সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮
সোমবার, ৯ই আশ্বিন ১৪২৫
 
 
নীলফামারীতে শিক্ষকদের উপড়ে হামলা জড়িতদের বিচারের দাবীতে ক্লাস বর্জন
প্রকাশ: ০৯:০৫ pm ২২-০৫-২০১৭ হালনাগাদ: ০৯:০৫ pm ২২-০৫-২০১৭
 
 
 


নীলফামারী প্রতিনিধি: নীলফামারীর ডোমারে একটি বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের উপড়ে হামলার প্রতিবাদে এবং হামলাকারীদের বিচারের দাবীতে ক্লাস বর্জন করে বিক্ষোভ করেছে বিদ্যালয়টির শিক্ষার্থীরা।

সোমবার সকাল ১০টা থেকে বিকাল সাড়ে তিনটা পর্যন্ত উপজেলার গোমনাতী উচ্চ বিদ্যালয় চত্ত্বরে ওই কর্মসূচি পালন করে শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীরা জানায়, গত ২০ মে শনিবার সকাল ১১টার দিকে ২০/২৫জন বর্হিরাগত ব্যক্তি অর্তকিতভাবে বিদ্যালয়ে প্রবেশ করে বিদ্যালয়েল শিক্ষকদের উপড় হামলা চালায়। এতে কয়েক জন্য শিক্ষক আহত হন।

ওই বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্র লক্ষ্মীকান্ত বলেন, ‘জানি না কি কারণে তারা আমাদের শিক্ষকদের ওপড় এমন ভাবে হামলা চালিয়েছে। তবে যারা এই হামলা চালিয়েছে তারা অত্যান্ত খারাপ প্রকৃতির মানুষ।’

একই শ্রেণীর শিক্ষার্থী ফারজানা আফরোজ বলেন, ‘যতক্ষণ পর্যন্ত হামলাকারীদের বিচার হবে না ততক্ষণ আমরা কেউ ক্লাসে ফিরবো না। আমাদের আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।’

গোমনাতি উচ্চ  বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এজবুল হক শাহ জানান, গেল বছরের ২২ ডিসেম্বর বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

এর সভাপতি নির্বাচনের জন্য গত ২৯ ডিসেম্বর নির্বাচিত সদস্যদের একটি সভার আহবান করা হয় কিন্তু কোরমা সংকটের কারণে ওই সভায় সভাপতি নির্বাচন করা সম্ভব হয়নি।

চলতি বছরের ২ মার্চ দিনাজপুর শিক্ষাবোর্ড বিশেষ পরিস্থিতিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে সভাপতি করে ১১ সদস্য বিশিষ্ঠ একটি ম্যানেজিং কমিটি ঘোষণা করলে ১১ এপ্রিল বিদ্যালয়ের অভিভাবক সদস্য আবুল কাশেম ভুট্টো হাইকোর্টের ওই কমিটির বিরুদ্ধে রিট আবেদন করেন।

রিট আবেদনের প্রেক্ষিতে মাহামান্য হাইকোর্ট ১১ সদষ্যের ওই কমিটি তিন মাসের জন্য স্থগিত করে পরিচ্ছন্ন একটি সভার মাধ্যমে সভাপতি নির্বাচনের নির্দেশ দেয়।

মহামান্য হাই কোটের আদেশ অনুযায়ী চলতি বছরের ২০ মে সকাল ১১ টায় সভাপতি নির্বাচনের একটি সভা আহবান করা হয়।

ওই সভায় ৯জন অভিভাক সদস্যে মধ্যে পাঁচজন সদস্য উপস্থিত ছিলেন  কিন্তু কোরাম পূরণ না হওয়ায় সভা বাতিল করা হলে দুপুর আনুমানিক একটার দিকে এলাকার প্রভাবশালী আহমেদ ফয়সাল শুভর ও অভিভাক সদস্য আবুল কাশেম ভূট্ট’র নেতৃত্বে ২০/২৫জন বর্হিরাহগত ব্যক্তি বিদ্যালয়সহ শিক্ষকদের উপড় হামলা চালায়। এতে বিদ্যালয়ের শিক্ষক বিমল চন্দ্র রায় ও হরিপদ রায় আহত হন ।

এছাড়াও বিদ্যালয়ে মহিলা শিক্ষক সাবিনা ইয়াছমিনকে লাঞ্চিত করেন অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে হামলাকারীরা। এ ঘটনায় ওই দিনই ডোমার থানায় একটি অভিযোগ করি বলে জানান প্রধান শিক্ষক।

তবে অভিযুক্ত আহমেদ ফয়সাল শুভ তার বিরুদ্ধে হামলার অভিযোগ অস্বিকার করে বলেন, ২০ তারিখের সভায় অভিভাক সদস্যরা আমাকে সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত করেন।

কিন্তু  বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও শিক্ষক প্রতিনিধি তিন শিক্ষক সেই সিদ্ধান্ত না মেনে সভা বাতিল করেন। এনিয়ে অভিভাক সদস্যরা ক্ষোভ প্রকাশ করে  সভায় কক্ষ ত্যাগ করেন।

কিন্তু প্রধান শিক্ষকসহ অন্যান্য শিক্ষকরা বিষয়টি ভিন্নখাতে নিতে কলেজে হামলার মিথ্যা নাটক সাজিয়ে আমাদেও বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করেছেন থানায়।

ওই ঘটনার প্রেক্ষিতে সোমবার থেকে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জন কওে বিদ্যালয়ে অবস্থান ধর্মঘট পালন করছেন।’

সোমবার বিকালে ডোমার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্র্তা মো. ইব্রাহিম খলিল বলেন, ‘গত ২০ মে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বাদী হয়ে একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন। বিষয়টি তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

 

এইবেলাডটকম/মোমেন/পিসিএস 

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71