সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮
সোমবার, ৫ই অগ্রহায়ণ ১৪২৫
 
 
নীলফামারীর ডোমার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ পাঁচ নারী কর্মকর্তার সাফল্য
প্রকাশ: ০২:০৬ pm ২১-০১-২০১৭ হালনাগাদ: ০২:০৬ pm ২১-০১-২০১৭
 
 
 


নীলফামারী প্রতিনিধি : নীলফামারীর ডোমার উপজেলায় সরকারি চাকরিতে সাফল্যের প্রতিযোগিতায় পুরুষদের পাশাপাশি নারীরাও এগিয়ে যাচ্ছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ পাঁচ নারী সফলতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করে এলাকায় ব্যাপক সুনাম অর্জন করছেন। এরা হলেন- ডোমার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাবিহা সুলতানা, সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফুয়ারা খাতুন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার শাকেরিনা বেগম, উপজেলা মৎস্য অফিসার শারমিন আক্তার ও উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা শাহিনুর বেগম।

উপজেলা ১৭টি দপ্তরের মধ্যে সরকারের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ পাঁচটি দপ্তরের উপজেলা পর্যায়ে এই পাঁচ নারী তাদের যোগ্যতা প্রমাণ করে দায়িত্ব পালন করছেন। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা, বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ, জমিজমা বিরোধে নিষ্পত্তি, মাছ চাষে আগ্রহ সৃষ্টি, দরিদ্র নারীদের স্বাবলম্বী হিসাবে গড়ে তোলাসহ এলাকার উন্নয়নে এই পাঁচ নারী এক প্রান্ত হতে অপর প্রান্ত পর্যন্ত ছুটে চলছেন প্রতিদিন।

এছাড়া উপজেলা পরিষদের জরুরি সভাসহ প্রতিটি কর্মকান্ডে সভা-সেমিনার করছেন তারা। একদিকে স্বামী সংসার থাকলেও তাদের সরকারি কাজে দায়িত্ব পালনে কোনো বিঘ্ন ঘটাতে পারছে না। ১০ ইউনিয়ন ঘিরে ডোমার উপজেলার সাধারণ মানুষজন প্রতিটি কাজে এই নারীদের সহযোগিতার কথা তুলে ধরেন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সাবিহা সুলতানা ২০০৮ সালের ১৩ নভেম্বর সরকারি চাকরিতে প্রবেশ করেন সহকারী কমিশনার হিসাবে। তিনি পদোন্নতি পেয়ে ২০১৪ সালের ১ জুন নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) হিসাবে ডোমার উপজেলায় যোগদান করেন। এর আগে তিনি সদরের সহকারী কমিশনার (ভ’মি) হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

একইভাবে ফুয়ারা খাতুন ২০১২ সালের ৩ জুন সরকারি চাকরিতে প্রবেশ করে পদোন্নতি পেয়ে ২০১৬ সালের ২৪ আগস্ট ডোমার উপজেলায় সহকারী কমিশনার (ভূমি) হিসাবে যোগদান করেন। এছাড়া শাহিনুর খাতুন ২০১৫ সালের ১৭ ডিসেম্বর ডোমার উপজেলায় মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা হিসাবে প্রথম যোগদান করেন।

শারমিন আক্তার ২০১৬ সালের ১৩ অক্টোবর মত্স্য কর্মকর্তা হিসাবে তিনিও প্রথম ডোমার উপজেলায় যোগদান করেন। শাকেরিয়া বেগম ২০১৬ সালের ৪ ডিসেম্বর এখানে মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হিসাবে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। 

এই পাঁচ নারী কর্মকর্তা ডোমার উপজেলার স্থায়ী বাসিন্দা না হলেও সরকারি চাকরির দায়িত্ব পালন করতে এসে তারা ডোমার উপজেলাবাসীকে নিজের মতো ভেবে উন্নয়ন কর্মকান্ড পরিচালনা করছেন। এই পাঁচ নারী কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন নিয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক বসুনিয়া বলেন, দেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একজন নারী।

তিনি গোটা দেশ পরিচালনা করছেন। নারী নেত্রী প্রধানমন্ত্রীর মতো আজ আমরা ডোমারবাসী উপজেলা পরিষদে পাঁচটি গুরুত্বপূর্ণ দপ্তরে পাঁচজন নারী কর্মকর্তা পেয়েছি। তারা তাদের প্রতিটি কাজে-কর্মে সাফল্য দেখিয়ে চলেছেন। 

ডোমার পৌরসভার মেয়র মনছুরুল ইসলাম দানু বলেন, তারা অত্যন্ত আন্তরিক। তাদের দায়িত্বপূর্ণ কাজ দেখে অবাক হতে হয়। নারী হয়েও তারা দিন-রাত কাজ করছেন।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক খায়রুল আলম বাবুল বলেন, নারী আজ দেশ পরিচালনায় এগিয়ে যাচ্ছে। ডোমারের মতো উপজেলায় আজ পাঁচ নারী কর্মকর্তা যেভাবে তাদের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করে চলেছেন। 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাবিহা সুলতানা বলেন, আমি উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করছি। সেখানে ডোমারের সকল সেক্টরের মানুষজন আমাকে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে সহযোগিতা করছে। এতে ডোমার উপজেলার উন্নয়নে আমার কাজের গতি বাড়িয়ে দিয়েছে।

এইবেলাডটকম/মোমেন/এএস
 

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71