সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮
সোমবার, ৫ই অগ্রহায়ণ ১৪২৫
 
 
নীলফামারীতে সবজির দাম কমলেও বেড়েছে কাঁচা মরিচের দাম
প্রকাশ: ০২:৩০ pm ০৭-১০-২০১৭ হালনাগাদ: ০২:৩০ pm ০৭-১০-২০১৭
 
নীলফামারী প্রতিনিধি:
 
 
 
 


নীলফামারীর খুচরা ও পাইকারী বাজারে কমেছে সবজী ও মাছের দাম। তবে দ্রুত বেড়েছে কাঁচা মরিচের দাম।

শুক্রবার সকালে জেলা শহরের কিচেন মার্কেট, বড় বাজার, সাহেব বাজার, মাধার মোড়সহ কাঁচা বাজার ঘুরে দেখা গেছে, আদা ১০ টাকা কমে ৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। তবে প্রতি কেজিতে ৪৫ টাকা বেড়েছে কাঁচা মরিচ। বর্তমান বাজারে এক কেজি মরিচের দাম ১৬০ টাকা কিনতে হচ্ছে। মরিচের ঝাল ক্রেতাদের কান ঝালাপালা করে তুলছে।

জেলা শহরের কিচেন মার্কেটের সবজি বিক্রেতা আবু তাহের বলেন, বন্যার ক্ষতি পুশিয়ে নিতে বাজারের আগাম সবজি উঠতে শুরু করেছে। তাই গত কয়েক দিনের ব্যবধানে সবজির অনেকটা দামও কমেছে। কাঁচা মরিচের উৎপাদন বন্যার পানিতে কম (ব্যাহত) হওয়ায় আমদানী হচ্ছে না। যেটুকু  ভারত থেকে আসছে তা পর্যাপ্ত  নয়।

কথা হয়, জেলার মিরগঞ্জ ডিগ্রি কলেজের শিক্ষক হাফিজার রহমানের সাথে, তিনি বলেন অতি বৃষ্টি ও ভারী বর্ষনের ফলে এলাকায় বন্যা হওয়ায় চাষিরা ঘুরে দাঁড়াতে আগাম সবজি চাষ করেছে। এরই ফলে বাজারে নতুন সবজি উঠতে শুরু করেছে। যার কারনে সবজি বাজার সহ সব কিছুতেই এর প্রভাব লক্ষ করছি। 

জলঢাকা উপজেলার মিরগঞ্জ হাটে দেখা যায়, প্রতি কেজি শসা ৩৪ টাকা, লম্বা বেগুন ৩০ টাকা, গোল বেগুন ৩৫ টাকা, সিম ৫০ টাকা, জিঙ্গা ৬০ টাকা, মুলা ২৮ টাকা, চিচিঙ্গা ৫৫ টাকা, আলু দেশী ২০ টাকা, অন্যান্য আলু ২২  থেকে ২৫ টাকা, গাজর ৪৮ টাকা, করল্যা ৪০ টাকা, পটোল ৩০ টাকা, পেপে ১৫ টাকা, কচুর লতি ৩০টাকা, বরবটি ৪০ টাকা, মটরশুটি ৬০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। 

এছাড়া মাঝারি আকৃতির ফুল কপি প্রতি কেজি ৫০ টাকা, পাতা কপি প্রতি কেজি ৪৫ টাকা এবং প্রতি পিচ হিসেবে লাউ ১টি ৩০ টাকা, জালি কুমড়া ৪০ টাকা, প্রতি হাঁলি কাঁচকলা ২০-২৫ টাকা, লেবু প্রতি হালি ১৫ থেকে ২০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে, লালশাক, লাউশাক, পালংশাক, মুলা শাক, কুমড়া শাক, ডাটা শাকসহ নানা ধরনের শাকের আঁটি ১০ থেকে ১৫ টাকা বিক্রি হচ্ছে। পুঁদিনা পাতা ১০০ গ্রাম ১৫ টাকা, ধনে পাতা প্রতি ১০০ গ্রাম ২০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। প্রতি কেজি রসুন ১৬০ পাকা, দেশী রসুন ১২০ টাকা,দেশী মশুর ডাল ১৩৫ টাকা, ভারতীয় মুসুর ঢাল ১২০ টাকা, খেশারীর ডাল ৭০ টাকা, মুখ ডাল ১২০ টাকা,গোটা বুট ৮৪ টাকা, বুট ডাল ৮০ টাকা, চিনি ৫৬ টাকা ও  প্রতি লিটার সোয়াবিন (খোলা) ৯০ থেকে ১১৫ টাকা বিক্রি হচ্ছে।

চাল মিনিকেট প্রতিকেজি ৪৮ থেকে ৫০ টাকা, মোটা চাল ৩৫ থেকে ৪০ টাকা, পাইজাম ৪২ টাকা, আটাশ ৪০টাকা, চিনি গুড়া ৯০ থেকে ১১০ টাকা,কালো জিরা ৮০ থেকে ৯৬ টাকা বিক্রি হচ্ছে। 

অপরদিকে, মাছের বাজারও সস্তা, দেশী আইর মাছ ৩০০ টাকা, পাবদা ৫৫০ টাকা, দেশি পুটি ১৬০ টাকা, ইটা মাছ ১৮০, পাঙ্গাশ ১২০, রই ২৫০ থেকে ২৮০, মৃগেল ১৮০, সরপুটি ১২০, বড় বৃগেট ১৫০, খাটা ৩৫০, তেলাপিয়া ১০০, মাগুর মাছ ৫০০, সিং ৫২০, কই ৩০০, টাকি ১৬০, টেংরা ৪০০ থেকে ৪২০, মলাঢেলা ৩০০ টাকা, গছি মাছ ৪০০ ও সিলভার কার্প ১২০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। 

আবার, মাংশের বাজারও তুলনা মুলক ভাবে খুবই কম, গরুর মাংস ৩৮০ টাকা, খাসির মাংস ৫০০ থেকে ৫৫০ টাকা বিক্রি হচ্ছে। এক কেজি ওজনের প্রতিটি দেশী মুরগী ৩২৫ থেকে ৩৬০ টাকা, ব্রয়লার প্রতি কেজি ১১০ থেকে ১২৫ টাকা, লেয়ার মুরগি প্রতি কেজি ১৪০ টাকা, হাঁস ৩০০টাকা,ভেড়া ও ছাগলের মাংস ৪৫০ টাকা ও কবুতরের বাচ্চা ২৩০ থেকে ২৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এ ছাড়া শীত আসতে না আসতেই ফলের বাজার রমরমা। আপেল পাওয়া যাচ্ছে, ১৬০ থেকে ১৭০ টাকায়, মাল্টা ১৪০ টাকা, আঙুর ৪০০ থেকে ৪২৫ টাকা, প্রতি ডজন ছোট (চায়না) কমলা ১১০ টাকা, বড় সাইজ ২২০ থেকে ২৩৫ টাকা, বেদানা ২৫০, আমলকি ১০০ থেকে ১২০ টাকা এবং জলপাই প্রতিকেজি ৩০ থেকে ৩৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

নীলফামারী জেলা কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর উপ-পরিচালক জি এম ইদ্রিস বলেন, এবারে সবজি চাষ জেলায় লক্ষ্য মাত্রা ছিল চার হাজার ৫০ হেক্টর জমি। বন্যার ক্ষতি পুশিয়ে নিতে চাষিরা আগাম জাতের সবজি চাষ ওই লক্ষ্য মাত্রা ছাড়িয়ে চার হাজার ৬৫ হেক্টর জমিতে সবজি চাষ করা হয়েছে। 

এম/আরডি/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71