মঙ্গলবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮
মঙ্গলবার, ৩রা আশ্বিন ১৪২৫
 
 
নড়াইলে ইউপি চেয়ারম্যানকে গুলি করে হত্যা
প্রকাশ: ০৫:১৭ pm ১৫-০২-২০১৮ হালনাগাদ: ০৬:১৫ pm ১৫-০২-২০১৮
 
নড়াইল প্রতিনিধি
 
 
 
 



নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার দিঘলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচিত চেয়ারম্যান লতিফুর রহমান পলাশ (৪৮) কে প্রকাশ্য দিবালোকে উপজেলা পরিষদ চত্বরে গুলি করে ও কুপিয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করেছে দুবৃর্ত্তরা। নিহত চেয়ারম্যান লতিফুর রহমান পলাশ উপজেলার কুমড়ি গ্রামের মৃত গোলাম রসুল শেখের ছেলে। তিনি উপজেলা আওয়ামীলীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক ছিলেন।
 
পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার দিঘলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও আ’লীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক লতিফুর রহমান পলাশ বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে সহস্রাব্দের উন্নয়ন বিষয়ক সভায় অংশ গ্রহন করার উদেশ্যে দিঘলিয়াস্থ নিজ বাড়ি থেকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে আসেন। সভা শুরুর পূর্বে অন্যান্য চেয়ারম্যানদের সাথে নাস্তা খাওয়ার পর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছ থেকে অনুমতি নিয়ে চেয়ারম্যান পলাশ ব্যক্তিগত কাজের জন্য লক্ষীপাশা সোনালী ব্যাংকের উদেশ্যে মোটরসাইকেল যোগে ইউপি মেম্বর ফরিদ আহম্মেদ বুলুকে সাথে নিয়ে রওনা দেন। এ সময় উপজেলা সেটেলমেন্ট অফিসের পূর্ব পাশে পৌঁছালে পূর্ব থেকে ওৎ পেতে থাকা ৪/৫ জন অজ্ঞাত দুবৃর্ত্ত প্রথমে তার মাথায় গুলি করে রাস্তার ওপর ফেলে দেয় এবং পরে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথাড়ি ভাবে কুপিয়ে তাকে নৃশংসভাবে হত্যা করে পালিয়ে যায়।

এ সময় সাথে থাকা মেম্বর ফরিদ আহম্মেদ বুলুর চিৎকারে উপজেলায় আগত বিভিন্ন ইউপির চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ অন্যান্য অফিসাররা ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন । মুমূর্ষু অবস্থায় পলাশকে উদ্ধার করে লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক দেবাশীষ বিশ্বাস তাকে মৃত ঘোষণা করেন। 

ইউপি চেয়ারম্যনের মৃত্যূর খবর এবং তাকে এক নজর দেখার জন্য হাসপাতাল চত্বরে তার স্বজনরাসহ হাজার হাজার মানুষ ভিড় জমায়।

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক দেবাশিষ বিশ্বাস জানান, তার শরীর থেকে দুইটি গুলি বের করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, তার শরীরের বিভিন্ন অংশে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানো হয়েছে। অতিরিক্ত রক্ত ক্ষরণের কারনে তার মৃত্যূ হয়েছে।

এ দিকে, উপজেলার দিঘলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ’লীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক লতিফুর রহমান পলাশ হত্যাকান্ডের প্রতিবাদ ও হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলা আ’লীগের উদ্যোগে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলটি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিন করে। 

নড়াইলের পুলিশ সুপার সরদার রকিবুল ইসলাম, র‌্যাব-৬ এর উদ্ধর্তন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে চেয়ারম্যানের ব্যবহৃত মোটরসাইকেল, স্যান্ডেল, ছুরির বাট ও এক রাউন্ড গুলির খোসা উদ্ধার করেছে। লোহাগড়া উপজেলার প্রাণকেন্দ্র লক্ষীপাশাসহ আশপাশের এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। 

লোহাগড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শফিকুল ইসলাম সাংবাদিকদের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, নিহতের লাশের ময়না তদন্তের জন্য নড়াইল সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

দিঘলিয়া ইউনিয়নের কুমড়ি গ্রামসহ বিভিন্ন পয়েন্টে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। দুবৃর্ত্তদের শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে। এ ঘটনায় এখনও পর্যন্ত কোন মামলা হয়নি।

প্রসঙ্গতঃ দিঘলিয়া ইউপির কুমড়ি গ্রামে আধিপত্য বিস্তার করাকে কেন্দ্র করে বিবাদমান দুটি পক্ষ সক্রিয় রয়েছে। এ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে দ্বন্ধ-সংঘাত চলে আসছিল।

নি এম/

 
 
 
   
  Print  
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
Study in RUSSIA
 
আরও খবর

 
 
 
 
 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : নিন্দ্রা ভৌমিক

খবর প্রেরণ করুন # info.eibela@gmail.com

ফোন : +8801517-29 00 02

a concern of Eibela Foundation

Request Mobile Site

 

 

Copyright © 2018 Eibela.Com
Developed by: coder71