শুক্রবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯
শুক্রবার, ১০ই ফাল্গুন ১৪২৫
 
 
নোবেল শান্তি পুরস্কার পাচ্ছেন শ্রী শ্রী রবি শঙ্কর!
প্রকাশ: ০৯:৪০ pm ০৩-০২-২০১৬ হালনাগাদ: ১০:০৬ pm ০৫-০২-২০১৬
 
 
 


আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ২০১৬ সালে শান্তিতে নোবেল পুরস্কার পেতে যাচ্ছেন এক ভারতীয় সাধক। তিনি হলেন “দ্য আর্ট অব লিভিং ফাউন্ডেশন” নামের বিশ্বখ্যাত প্রতিষ্ঠানের প্রাণপুরুষ শ্রী শ্রী রবি শঙ্কর। শ্রী শ্রী রবি শঙ্কর একাধারে সনাতন ধর্মের আধ্যাত্মিক গুরু এবং শান্তির দূত হিসেবে বিশ্বজুড়ে সমাদৃত।

সম্প্রতি থমসন রয়টার্স ফাউন্ডেশনের বরাত দিয়ে হিন্দুস্থান টাইমস একটি রিপোর্ট পেশ করেছে। ১লা ফেব্রুয়ারি প্রকাশিত এ রিপোর্টে বলা হয়, “যাদের নাম নোবেল পাওয়ার জন্য প্রাথমিকভাবে লিপিবদ্ধ করা হয় নরওয়ের নোবেল ইন্সটিটিউট কখনো তাদের নাম প্রকাশ করে না। কিন্তু নোবেল পর্যবেক্ষকরা বলছেন, আমেরিকার প্রাক্তন গোয়েন্দা এডওয়ার্ড স্নোডেন এবং কলম্বিয়ার শান্তি আলোচনার দূতকে এই বছর নোবেলের জন্য মনোনীত করা হয়েছে।”

শান্তিতে নোবেল পুরস্কারের জন্য সম্ভাব্য ব্যক্তিদের নাম প্রতি বছর অক্টোবর মাসে মনোনয়ন দেওয়া শুরু হয় এবং তা শেষ হয় ফেব্রুয়ারি মাসের ১ তারিখে।


কলম্বিয়ায় শান্তি ফিরিয়ে আনতে শ্রী শ্রী রবি শঙ্কর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। ২০১৫ সালে শ্রী শ্রী রবি শঙ্কর কিউবা ভ্রমণ করেন। সেখানে রবি শঙ্কর বেশ কয়েকবার ফার্ক বিদ্রোহীদের সাথে আলোচনায় বসেন। ফার্ক হল কলম্বিয়ার একটি বিচ্ছিন্নতাবাদী দল। ফার্ক বিদ্রোহী গোষ্ঠী এবং কলম্বিয়ার সরকাররের সাথে একটি আস্থাজনক সম্পর্ক তৈরির সুকঠিন কাজটি শ্রী শ্রী রবি শঙ্কর করেছেন, যা দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশে শান্তি ফিরিয়ে আনতে সহায়ক ভূমিকা রেখেছে।

জাতিসংঘ এবং আমেরিকার কালো তালিকাভূক্ত সন্ত্রাসী সংগঠন ফার্ক। এরা ১৯৬৪ সাল থেকে কলম্বিয়ার সরকারি বাহিনীর সাথে সংঘর্ষে লিপ্ত। ২০১২ সালের নভেম্বর মাসে ফার্ক বাহিনী ঘোষণা করে তারা সরকারের সাথে শান্তি আলোচনায় বসবে এবং এর পেছনে বড় ভূমিকা রাখেন শ্রী শ্রী রবি শঙ্কর। ফার্ক বিদ্রোহীরা প্রায় পাঁচ দশক ধরে সংঘর্ষে লিপ্ত। এপর্যন্ত তারা প্রায় ২ লাখ মানুষকে হত্যা করেছে এবং ৬০ লাখ মানুষকে বাড়িঘর থেকে উচ্ছেদ করেছে।

 শ্রী শ্রী রবি শঙ্কর এবং ফার্ক বিদ্রোহীদের মধ্যে যখন আলোচনা হয় সেই আলোচনায় মূল কেন্দ্রে ছিল মহাত্মা গান্ধীর অহিংস নীতি। সেখানে মহাত্মা গান্ধীর অহিংস নীতিকে সামনে নিয়ে রবি শঙ্কর দেখান কীভাবে সহিংসতা ছাড়াও রাজনীতি করা যায় ।

এ কারণে ২০১৫ সালের জুলাই মাসে শ্রী শ্রী রবি শঙ্করকে কলম্বিয়ার সরকার সেই দেশের সর্বোচ্চ মর্যাদার “ওরডেন ডি লা ডেমক্রেশিয়া সিমোন বলিভার” পুরস্কারে ভূষিত করেছে।

শ্রী শ্রী রবি শঙ্কর জম্ম নেন ভারতের তামিলনাড়ুতে ১৯৫৬ সালের ১৩ মে। তিনি অনেকগুলো সেবামূলক প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করেছেন। তার মধ্যে অন্যতম হলো, আর্ট অব লিভিং ফাউন্ডেশণ, ইন্টারন্যাশনাল অ্যাসোসিয়েশন ফর হিউম্যান ভ্যালুস, ওয়ার্ল্ড ফোরাম ফর ইথিকস ইন বিসনেস। তাকে আবার সবাই ‘যোগী মহাঋষি’ বা শুধুমাত্র ‘শ্রী শ্রী’ নামেও চেনেন। শ্রী শ্রী রবি শঙ্করের বিখ্যাত উক্তি হল, “আমার উদ্দেশ্য হলো সহিংসতা এবং চাপমুক্ত বিশ্ব গড়ে তোলা।”

তার বিখ্যাত কয়েকটি বই: সেলিব্রেটিং সাইলেন্স, অ্যান ইনটিমেইট নোট টু দ্য সিনসিয়ার সীকার, গড লাভস ফান, পতঞ্জলি ইয়োগা সূত্র এবং অষ্টবক্র গীতা।

শ্রী শ্রী রবি শঙ্কর এই বছর ভারতের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মান ‘পদ্ম বিভূষণ’ পদক লাভ করেন।


এইবেলাডটকম/পি/এমআর
 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

সম্পাদক : সুকৃতি কুমার মন্ডল 

 খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

+8801711-98 15 52

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2019 Eibela.Com
Developed by: coder71