
 


নীলফামারীর ডিমলায় প্রশাসনের অভিযানে নকল সার কারখানার সন্ধান মিলেছে। অভিযানকালে বিপুল পরিমান নকল সার আটক করলে ঘটনার সাথে জড়িত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। এ ঘটনার ২জনকে আসামী করে মামলা করেছেন উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার।

পুলিশ জানায়, রবিবার সন্ধায় নীলফামারীর ডিমলা উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার তপন কুমার রায় গোপনে সংবাদ পান যে, উপজেলার বালাপাড়া ইউনিয়নের ডাঙ্গার হাটে একটি নকল সার কারখানায় নকল ও ভেজাল সার তৈরী করে তা বাজারজাত করা হচ্ছে। এমতাবস্থায় উপজেলা নিবার্হী অফিসার ও ভ্রাম্যমান আদালতের নিবার্হী ম্যাজিষ্ট্রেট নাজমুন নাহারের নেতৃত্বে পুলিশের সহায়তায় সেখানে অভিযান পরিচালনা করা হয়।
 
এ সময় এমএসএগ্রো ম্যার্কেটিং নামে একটি নকল সার কারখানার সন্ধান মিলে। এ কারখানা থেকে ডলোমাইট ৪০ কেজির ৮০ বস্তা, ১১০ প্যাকেট, জিংক সালফেট মনোহাইড্রেট ১ কেজির ১২০ প্যাকেট, তেজি জৈব সার ৫০ কেজি করে ৩ বস্তা, এমক্লোব ১ কেজি ওজনের ২৫০প্যাকেট, ইটের গুড়া ৫০ কেজি ওজনের ২ বস্তা, ডায়াজিনন ১ কেজি ওজনের ২৪০ প্যাকেট, প্যাকিং মেশিন ১টি, ডিজিটাল স্কেল ১টি উদ্ধার করা হয়।
 
পরে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারন কর্মকর্তা তপন কুমার রায় বাদী হয়ে বালাপাড়া ইউনিয়নের ছাতনাই বালাপাড়া গ্রামের চাবুল ইসলামের পুত্র হাসনাত কবির স্বপন (৪০) ও এনামুল হক বসুনিয়ার পুত্র রানা ইসলাম (৩৭) কে আসামী করে একটি মামলা করেন।

ডিমলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নাজমুন নাহার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ছাতনাই বালাপাড়া গ্রামের চাবুল হোসেনের ছেলে হাসনাত কবির স্বপনের মালিকানাধীন এই ভেজার সার কার খানার সার তৈরির মাটি, ইটের গুড়া, বালু, রং এবং বিভিন্ন কোম্পানীর নামে ছাপানো সারের প্যাকেট পাওয়া গেছে। এ সময় ভেজার সারের মালিক অভিযানের আগেই পালিয়ে গেছে। ভেজার সার কারখারটি সিলগালা করা হয়েছে।

আরডি/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71